Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৬ মঙ্গলবার, অক্টোবার ২০১৮ | ১ কার্তিক ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

‘দিখাও ইস্কে নীচে কেয়া হ্যায়’ প্রকাশ্যে রাস্তায় মডেলের স্কার্টে ধরে টানাটানি

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৩ এপ্রিল ২০১৮, ১০:৪৬ PM
আপডেট: ২৩ এপ্রিল ২০১৮, ১০:৪৬ PM

bdmorning Image Preview


আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

সকালে জনবহুল রাস্তায় স্কার্ট ধরে টানাটানি করে ভারতীয় এক মডেলের শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠেছে। নিজেকে বাঁচাতে গিয়ে টানা-হেঁচড়ায় রাস্তায় পড়ে হাত, পায়ে গুরুতর আহত হয়েছেন তিনি। রোববার ভারতের মধ্যপ্রদেশের ইনদোরে জনপ্রিয় শপিং মলের সামনে এ ঘটনা ঘটে। পরে সেই মডেলের করা টুইটের ভিত্তিতে কয়েকটি ভারতীয় বেশ কয়েকটি সংবাদ মাধ্যম এই খবর দিয়েছে।

তার টুইটে ওই মডেল অভিযোগ করেছেন, রোববার সকালে তিনি যখন স্কুটার চালিয়ে যাচ্ছিলেন ইনদোরের জনবহুল রাস্তায়, তখন মোটরবাইকে চেপে দু’জন এসে তার পথ রুখে দাঁড়ায়। বাইক নেমে তারা মডেলের স্কার্ট ধরে টানাটানি করতে থাকে। আর চেঁচিয়ে বলতে থাকে, ‘দিখাও ইস্কে নীচে কেয়া হ্যায়’

ওই দু’জনের হাত নিজেকে বাঁচাতে তাড়াতাড়ি স্কুটার নামতে গিয়ে রাস্তায় পড়ে যান সেই মডেল। এতে তিনি হাত-পায়ে গুরুতর জখন হোন।

মডেলের অভিযোগ, সকালে ব্যস্ত রাস্তায় ওই ঘটনার সময় কেউই এগিয়ে আসেননি তাকে সাহায্য করতে। যে প্রবীণ ভদ্রলোক পরে এসে তাকে উদ্ধার করেন, তিনিও নাকি স্কার্ট পরার জন্য কিছুটা বকাঝকা করেন ওই মডেলকে। টুইটে তার হাত, পায়ের কেটে-ছিড়ে যাওয়া অংশের ছবিও জুড়ে দেন ওই মডেল।

টুইটে তিনি লিখেছেন, ‘আমি তখন ব্লগারদের আলোচনা সভা ফিরছিলাম। স্কার্ট পরে স্কুটার চালাচ্ছিলাম। সেই সময় বাইকে চেপে এসে দু’জন আমার পথ আটকে দাঁড়ায়। ওরা আমার স্কার্ট ধরে টানাটানি করতে শুরু করে।

আর বলতে থাকে, ‘দিখাও, ইস্কে নীচে কেয়া হ্যায়? কয়েক মুহূর্তের ঘটনা। কিন্তু সব কিছু দেখলেও, কেউই এসে ওদের বাধা দেননি।’ টুইটে ওই মডেল জানিয়েছেন, কিছুক্ষণ পর বখাটেরা বাইক চালিয়ে উধাও যায়। ঘটনাটা এত তাড়াতাড়ি ঘটে যে বাইকের নাম্বার প্লেটও পড়ে ফুরসৎ পাননি তিনি।

যে প্রবীণ ভদ্রলোক পরে উদ্ধার করেন তাকে, টুইটে তার মন্তব্য নিয়েও বিরক্তি প্রকাশ করেছেন ওই মডেল। তার বক্তব্য, ওই পোশাক পরেছি বলে তো কেউ ওই দুষ্কৃতীদের অধিকার দেয়নি এমন আচরণ করার।’

টুইটে ওই মডেল লিখেছেন, ঘটনার কিছুক্ষণ পর তিনি ফের যান ওই এলাকায়। ওই দু’জনকে কেউ পরে দেখেছেন কি না, জানতে চান সেখানকার লোকজনের কাছে। কিন্তু কেউই তাকে কিছু বলতে পারেননি। কোনও সিসিটিভি ক্যামেরাও ছিল না শপিং মলের লাগোয়া ওই এলাকায়।

ইনদোর পুলিশের ডেপুটি ইন্সপেক্টর জেনারেল (ডিআইজি) হরি নারায়ণচারী মিশ্র বলেছেন, ‘আমরা এ ব্যাপারে এখনও পর্যন্ত কোনো লিখিত অভিযোগ পাইনি। পেলে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

Bootstrap Image Preview