Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২৩ বৃহস্পতিবার, মে ২০১৯ | ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ | ঢাকা, ২৫ °সে

১৬ টি গ্রামের মানুষের যাতায়াতের একমাত্র ভরসা বাঁশের সাঁকো

ফারুক হাসান কাহার, শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ০৩ এপ্রিল ২০১৯, ০৫:০৬ PM
আপডেট: ০৩ এপ্রিল ২০১৯, ০৫:০৬ PM

bdmorning Image Preview
ফাইল ছবি


সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার চর নরিনা সহ ১৬টি গ্রামের ১৫ হাজার মানুষের প্রতিদিনের যাতায়াতের একমাত্র ভরসা চর নরিনা বাজার সংলগ্ন হুড়াসাগর নদীর উপর সেচ্ছা শ্রমে নির্মিত ২৫০ ফুট দৈর্ঘ্যরে বাঁশের সাঁকো। চর নরিনা উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক নূর মোহাম্মদ ও এ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য মোঃ আব্দুস সেলিম জানান, চর নরিনা বাজার ও চর নরিনা পশ্চিম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন এ বাঁশের সাঁকোটি ৩ বছর আগে নির্মাণ করা হয়। 

চর নরিনা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক, ম্যানেজিং কমিটির সদস্য ও এলাকাবাসী উদ্যোগ নিয়ে এলাকাবাসীর কাছ থেকে চাঁদার টাকা তুলে ও এলাকাবাসির সেচ্ছা শ্রমের বিনিময়ে প্রায় ২ লাখ টাকা ব্যয়ে এ সাঁকোটি তৈরি করা হয়। সেই থেকে প্রতি বছর একই ভাবে এলাকাবাসীর সহযোগিতায় এ বাঁশের সাঁকোটির সংষ্কার কাজও করা হয়। তারপরেও সাঁকোটির নির্মাণ দীর্ঘ দিনের হওয়ায় এটি এখন নরবড়ে হয়ে ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে। তাই বর্ষা মৌসুমে এই ঝুঁকিপূর্ণ বাঁশের সাঁকো দিয়ে যাতায়াতের সময় অনেক স্কুলগামী কমলমতি শিক্ষার্থী পানিতে পড়ে যায়।

এ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক গোলাম মোস্তফা, সাইদুল ইসলাম, কেয়া খাতুন, গ্রামবাসী সুজাবত আলী মহুরী, সেলিম হোসেন, স্বপন মেম্বর, রফিকুল ইসলাম, ঠান্ডু মিয়া, আবু তাহের ফকির, আবুল কালাম আজাদ ও এনামূল হক জমিন বলেন, শাহজাদপুর উপজেলার নরিনা ইউনিয়নের চর নরিনা গ্রামটি অত্যন্ত দূর্গম এলাকা। 

এ গ্রামে যাতায়াতের ভাল কোনো রাস্তা নেই। এই বাঁশের সাঁকোই তাদের একমাত্র যাতায়াতের ভরসা। এ বাঁশের সাঁকো দিয়ে চর নরিনা সহ ১৬টি গ্রামের ১৫ হাজার মানুষ ও ১০টি স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসার ৩ হাজার শিক্ষার্থী প্রতিদিন যাতায়াত করে। 

গ্রাম গুলি হলো- চরনরিনা, নরিনা, টেপরী, চরটেপরী, বারইটেপরী, পুনারটেপরী, বওশাগাড়ি, সাতবাড়িয়া, আগনুকালি, জয়রামপুর, চিলাপাড়া, মালতিডাঙ্গা, চরডিগ্রিরচর, খামারউল্লাপাড়া, কালিপুর ও ধুকুরিয়াবেড়া।

স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসা গুলি হলো-চরনরিনা উচ্চ বিদ্যালয়, চরনরিনা পশ্চিম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, চরনরিনা পূর্ব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, খামারউল্লাপাড়া হাই স্কুল, সাতবাড়িয়া হাইস্কুল, সাতবাড়িয়া ডিগ্রি কলেজ, সাতবাড়িয়া কারিগরি কলেজ, সাতবাড়িয়া মাদ্রাসা, নরিনা হাইস্কুল ও নরিনা মাদ্রাসা। 

স্থানীয়রা জানান, এখানে একটি কংক্রিট ব্রীজ অতি প্রয়োজন। তাই তারা অবিলম্বে এখানে একটি কংক্রিট ব্রীজ নির্মাণের জোর দাবি জানান। 

এ ব্যাপারে নরিনা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফজলুল হক মুন্ত্রী বলেন, সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষকে এখানে একটি কংক্রিট ব্রীজ নির্মাণের জন্য একাধিকবার অনুরোধ করেছি। কিন্তু এখনও পর্যন্ত কোনো কাজ হয়নি। তাই অচিরেই লিখিত ভাবে এখানে একটি ব্রীজ নির্মাণের জন্য আবেদন করা হবে। 

এ ব্যাপারে শাহজাদপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাজমূল হুসেইন খান বলেন, এলাকাবাসী এ বিষয়ে লিখিত ভাবে আবেদন করলে সরেজমিন পরিদর্শন করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Bootstrap Image Preview