Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২২ বৃহস্পতিবার, নভেম্বার ২০১৮ | ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

ভোলায় কৈশোরবান্ধব কেন্দ্রে স্বাস্থ্যসেবা পাচ্ছে কিশোরীরা

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৮, ০২:৫২ PM
আপডেট: ১২ ফেব্রুয়ারী ২০১৮, ০২:৫২ PM

bdmorning Image Preview


বিডিমর্নিং নারী ডেস্কঃ

ভোলায় স্বাস্থ্যসেবা জনগণের কাছে পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে ভোলা সদর হাসপাতাল, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, ইউনিয়ন স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রে চালু করা হয়েছে কৈশোরবান্ধব স্বাস্থ্যসেবা। পর্যায়ক্রমে যা অন্যান্য উপজেলায়ও চালু করা হবে।

এই কৈশোরবান্ধব স্বাস্থ্যসেবা মাধ্যমে সর্বস্তরের কিশোর-কিশোরীরা এ কর্নারে এসে বিভিন্ন স্বাস্থ্যসেবা, পুষ্টি, আয়রন ট্যাবলেট খাবার নিয়ম, পিরিয়ডকালীন পরিচর্যা, ব্যক্তিগত পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা, বাল্যবিয়ের কুফলসহ নানা বিষয় সেবা পেয়ে থাকে।

এখানে সেবা নিতে আসা অধিকাংশ কিশোর-কিশোরী ক্লাবের সদস্য বলে জানা যায়। ইতোমধ্যে এর সুফল পেতে শুরু করেছে ভোলা সদর, লালমোহন ও চরফ্যাশন উপজেলার তৃণমূলের কিশোর-কিশোরীরা।

সরেজমিন জানা যায়, ভোলা সদর উপজেলার শিবপুর ইউনিয়নের রতনপুর গ্রামের ১ নং ওয়ার্ডের ফারজানা বেগম (১৪)। এ বছর অষ্টম শ্রেণি থেকে নবম শ্রেণিতে উঠেছে। নিয়মিত স্কুলে যেত। হঠাৎ সে পিরিয়ডকালীন নানা সমস্যায় পরে। ফলে তার সাময়িক স্কুলে যাওয়া বন্ধ হয়ে যায়।

এমনকি কিশোরী ক্লাবে যেই মেয়ে নিয়মিত অংশ নিয়ে কিশোরীদের মাতিয়ে রাখতো সেই মেয়ের ক্লাবে যাওয়াও বন্ধ হয়ে যায়। খবর পেয়ে কোস্ট ট্রাস্ট আইইসিএম প্রকল্পের মাঠকর্মী ইয়াছমিন আক্তারের সহায়তায় তাকে ইউনিয়ন স্বাস্থ্যকেন্দ্রের কৈশোরবান্ধব স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্র নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তাকে পিরিয়ড চলাকালীন পরিচর্যা ও আয়রন ট্যাবলেট দেওয়া হয়।

ফারজানা বলে, আমি এসময়ের যত্ন সম্পর্কে তেমন কিছু জানতাম না। ফলে পিরিয়ড চলাকালে নিজেকে গুটিয়ে রাখতাম। এমনকি ভয়ে মাকেও জানাইনি। তাই দিনে দিনে অসুস্থ হতে থাকি। মনে হতো বড় কোনো রোগে আক্রান্ত হয়েছি। কিন্তু কিশোরী কর্নারে গিয়ে যখন এসময়ের করণীয় ও বিভিন্ন সেবা সম্পর্কে পরার্মশ পেয়েছি এখন আগের থেকে অনেক সুস্থ বোধ করছি।

এ কৈশোরবান্ধব স্বাস্থ্যসেবা কর্নার পরিচালনায় সার্বিক সহযোগিতা করছেন ইউনিসেফ বাংলাদেশ।

Bootstrap Image Preview