Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২২ বৃহস্পতিবার, নভেম্বার ২০১৮ | ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

ঢাকায় বসানো হচ্ছে ৮ লাখ স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটার

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৪ আগস্ট ২০১৮, ০৩:৩১ PM
আপডেট: ১৪ আগস্ট ২০১৮, ০৩:৩১ PM

bdmorning Image Preview


বিডিমর্নিং ডেস্ক-

পোস্ট পেইড মিটারিং সিস্টেমে কারিগরি ও অকারিগরি সিস্টেম লস এবং বিদ্যুৎ বিল বকেয়া থাকার ঝামেলা রোধে এবার ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় আট লাখ ৫০ হাজার স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটার স্থাপন করা হচ্ছে। আজ মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটিতে (একনেক)এ বিষয়ে প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছে সরকার।

এই প্রকল্পে মোট ব্যয় হবে ৬৫৭ কোটি ৯৫ লাখ টাকা। এর মধ্যে সরকারি অর্থায়নে হবে ৬০৭ কোটি ৪১ লাখ টাকা। সংস্থাটির নিজস্ব অর্থায়নে ব্যয় হবে ৫০ কোটি ৫৪ লাখ টাকা।

রাজধানীর শেরে বাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে একনেক চেয়ারপারসন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় এ প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়। সভা শেষে প্রকল্পগুলো নিয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনা সচিব জিয়াউল ইসলাম, সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য ড. শামসুল আলম প্রমুখ।

পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, ডিপিডিসির আওতাধীন এলাকায় আট লাখ ৫০ হাজার স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটার স্থাপন প্রকল্পটি বাস্তবায়নে খরচ হবে ৬৫৭ কোটি ৯৫ লাখ টাকা। এর মধ্যে সরকারি তহবিল থেকে ৬০৭ কোটি ৪১ লাখ টাকা এবং বাস্তবায়নকারী সংস্থার নিজস্ব অর্থায়ন থেকে ৫০ কোটি ৫৪ লাখ টাকা খরচ হবে।

মন্ত্রী বলেন, আমাদের লক্ষ্য ছিল ২০২১ সালের মধ্যে বিদ্যুতের উৎপাদন ২০ হাজার মেগাওয়াটে উন্নীত করা। চলতি বছরের মাঝামাঝিতে তা ১৯ হাজার ২০০ মেগাওয়াট ছাড়িয়েছে। চলতি বছর শেষে ২০ হাজার মেগাওয়াটের উপরে বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে সক্ষম হবো।

প্রকল্পটির মাধমে ঢাকা জেলার রমনা, জিগাতলা, ধানমন্ডি, আদাবর, পরিবাগ, কাকরাইল, বনশ্রী, মগবাজার, শ্যামলী, কামারাঙ্গীরচর, বাংলাবাজার, নারিন্দা, পোস্তগোলা ও ডেমরা এবং নারায়ণগঞ্জ জেলার ফতুল্লা, শীতলক্ষ্যা ও সিদ্ধিরগঞ্জ উপজেলায় প্রি-পেমেন্ট মিটার স্থাপন করা হবে। ফলে বর্তমান পোস্ট পেইড মিটারিং সিস্টেমে প্রচুর কারিগরি ও অকারিগরি সিস্টেম লস হতো এবং বিদ্যুৎ বিল বকেয়া থাকতো। এখন সেটি আর থাকবে না।

Bootstrap Image Preview