Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২১ শুক্রবার, সেপ্টেম্বার ২০১৮ | ৬ আশ্বিন ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

‘আকাশবীণা’ আসছে..

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৮ আগস্ট ২০১৮, ১০:৫৭ PM আপডেট: ১৮ আগস্ট ২০১৮, ১০:৫৭ PM

bdmorning Image Preview


আসাদুল্লা লায়ন:

অবশেষে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স বহরে ‍যুক্ত হচ্ছে চতুর্থ প্রজন্মের সর্বাধুনিক উড়োজাহাজটি। বহুল আকাঙ্ক্ষিত বোয়িং ড্রিমলাইনার ৭৮৭ ‘আকাশবীণা’ দেশের মাটি স্পর্শ করবে রবিবার বিকেল ৫টায়। ড্রিমলাইনার ৭৮৭ অবতরণের পর ‘ওয়াটার ক্যানন স্যালুটে’র মাধ্যমে স্বাগত জানানো হবে।

রবিবার(১৯ আগস্ট) উড়োজাহাজটি দেশে পৌঁছালেও এর আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হবে আগামী ১ সেপ্টেম্বর। এরইমধ্যে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান এয়ারভাইস মার্শাল (অব.) ইনামুল বারীর নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল সিয়াটলের বোয়িং কোম্পানির কার্যালয়ে পৌঁছেছেন।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের উড়োজাহাজ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বোয়িংয়ের সঙ্গে ২০০৮ সালে চারটি ড্রিমলাইনারসহ মোট ১০টি বোয়িং উড়োজাহাজ কেনার জন্য ২.১ বিলিয়ন ইউএস ডলারে চুক্তি করে। ১০টি বোয়িং উড়োজাহাজের মধ্যে রয়েছে বোয়িং ৭৭৭-৩০০ ইআর মডেল চারটি এবং বোয়িং ৭৩৭-৮০০ মডেল দু’টিসহ মোট ছয়টি উড়োজাহাজ বাংলাদেশ বিমানকে সরবরাহ করেছে কোম্পানিটি।

বাকি থাকা চারটি ৭৮৭ উড়োজাহাজের প্রথমটি ১৯ আগস্ট, পরেরটি আগামী নভেম্বর এবং আগামী বছরের সেপ্টেম্বরে আরও দু’টি ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজ সরবরাহ করবে তারা। বিমান বাংলাদেশের বহরে যোগ হতে যাওয়া চারটি উড়োজাহাজের নামও রেখেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেগুলো হচ্ছে ‘আকাশবীণা’, ‘হংস বলাকা’, ‘গাঙচিল’ ও ‘রাজহংস’। আগামীকাল আসা ড্রিমলাইনার ৭৮৭ এর প্রথম ড্রিমলাইনটির নাম ‘আকাশবীণা’।

টানা ১৬ ঘণ্টা উড়তে সক্ষম বিশ্বের সর্বাধুনিক এই উড়োজাহাজ বোয়িং-৭৮৭ ড্রিমলাইনার ‘আকাশবীণা’তে থাকছে সব ধরনের বিনোদনের ব্যবস্থা। যাত্রীরা উড়োজাহাজের ভেতরেই পাবেন ওয়াইফাই সুবিধা। বিশেষ ফোনসেটের মাধ্যমে উড়োজাহাজ চলাকালে কথা বলার সুবিধাও থাকছে এই এয়ারক্রাফটের ভেতরে। উড়োজাহাজটি বোয়িং ৭৬৭’র চেয়েও ২০ শতাংশ কম জ্বালানিতে চলবে। বিমানটির মোট আসন সংখ্যা ২৭১টি। এর মধ্যে বিজনেস ক্লাস ২৪টি, বাকি ২৪৭টি ইকোনোমি ক্লাস।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) শাকিল মেরাজ জানান, ইতোমধ্যে বাংলাদেশ সিভিল অ্যাভিয়েশন অথোরিটি থেকে নেওয়া হয়েছে এর নিবন্ধন। ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী ১ সেপ্টেম্বর এ ড্রিমলাইনারের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন। এবং একইদিন সন্ধ্যায় ঢাকা থেকে মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুর রুটে ড্রিমলাইনারের প্রথম বাণিজ্যিক ফ্লাইট পরিচালিত হবে। এর পরবর্তীতে ঢাকা-সিঙ্গাপুর এবং ঢাকা-কুয়ালালামপুরে নিয়মিতভাবে দুটি ফ্লাইট পরিচালিত হবে।’

শাকিল মেরাজ বলেন, ‘নতুন ড্রিমলাইনারগুলোতে যাত্রীদের জন্য ফ্লাইটের সময়ে যেসব সুবিধা থাকছে, সেগুলো আগে ছিল না। যেমন ইন্টারনেট ব্যবহার ও ফোন কল করার সুবিধা। দেখতে পাবেন বিবিসি, সিএনএনসহ ৯টি চ্যানেলের লাইভ সম্প্রচার। আর এসব সুবিধার জন্য এয়ারলাইন্সটি ইতোমধ্যে বিটিআরসির কাছ থেকে অনুমোদন নিয়েছে।’

প্রায় ৪ কোটি টাকা ব্যয়ে এই সার্ভিসটি দেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। জানা গেছে, ফ্লাইট চলাকালীন যাত্রীরা থ্রিজি গতির ফ্রি ওয়াইফাই সুবিধা পাবেন আর বিমান বাংলাদেশের পক্ষ থেকে যাত্রীদের দেওয়া হবে ফ্রি ২০ মেগাবাইট ডাটা। প্যানাসনিক অ্যাভিয়েশন করপোরেশনের সঙ্গে চুক্তি হয়েছে- যারা ২৫টি স্যাটেলাইটের মাধ্যমে ডাটা ট্রান্সফারের কাজ করবে। ড্রিমলাইনার ৭৮৭ এ রয়েছে থ্রিডি রুট ম্যাপ। এর মাধ্যমে ডিসপ্লেতে উড়োজাহাজটি যেখান দিয়ে উড়ে যাবে তার নিচের সব স্থাপনা দেখতে পাবেন যাত্রীরা।

Bootstrap Image Preview