Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২২ মঙ্গলবার, জানুয়ারী ২০১৯ | ৮ মাঘ ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

নেট বোলার থেকে বিপিএলে হ্যাটট্রিক করা কে এই আলিস ?

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১ জানুয়ারী ২০১৯, ০৮:০৭ PM আপডেট: ১১ জানুয়ারী ২০১৯, ০৮:১৪ PM

bdmorning Image Preview


বিপিএলের দর্শক খরা কেটেছে। মিরপুরে গ্যালারি যেন দর্শকে মূখর।কারণ একটাই সাকিব ও মাশরাফির লড়াই দেখা। প্রত্যাশিত দর্শকদের টাকা উসুল হয়েছে সাকিব ও মাশরাফির লড়াইটা বেশ আনন্দ দিয়েছে। সেই আনন্দের মাঝে সকলের নজর কেড়েছেন ঢাকা ডাইনামাইটসের এক অফ-স্পিনার। 
 
কেউ থাকে খুব একটা চেনেন না। চেনার কথাও না। কারণ বড় কোন টুর্নামেন্ট এর আগে তিনি খেলেননি। বিপিএলের প্রথম ম্যাচ খেলে গড়ে গেলেন এক ইতিহাস। যে ইতিহাস বিপিএলে এর আগে কেউ করে দেখাতে পারেনি।

যেটা করা দেখালেন ডাইনামাইটসের খেলোয়াড় আলিস আল  ইসলাম। যিনি রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করে সকলের নজর কাড়লেন।  নামটা খুব অপিরিচিত লাগছে তাই না। আগেই বলেছি ছেলেটা অপিরিচিত। 

কিন্তু কি ভাবে বিপিএলে আসলেন? আলিসের বিপিএলে আসার ঘটনাটাও আরেক ইতিহাস। 
 
নেট বোলার হিসাবে ঢাকা ডাইনামাইটসের দলে বোলিং করার সুযোগ পান ঢাকা সাভারের ছেলে আল ইসলাম আলিস। তার পর তাঁর বোলিং দেখে  ডাইনামাইটসের কোচ খালেদ মাহমুদ সুজনের পছন্দ হয়। 

এরপর তাকে টিমের সাথে রেখে দেন। কিন্তু আলিস স্বপ্নও ভাবতে পারেননি তাকে ম্যাচ খেলতে হবে। রংপুর  রাইডার্সের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে গতকাল সন্ধ্যায়  তাকে খালেদ মাহমুদ সুজন মানসিক ও শারীরিক ফিট থাকতে বলেন , বলেন রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে তাকে মাঠে নামতে হবে।ঠিক সেই সময় থেকেই নিজেকে মানসিক প্রস্তুতি করেছেন। কিন্তু মিপুরের ২৫ হাজার দর্শকের সামনে খেলতে গিয়ে অনেক নারভাস হয়ে যান। যার জন্য ম্যাচের গুরুত্বপূর্ণ সময়ে দুটি ক্যাচও ছেড়েছেন। বাজে এই ফিল্ডিংয়ের জন্য আলিস হতাশ হয়ে পড়েন। কিন্তু দলের সতীর্থরা সেই সময় সাহস দিয়েছেন। সেই সাহসেই বোলিং করেন তিনি।

তার পর  তাঁর বোলিং ঘূর্ণিতে সোজা হয়ে দাঁড়াতে পারলেন না মাশরাফিরা। ৪ ওভার বল করে ২৬ রান দিয়ে নিলেন ৪ উইকেট। এই চার ওভারের মধ্যে একটি ওভারে হ্যাটট্রিকও করেছেন তিনি। 

হ্যাটট্রিক করার পর আলিস সংবাদ সম্মেলনে এসে জানালেন তাঁর নিজের পরিচয়। কারণ তাঁর পরিচয় কেউ জানেন না,আমি  আলিস আল ইসলাম। আমি ঢাকা ডায়নামাইটসের নেট বোলার ছিলাম। আগে আমি ঢাকা ফাস্ট ডিভিশনে খেলেছি। নেট বোলিং করার সময় সুজন (ঢাকার কোচ খালেদ মাহমুদ সুজন) স্যার আমাকে দেখেন। দেখে ওনার বিশ্বাস হয় যে আমি ভালো করতে পারব, তারপর আমাকে টিমে নেয়। তারপর টিম ম্যানেজমেন্ট, প্লেয়াররা আমাকে সাপোর্ট করে। তারপর আমি সেরা একাদশে।
এরপর জানালেন তিনি কোথা কার ছেলে,না ঢাকার বাইরে থেকে নয়, ঢাকার স্থানীয় আমি। ঢাকা সাভারের বলিয়ারপুর বাসা আমার। 
আলিস ঢাকা লিগে কাঠাল বাগানের হয়ে  প্রথম বিভাগ ও দ্বিতীয় বিভাগ ক্রিকেট খেলেছেন। এখন তিনি বিপিএলের হ্যাটট্রিক বয়।সামনে আরও ভালো বোলিং করতে চান এই ২৩ বছয় বয়সী  অফ-স্পিনার। 

Bootstrap Image Preview