Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৬ মঙ্গলবার, অক্টোবার ২০১৮ | ১ কার্তিক ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

ভালোবাসার জন্য প্রাণ দিল ইবির ২ শিক্ষার্থী

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০ আগস্ট ২০১৮, ১০:৩৯ AM
আপডেট: ১০ আগস্ট ২০১৮, ১০:৩৯ AM

bdmorning Image Preview


ইবি প্রতিনিধিঃ

ভালোবাসার টানে আত্মহত্যা করেছে কুষ্টিয়ার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থী। এরা হলেন- কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগের ২০১১-১২ শিক্ষা বর্ষের ছাত্র রোকনুজ্জামান এবং মুনতা হেনা।

বৃহস্পতিবার (০৯ আগস্ট) রাত ৮টার দিকে কুষ্টিয়ার সদর উপজেলার মতি মিয়া রেলগেট এলাকায় পোড়াদহ থেকে গোয়ালনন্দগামী ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করে রোকনুজ্জামান।

রোকনুজ্জামান বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগের ২০১১-১২ শিক্ষা বর্ষের ছাত্র এবং তার বাড়ী চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা এলাকায়।

জানা যায়, রোকনুজ্জামান কুষ্টিয়ার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের আল-হাদিস বিভাগের চেয়ারম্যান ড.আশরাফুল আলমের মেয়ে তার সহপাঠি মুনতা হেনার সাথে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে।

পারিবারিকভাবে সেটা মেনে না নেওয়ায় হেনা গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ঝিনাইদহ শহরের ঝিনুক টাওয়ারের ৫ম তলায় তার নিজ শয়ন কক্ষে ফ্যানের সাথে ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যা করে। হেনার মৃত্যুর সংবাদ শুনে রাত ৮টার দিকে রোকনুজ্জামান ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে আত্ম্যহতা করে।

পোড়াদহ জিআরপি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল আজিজ জানান, কুষ্টিয়ার সদর উপজেলার মতি মিয়া রেলগেট এলাকায় পোড়াদহ থেকে গোয়ালনন্দগামী ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে এক যুবক আত্মহত্যা করেছে। তার বাড়ী চুয়াডাঙ্গায় এবং সে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যাংকিং বিভাগের শেষ বর্ষের ছাত্র।

উক্ত ঘটনা সম্পর্কে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র উপদেষ্টা (বায়োটেকনোলজি এন্ড ইন্জিনিয়ার বিভাগ) প্রফেসর ড. রেজওয়ানুল হক স্যার জানান, এই অপ্রত্যাশিত ঘটনার জন্য আমি খুবই মর্মাহত। প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে, প্রেমঘটিত কারণেই এই আত্নহত্যা, পরবর্তীতে তদন্ত সাপেক্ষে আসল কারণ জানা যাবে।

তিনি আরো জানান, রোকনুজ্জামানের মরদেহ তার স্বজনদের মাধ্যমে ইবির এম্বুল্যান্স যোগে গ্রামের বাড়ি চুয়াডাঙ্গাতে পাঠিয়েছি এবং হেনা এর মরদেহ একই ভাবে তার গ্রামের বাড়ি সাতক্ষিরায় পাঠানো হয়েছে। তিনি বলেন, দু জনই ডিপার্টমেন্টের ভালো শিক্ষার্থী ছিলো, তাদের দু জনের ভালো বন্ধুত্ব ছিলো।

Bootstrap Image Preview