Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৪ বৃহস্পতিবার, নভেম্বার ২০১৯ | ৩০ কার্তিক ১৪২৬ | ঢাকা, ২৫ °সে

শিশুর ভয়াবহ বিপদের কারণ হতে পারে স্মার্টফোন!

শাকিলা সিথী
সাব এডিটর
প্রকাশিত: ০৭ অক্টোবর ২০১৮, ০১:৪৮ PM
আপডেট: ০৭ অক্টোবর ২০১৮, ০১:৪৮ PM

bdmorning Image Preview


বিডিমর্নিং ডেস্কঃ 

দৈনন্দিন জীবনে যে প্রযুক্তিগুলো আমাদের  সাথে বিশেষভাবে জড়িয়ে আছে তার মধ্যে অন্যতম হল স্মার্টফোন । এটি যেমন দরকারি, ঠিক তেমনি এর প্রতি আসক্তি নানা বিপদে ফেলতে পারে আপনার সন্তানকে। তাই শিশুর হাতে স্মার্টফোন দেওয়া যাবে না। কারণ স্মার্টফোন আপনার সন্তানের জীবনযাপনের প্রতিটি ক্ষেত্রে নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে।

এখন জেনে নেওয়া যাক কেন শিশুর হাতে স্মার্টফোন দেওয়া যাবে না-

আচরণগত সমস্যা​:

খুব বেশি কম্পিউটার ও মোবাইল ব্যবহারের ফলে শিশুদের মধ্যে আচরণগত সমস্যা দেখা দেয়। আপনার শিশুকে আচরণগত সমস্যার ঝুঁকি থেকে দূরে রাখতে চাইলে ওর হাতে স্মার্টফোন দেবেন না।

ছোট বয়সে মোবাইল​:

অনেক মা-বাবা শিশুকে ব্যস্ত বা শান্ত রাখতে হাতে মোবাইল দিয়ে রাখেন। নিজেদের সুবিধা বা আরামের ফল পরবর্তীতে ভয়ঙ্কর হতে পারে। বিশেষ করে একেবারে ছোট বয়সে মোবাইল হাতে দিলে শঙ্কাটা বেশি হয়৷

নিজেরাই পরীক্ষা করুন:

যে শিশু নিয়মিত মোবাইল ব্যবহার করে, তাকে কয়েকদিন মোবাইল থেকে দূরে রাখুন৷। তার আচরণের পরিবর্তনটুকু নিজেরাই বুঝতে পারবেন। একটুতেই রেগে যাবে, মেজাজ চিড়চিড়ে হবে। এমনকি ঝগড়া করার প্রবণতা বেড়ে যায়।

তবে ৭ বছর বয়সের শিশুদের দিনে আধঘণ্টা মোবাইল ফোন, কম্পিউটার, টিভি বা ট্যাবলেট ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। কিন্তু আধঘণ্টার বেশি  ব্যবহার করতে দেওয়া যাবে না।

শিশুদেরকে এসব যন্ত্র থেকে দূরে রাখতে হলে বিপরীত কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে আমাদের-

বই পড়তে দেওয়া:

একটি শিশু যখন একটি বই পড়ে বা ছবির বই দেখে, তখন কিন্তু সে নিজেই সিদ্ধান্ত নিতে পারে কখন সে বইয়ের পাতা উল্টাবে। অর্থাৎ, শিশুটি তখন তার নিজের গতিতে চলতে পারে। ফলে তাকে তাড়াহুড়ো করতে হয় না।

বাইরে খেলতে দেওয়া:

একটি শিশুর শারীরিক ও মানসিকভাবে ফিট থাকার জন্য মুক্ত হাওয়া যেমন প্রযোজন, তেমনি প্রয়োজন মুক্ত পরিবেশ। তবেই সে একজন পরিপূর্ণ মানুষ হয়ে উঠতে পারে৷

Bootstrap Image Preview