Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২৪ সোমবার, সেপ্টেম্বার ২০১৮ | ৯ আশ্বিন ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

নাইমকে নিয়ে কেউ আগ্রহী নয়, তবুও

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৬ এপ্রিল ২০১৮, ০১:২৩ PM আপডেট: ০৬ এপ্রিল ২০১৮, ০১:২৪ PM

bdmorning Image Preview


বিডিমর্নিং স্পোর্টস ডেস্ক-

জাতীয় দলে খেলার জন্য যোগ্যতার মাপকাঠি যদি ঘরোয়া ক্রিকেট হয়, তাহলে বাংলাদেশ দলে খেলার জন্য যোগ্যতম খেলোয়াড় নাঈম ইসলাম। বিগত কয়েক বছর ধরে ঘরোয়া লিগ গুলোতে ধারাবহিক পারফরম্যান্স করে গেলেও নির্বাচকদের মন সদয় হচ্ছে না তার উপর।

প্রতি মৌসুমেই ঘরোয়া ক্রিকেটে রানের ফেয়ারা ছোটালেও জাতীয় দলে জায়গা পাচ্ছেন না নাইম ইসলাম। এবারও যেমন লিজেন্ডস অব রুপগঞ্জকে রানারআপ করার পথে নাঈমের ব্যাট থেকে ১৬ ম্যাচে এসেছে ৭২০ রান। গড় ৫৫.৩৮, স্ট্রাইক রেট ৮৭.৩৭।ডিপিএলের শেষ ম্যাচে আবাহনীর বিপক্ষে খেলেছেন ৭৬ রানের ইনিংস। পুরো টুর্নামেন্টে একটি সেঞ্চুরির সাথে হাঁকিয়েছেন ছয়টি ফিফটিও।

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে এবারের আসরে তিনি তৃতীয় সর্বাচ্চ রান সংগ্রাহক।তবু তিনি নিশ্চিত নন আদৌ ডাক আসবে কিনা জাতীয় দল থেকে। ৭৪৯ রান নিয়ে প্রথম স্থানে রয়েছেন নাজতুল হোসেন শান্ত।

জাতীয় দল থেকে বাদ পড়ার আগের টেস্টেও নাঈম হাঁকিয়েছিলেন ক্যারিয়ারের প্রথম এবং একমাত্র টেস্ট সেঞ্চুরি। ওয়ানডে থেকে বাদ পড়ার আগের সিরিজেই ছিলেন, সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক। বাদ পড়া সিরিজেও তিন ম্যাচে করেন ৩২,১৪ এবং ৩৫। ২০১২ সালের নভেম্বরে ওয়েষ্ট ইন্ডিজের হয়ে শেষ টেস্ট খেলেছিলেন নাইম। আর ওয়ানডে খেলেছেন ২০১৪ মার্চে আফগানিস্তানের বিপক্ষে দলের গুরুত্বপূর্ণ সময়ে ৫১ বল থেকে ৩৫ রানের গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস খেলেছিলে। এই ম্যাচে বাংলাদেশ আফগানদের কাছে ৩২ রানে হেরে যায়। টেস্ট নাইম ইসলামের গড় ৩২ এবং ওয়ানডেতে ২৭। যেটা ২০১৪ সালে বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের গড় হিসাব করলে খুব একটা খারাপ না।

দল থেকে বাদ পড়ার পর তিনি থেমে না গিয়ে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন ঘরোয়া ক্রিকেটে, জয়ীর খেতাবটাও নিয়মিতি নিচ্ছেন ঘরোয়া ক্রিকেটে। অথচ জাতীয় দলের নির্বাচক মণ্ডলী দূরে থাক, দেশের সাধারণ ক্রিকেটপ্রেমীরাও মনেও জায়গা করতে পারছেন না নাইম। অনেকের কাছেই আশরাফুলের এক মৌসুমের এক লিগই জাতীয় দলে খেলার জন্য যোগ্যতম দাবীদার। এবারের আসরে কলাবাগান ক্রীড়া চক্রের হয়ে ৬৬৫ রান রান তালিকায় পঞ্চম স্থানে রয়েছেন আশরাফুল।
Bootstrap Image Preview