Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২০ শনিবার, অক্টোবার ২০১৮ | ৫ কার্তিক ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

‘প্রত্যেক রাতে ওর বন্ধুরা এসে আমার শরীর নিয়ে খেলা করত’

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৮, ০৮:২৯ PM
আপডেট: ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০১৮, ০৮:২৯ PM

bdmorning Image Preview


বিডিমর্নিং ডেস্ক-

বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে যুবতীকে বাড়ি থেকে লুকিয়ে নিয়ে আসে এক ব্যাক্তি৷ এরপর বন্ধুদের দিয়ে প্রতিরাতে যুবতীর ধর্ষণ করাতে থাকে সে৷ হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে এক যুবতী এমনই অভিযোগ দায়ের করেছে৷ যুবতীর অভিযোগের ভিত্তিতে দুই মহিলাসহ মোট পাঁচ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে৷

ভারতের পাঞ্চাবের খরড় এলাকার এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ অভিযুক্তদের কল ডিটেল্স বের করে জানিয়েছে, যুবতী সুস্থ হওয়ার পর তার বলা ঠিকানায় তল্লাশি চালিয়ে অভিযুক্তদের গ্রেফতার করা হবে৷

তদন্তকারী অফিসার নায়াব সিং জানিয়েছেন, হাসপাতালে নির্যাতিতা যুবতী তার আমাকে জানিয়েছে তার বাবা একজন পুজারি৷ তাদের বাড়িতে দুবালীর বাসিন্দা রবীন্দ্র কৌর মাঝেমাঝে আসত এবং সেও তাদের বাড়ি যেত৷ একমাস আগে রবীন্দ্র ওই যুবতীর সঙ্গে মাঙ্গি নামের এক যুবকের দেখা করায় ও তাদের বন্ধুত্ব করিয়ে দেয়৷ এরপর সে বলে তাদের বিয়ে দিয়ে দেবে৷ যুবতী রবীন্দ্র কথার জালে ফেঁসে যায়৷ গত ১৯ জুন রবীন্দ্র কৌর যুবতীকে ফোনে বিয়ের জন্য বাড়ি থেকে পালিয়ে আসতে বলে ও বাড়ি থেকে সমস্ত টাকা পয়সা চুরি করে নিয়ে যেতে বলে৷ সে জানায় তারা গ্রামের বাসস্টপে অপেক্ষা করছে৷

নির্যাতিতা জানায় সে বাড়িতে থেকে প্রায় ২৫ হাজার টাকা ও কিছু সোনার গয়না নিয়ে যায়৷ বাসস্টপে গাড়ি করে আসে৷ গাড়িতে রবীন্দ্র ও এক অজ্ঞাত পরিচয়ের যুবক আগে থেকেই বসে ছিল৷ সেও তাদের সঙ্গে বসে চলে যায়৷ অভিযুক্ত মোহালি এসে বেশ কিছু হোটেলে ঘর ভাড়া নেওয়ার চেষ্টা করে কিন্তু সন্দেহজনক মনে হওয়ার কেউ তাদের ঘর ভাড়া দেয়নি৷ এরপর তারা গুরুদ্বারে রাত কাটিয়ে পরের দিন সকালে যুবতীকে হিমাচল প্রদেশের কালা অম্ব গ্রামে নিয়ে আসে৷ সেখানে অশোক নামের এক ব্যাক্তি দোকানের উপর একটি ঘরের ব্যবস্থা করে দেয়৷ সেখানেই তারা থাকতে শুরু করে৷

যুবতীর অভিযোগ প্রথম তিন রাত মাঙ্গি তাকে ধর্ষণ করে৷ যুবতী প্রতিবাদ করলে এক অজ্ঞাত পরিচয়ের মহিলা তাকে আটকে রাখে৷ তাকে মারধর করা হয়৷ যুবতীর কাছ থেকে সমস্ত টাকা ও গয়না ছিনিয়ে নেওয়া হয়৷ এরপর মাঙ্গী, আশোক ও অজ্ঞাত পরিচয়ের যুবক তাকে ধর্ষণ করতে থাকে৷ গত দুই জুলাই তারে ঘরে অমন নামের এক যুবক আসে৷ যুবতী তাকে সমস্ত ঘটনা খুলে বলে৷

পরে যুবতী পুলিশকে জানায় এরপর সে অমনের সাহায্যে একদিন সেখান থেকে পালিয়ে আসে৷ অমন যুবতীকে তার গ্রামের বাইরে ছেড়ে চলে আসে৷ কোনভাবে সে বাড়ি পৌঁছলেে তার বাডির লোকেরা সমস্ত ঘটনা লুকোতে শুরু করে৷ কিন্তু যুবতীর শারীরিক অবস্থা খারাপ হলে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয় এবং সমস্ত ঘটনা প্রকাশ্যে আসে৷ পুলিশ যুবতীর মেডিকেল টেস্টের ভিত্তিতে পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে৷

পুলিশ আধিকারিক জানিয়েছে, অভিযুক্তদের কল ডিটেল্স চেক করে তাদের ধরার চেষ্টা করা হচ্ছে৷ অভিযুক্তরা সকলেই পলাতক৷ পুলিশ যুবতীর সুস্থ হওয়ার অপেক্ষা করছে৷ হাসপাতাল থেকে ছুটি হলে যুবতীর কথা মতো সমস্ত জায়গায় তল্লাশি চালিয়ে অভিযুক্তদের গ্রেফতার করা হবে৷

Bootstrap Image Preview