Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২৪ সোমবার, সেপ্টেম্বার ২০১৮ | ৯ আশ্বিন ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

বেতন চাওয়ায় নারী শ্রমিকের গায়ে হাত

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৬ এপ্রিল ২০১৮, ০৫:৪২ PM আপডেট: ১৬ এপ্রিল ২০১৮, ০৫:৪২ PM

bdmorning Image Preview


বিডিমর্নিং নারী ডেস্কঃ

রাজধানীর তেজতুরী বাজারের গোল্ড স্টার ডিজাইন গার্মেন্টস ফ্যাক্টরির শ্রমিকেরা বেতনের দাবিতে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছেন।

আজ সোমবার প্রায় এক ঘণ্টাব্যাপী এই বিক্ষোভে গার্মেন্টস-সংলগ্ন কাজী নজরুল ইসলাম অ্যাভিনিউয়ের একপাশের সড়কে যান চলাচল বন্ধ ছিল।

গোল্ড স্টার ডিজাইনের বিক্ষুব্ধ শ্রমিকেরা বলছেন, প্রতি মাসের বেতন তাঁরা পান ৮ তারিখে। তবে চলতি মাসে এখনো গত মাসের বেতন পাননি। কেউ কেউ অর্ধেক বেতন পেয়েছেন। বারবার বলা হলেও তাঁদের বেতনের ব্যাপারে মালিকপক্ষ টালবাহানা করছিল। শ্রমিকেরা অভিযোগ করেন, আজ সকালে শ্রমিকেরা বেতন চাইতে গেলে মালিকপক্ষের কয়েকজন দুজন নারীশ্রমিকের গায়ে হাত তোলেন। এরপরই শ্রমিকেরা বিক্ষোভ শুরু করেন। বেলা একটার দিকে তাঁরা ফার্মগেট বাসস্ট্যান্ডের আগে তেজতুরী বাজারের গোল্ড স্টার ডিজাইন ফ্যাক্টরি-সংলগ্ন কাজী নজরুল ইসলাম অ্যাভিনিউয়ের সড়কের একপাশ অবরোধ করেন। তাঁরা বেতনের দাবিতে বিক্ষোভ করতে থাকেন। এ সময় একপাশের সড়কে যান চলাচল প্রায় এক ঘণ্টা বন্ধ ছিল।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক নারী শ্রমিক জানান, ‘আমরা বেতন চাইতে গেলে আমাদের গায়ে হাত তোলা হয়। আজ সকালেও মালিকের সঙ্গে কথা বলতে গেলে দুই মেয়ের গায়ে হাত তোলে। একজন অজ্ঞান হয়ে গেছে। বেতনও দেয় না আবার উল্টা মারে। এ কেমন বিচার?’

 তেজগাঁও থানার পুলিশ এ সময় ঘটনাস্থলে এসে শ্রমিকদের অবরোধ তুলে নিতে বলে। বেলা ১টা ৫৫ মিনিটে শ্রমিকেরা চলে গেলে কাজী নজরুল ইসলাম অ্যাভিনিউয়ের এক পাশের সড়কে আবার যান চলাচল শুরু হয়। তেজগাঁও বিভাগের জ্যেষ্ঠ সহকারী কমিশনার সাত্যকি কবিরাজ জানান, ‘ওই গার্মেন্টস ফ্যাক্টরির শ্রমিকেরা বেতন পাচ্ছিলেন না বলে দাবি করেন। তাঁরা সড়ক অবরোধ করেন। কিন্তু এভাবে তো সাধারণ মানুষের দুর্ভোগ করে দাবি আদায় করা যায় না। আমি শ্রমিকদের বুঝিয়ে অবরোধ তুলে নিতে অনুরোধ করি। ন্যায্য টাকা পেতে ন্যায্যভাবে দাবি আদায় করতে বলি। তাঁদের ফ্যাক্টরির এক প্রোডাকশন ম্যানেজারের সঙ্গে বিষয়টি দ্রুত সমাধান করার কথা বলেছি।’ গোল্ড স্টার ডিজাইন লিমিটেডের প্রোডাকশন ম্যানেজার মো. মুকুল হোসেন বলেন, শ্রমিকদের অর্ধেক অংশের বেতন দেওয়া হয়েছে। বাকি অর্ধেকের বেতন বাকি রয়েছে।

Bootstrap Image Preview