Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৭ বুধবার, অক্টোবার ২০১৮ | ১ কার্তিক ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

ইসরায়েলের জনসংখ্যা ২০৪৮ সালে ১৫ মিলিয়ন ছাড়িয়ে যাবে

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৭ এপ্রিল ২০১৮, ০১:৫১ PM
আপডেট: ১৭ এপ্রিল ২০১৮, ০১:৫১ PM

bdmorning Image Preview


আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

ইসরায়েলের ৭০ বছর পূর্তিতে দেশটির জনসংখ্যা ৮.৮৪২ মিলিয়নে দাঁড়ালেও ২০৪৮ সালে তা ১৫ মিলিয়ন ছাড়িয়ে যাবে। দেশটির পরিসংখ্যান ব্যুরো জানিয়েছে ইসরায়েলের জনসংখ্যার ৭৪.৫ ভাগ হচ্ছে ইহুদি ধর্মাবলম্বী। আবার ৪৩ ভাগ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ ইসরায়েলে আগত।

তবে ইসরায়েলে মোট জনসংখ্যার ২০.৯ ভাগ হচ্ছে আরব, যাদের সংখ্যা ১.৮৪৯ মিলিয়ন। আরব ছাড়া খৃস্টান বা অন্যান্য উপজাতির লোকসংখ্যা হচ্ছে ৪.৬ ভাগ বা ৪ লাখ ৪ হাজার।

গত এক বছরে ইসরায়েরে জন্ম নিয়েছে ১ লাখ ৭৭ হাজার শিশু। একই সময়ে মারা গেছে ৪১ হাজার ইসরায়েলি, অভিবাসী এসেছে ২৮ হাজার। জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার ১.৯ ভাগ।

১৯৪৮ সালে ইসরায়েলের জনসংখ্যা ছিল ৮ লাখ ৬ হাজার। যা বর্তমান জনসংখ্যার এক দশমাংশেরও কম। বিশ্বে এখন ইহুদি ধর্মাবলম্বীর সংখ্যা সাড়ে ১৪ মিলিয়নের বেশি যাদের ৪৫ ভাগ ইসরায়েলে বাস করছে। তিনটি শহর নিয়ে ইসরায়েলের গোড়া পত্তন হলেও তখন ইহুদিদের সংখ্যা ছিল ১ লাখ।

১২ দশকে এখন ইসরায়েলে শহরের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৫টি। ইসরায়েলী নারীরা গড়ে ৩.১১টি সন্তানের জন্ম দেন। পশ্চিমে এ জন্মহার সবচেয়ে বেশি। ওইসিডি দেশগুলোতে এ হার ১.৭ ও দ্বিতীয় সর্বোচ্চ জন্মহার মেক্সিকোতে ২.২ ভাগ।

ইহুদি নারীদের গড় সন্তান সংখ্যা ২০১৬ সালে ছিল ৩.০৬ এবং ১৯৯৬ সালে এ হার ছিল ২.৫৯ ভাগ। এর বিপরীতে আরব নারীদের গড় সন্তান ছিল ৩.১১ যা ১৯৯৬ সালে ৪.৩৫ ভাগ ক্রমশ হ্রাস পেতে থাকে।

অথচ ১৯৮০ সালে আরব নারীদের গড় সন্তান সংখ্যা ছিল ৬ জন। ১৯৪৯ সালে ইসরায়েলে নারীদের গড় আয়ু ছিল ৬৭.৬ বছর, পুরুষদের ৬৪.৯ এবং ২০১৬ সালে এ হার নারীদের ক্ষেত্রে ৮৪.২ ও পুরুষদের ক্ষেত্রে ৮০.৬ ভাগে দাঁড়ালেও গত বছর তা কিছুটা হ্রাস পেয়েছে।

Bootstrap Image Preview