Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২৪ সোমবার, সেপ্টেম্বার ২০১৮ | ৯ আশ্বিন ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

গাজীপুর এবং খুলনা সিটি নির্বাচনের ৭দিন আগে সেনা মোতায়ন চায় বিএনপি

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৭ এপ্রিল ২০১৮, ০২:০৬ PM আপডেট: ১৭ এপ্রিল ২০১৮, ০৩:৩৬ PM

bdmorning Image Preview


খায়রুল বাশার।।

আসন্ন গাজীপুর ও খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রধান নির্বাচনে কমিশনারের সাথে বৈঠক করেছেন বিএনপি ৬ সদস্যদের একটি প্রতিনিধিদল। এ সময় তারা নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ এবং সকল দল ও প্রার্থীদের ক্ষেত্রে সমান সুযোগ নিশ্চিত করণের দাবি জানিয়ে প্রধান নির্বাচনে কমিশনারের কাছে একটি সুনির্দিষ্ট প্রস্তাবনা পেশ করেছেন ৬ সদস্যদের একটি প্রতিনিধিদলটি।

আজ মঙ্গলবার সকাল ১১টায় রাজধানীর আগারগাওয়ে নির্বাচন কমিশন ভবনে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন- ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন আহমেদ খোকন, আমীর খসরু চৌধুরী, খন্দকার মোশারফ হোসেন সহ প্রমুখ।

বৈঠক শেষে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, আমরা নির্বাচন কমিশনে এসেছি মূলত গাজীপুর এবং খুলনা সিটি নির্বাচনকে সামনে রেখে। অতীতে আমরা দেখেছি ভোট কেন্দ্রে ভোট ডাকাতি ও ছিনতাই হয়। তাই অতীতে যা ঘটেছে তা আর পুরনাবৃত্তি না হক সেটা আমরা চাই। আর নির্বাচন যাতে সুষ্ঠু হয় সেই নিশ্চয়তা আমরা কমিশনারের কাছে চেয়েছি।

এছাড়া আসন্ন গাজীপুর এবং খুলনা নির্বাচনের ৭দিন আগে সেনা মোতায়নের দাবি জানিয়েছি আমরা।

এ সময় তিনি আরও বলেন, ভোটের প্রতি মানুষের যে ভয় এবং অনাস্থা জেগেছে। সেই ভয় এবং অনাস্থা মানুষের মন থেকে দূর করতে কাজ করতে হবে নির্বাচন কমিশনকেই। এছাড়া প্রশাসনের কিছু কর্মকর্তা আছেন যাদের মধ্যে অনেকে চিহ্নিত দলবাজ, তাদেরকে প্রত্যাহার করতে হবে।

খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ইভিএমের ক্ষেত্রে নির্বাচন কমিশন বলেছেন তারা পরীক্ষামূলক ভাবে ইভিএম ব্যবহার করবে। কিন্তু অতীতে আমরা নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহারে আপত্তি জানিয়ে এসেছি।ফলে বর্তমানে গাজীপুর এবং খুলনা নির্বাচনে ইবিএম ব্যবহারে যে সিদ্ধান্ত তারা নিয়েছে সেটাতেও আমরা আপত্তি প্রকাশ করছি।

এছাড়া মিডিয়া যেন স্বাধীনভাবে ভোট কেন্দ্রে প্রবেশ করতে পারে সে ব্যাপারে আমরা নির্বাচন কমিশনারকে বলেছি এবং এ বিষয়ে  নির্বাচন কমিশনার আমাদের নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, যেহেতু সিটি কর্পোরেশন দলীয় মার্কা এবং জাতীয় মার্কায়। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী তার নির্বাচনের প্রচারণা রাষ্ট্রীয় খরচে চালাছেন এটা নির্বাচনে আচরণবিধি লংঘন করে। তাই নৌকা এভাবে ভোট চাইতে পারবে না।

এ সময় খালেদা জিয়ার মুক্তি না হলে নির্বাচন যাবে না বিএনপি বলে জানান স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান।

   
Bootstrap Image Preview