Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২১ রবিবার, অক্টোবার ২০১৮ | ৫ কার্তিক ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

প্রধানমন্ত্রীর অনুদান পেলেন কাজী হায়াৎ ও খালেদা আক্তার কল্পনা

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১ ফেব্রুয়ারী ২০১৮, ১২:৪৬ PM
আপডেট: ১১ ফেব্রুয়ারী ২০১৮, ১২:৪৬ PM

bdmorning Image Preview


বিডিমর্নিং বিনোদন ডেস্ক-

বাংলাদেশি চলচ্চিত্রের গুণী নির্মাতা কাজী হায়াৎ ও অভিনেত্রী খালেদা আক্তার কল্পনাকে ১০ লাখ টাকার অনুদান দিয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গত শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) গণভবনে তাদের হাতে অনুদানের অর্থ তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী।

এ প্রসঙ্গে কাজী হায়াৎ বলেন, ‘আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আর্থিক সাহায্য চেয়েছিলাম। আমার পাশে দাঁড়িয়েছেন। তিনি আমাদের আরেক সহযোদ্ধা খালেদা আক্তার কল্পনাকেও সাহায্য করেছেন। প্রধানমন্ত্রী দলমত-নির্বিশেষে সাহায্য করে থাকেন। তিনি দেশের সত্যিকারের অভিভাবক।’

অন্যদিকে খালেদা আক্তার কল্পনা বলেন, ‘রেটিনায় রক্তপাত আর কর্নিয়ার আলসার থেকে ইনফেকশন হয়ে মারাত্মক আকার ধারণ করেছে আমার। শুধু বাম চোখে দেখতে পাচ্ছি। ঢাকায় চিকিৎসা নেয়ার পর চিকিৎসকের পরামর্শে উন্নত চিকিৎসার জন্য ভারতের চেন্নাই থেকে ছানি অপারেশনও করিয়েছি তিনবার। এরপর চেন্নাইয়ের শঙ্কর নেত্রালয়ে প্রতি চার মাস পর চিকিৎসা করালেও ডায়াবেটিস থাকায় এ চিকিৎসা দীর্ঘস্থায়ী ও ব্যয়বহুল হয়ে পড়েছে। যেটি ব্যয়ভার বহন করতে পারছিলাম না। তাই প্রধানমন্ত্রীর কাছে সাহায্য কামনা করি। তিনি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। তার কাছে অনেক কৃতজ্ঞ।’

প্রসঙ্গত, ১৯৯৩ সালে কাজী হায়াৎ এর হার্টে প্রথম ব্লক ধরা পড়লে রিং পরানো হয়। এরপর ২০০৫ সালে তার ওপেন হার্ট সার্জারি হয়। দীর্ঘদিন ধরে তিনি ভালো ছিলেন। কিন্তু বেশ কিছুদিন আগে তার হার্টে আবার ব্লক ধরা পড়ে। যে কারণে ভালোভাবে চলাফেরা করতে অনেক সমস্যা হচ্ছে তার। বিশ্রামে থাকছেন এবং অভিনয় ও নির্মাণে নিয়মিত হতে পারছেন না।

বর্তমানে নিজের স্থায়ী সম্পত্তি বিক্রির অর্থ ও টুকটাক অভিনয় করে যা পাচ্ছেন তা দিয়েই চলছেন তিনি। এমন পরিস্থিতিতে তার নিজের চিকিৎসা করার মতো সামর্থ্য নেই জানিয়ে কাজী হায়াৎ বলেন, দুঃসময় যাচ্ছে বিধায় প্রধানমন্ত্রীর দ্বারস্থ হতে হয়েছে।

অন্যদিকে বর্ষিয়ান অভিনেত্রী খালেদা আক্তার কল্পনাও দীর্ঘদিন ধরে ডান চোখের সমস্যায় ভুগছেন। এখন তিনি শুধু একচোখে দেখতে পান। তার ডান চোখে গ্লুকোমা,রেটিনায় রক্তপাত আর কর্নিয়ার আলসার থেকে সংক্রমণ হয়ে গুরুতর রূপ নিয়েছে। তিনবার ভারতের চেন্নাইয়ে ছানি অপারেশন করিয়েছেন। তবে এখনো পুরোপুরি সুস্থ হতে পারেননি। উন্নত চিকিৎসার অর্থ যোগাড়ে তিনি ব্যর্থ হওয়ায় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি সাহায্য চেয়ে সাড়া পেলেন।

Bootstrap Image Preview