Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২২ শনিবার, সেপ্টেম্বার ২০১৮ | ৬ আশ্বিন ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

চিকিৎসার নামে কিশোরীকে 'ধর্ষণ' করতেন কবিরাজ

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৩ জুলাই ২০১৮, ১০:৪৪ PM আপডেট: ২৯ জুলাই ২০১৮, ০৪:৫২ PM

bdmorning Image Preview


বিডিমর্নিং নারী ডেস্ক- কুমিল্লার বরুড়া উপজেলায় জিন তাড়ানোর নামে এক কিশোরীরকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে এক কবিরাজের বিরুদ্ধে। পরে কিশোরীর অভিযোগে মো. আবুল কাসেম (৬৫) নামে এক কবিরাজকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আজ সোমবার গ্রেফতারকৃত কবিরাজ আবুল কাসেমকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। আবুল কাসেম বরুড়া উপজেলার পয়ালগাছা ইউনিয়নের মথুরাপুর গ্রামের বাসিন্দা। স্থানীয়রা জানায়, আবুল কাসেম প্রায় তিন বছর আগে সেনাবাহিনীর চাকরি থেকে অবসর নেয়ার পর থেকে নিজ এলাকায় কথিত জিন দ্বারা ঝাড়ফুঁকের মাধ্যমে বিভিন্ন রোগের অপচিকিৎসা করে আসছেন। গত ছয় মাস ধরে এই অপচিকিৎসার আড়ালে একই ইউনিয়নের সুদ্রা গ্রামের এক কিশোরীকে একাধিকবার ধর্ষণ করেন তিনি । অপচিকিৎসার একপর্যায়ে ওই কিশোরী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে তার মা এবং পরিবারের লোকজন বিষয়টি স্থানীয়দের জানান। এ ঘটনায় এলাকাবাসী রবিবার সন্ধ্যায় আবুল কাসেমকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে। বরুড়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজম উদ্দিন মাহমুদ জানান, ধর্ষণের শিকার ওই কিশোরীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ওসি মামলার বিষয়ে বলেন,  বরুড়া থানায় এ ব্যাপারে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা হয়েছে। কথিত কবিরাজ আবুল কাসেমকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
Bootstrap Image Preview