Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২৮ শুক্রবার, ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ১৬ ফাল্গুন ১৪২৬ | ঢাকা, ২৫ °সে

আগামী বছর থেকে মাওলানা সাদকে নিয়ে ইজতেমা করতে চান অনুসারীরা

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৯ জানুয়ারী ২০২০, ০৫:০৫ PM
আপডেট: ১৯ জানুয়ারী ২০২০, ০৫:০৫ PM

bdmorning Image Preview


আগামী বছর থেকে মাওলানা সাদ কান্দলভীকে নিয়ে টঙ্গীর ময়দানে ৫৬তম বিশ্ব ইজতেমা করতে চান তার অনুসারীরা। এর আগেই উভয়পক্ষের বিরোধ মিটে যাবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

শনিবার (১৮ জানুয়ারি) রাতে স্থানীয় সংসদ সদস্য যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল এবং গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র অ্যাডভোকেট মো. জাহাঙ্গীর আলমের সঙ্গে ইজতেমা ময়দানের শীর্ষ মুরব্বিদের বৈঠক হয়।

এতে চট্টগ্রামের লালখান জমিয়াতুল উলুম আল-ইসলামিয়া মাদরাসার প্রিন্সিপাল ও হেফাজতে ইসলামের প্রতিষ্ঠাতা নায়েবে আমির মুফতি ইজাহারুল ইসলাম চৌধুরী এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

তিনি বলেন, মাওলানা সাদ কান্ধলভীর কিছু বক্তব্য নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে। তিনি সেসব বক্তব্যের ব্যাপারে একটি সমাধানে পৌঁছানের পর আগামীতে টঙ্গী ইজতেমায় তার যোগদানের পথ সুগম হবে বলে মনে করছেন তাবলিগের সাথীরা।

এদিকে প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল ও গাজীপুর সিটি মেয়র মো. জাহাঙ্গীর আলম প্রথম পর্বের ন্যায় ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বেও তাবলিগ জামাতের মুরব্বিদের সঙ্গে ময়দানে সময় দিচ্ছেন। রাত-দিন তারা ময়দানে মুরব্বিদের সঙ্গেই অবস্থান করছেন। প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল ও সিটি মেয়র জাহাঙ্গীর আলম শনিবারও ইজতেমা ময়দানে মুরব্বিদের সঙ্গে রাত কাটান।

ইজতেমার মুরব্বিরা বলেন, আমাদের মতানৈকের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে ইজতেমা। ধীরে ধীরে ইজতেমায় বিদেশি মুসল্লি আসা কমে যাচ্ছে। এভাবে চলতে থাকলে এটি আর বিশ্ব ইজতেমা থাকবে না। তখন এটি বাংলাদেশের ইজতেমায় পরিণত হবে। আগে যেখানে শতাধিক দেশ থেকে ২৫ থেকে ৩০ হাজার বিদেশি মুসল্লি আসতো এখন দুই পর্বে মাত্র পাঁচ হাজারের মতো মুসল্লি আসছেন। তাই ঐক্যবদ্ধ ইজতেমা খুব জরুরি।

Bootstrap Image Preview