Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২০ মঙ্গলবার, নভেম্বার ২০১৮ | ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

যুবলীগ নেতার অবৈধ মেলা: চলে জুয়ার আসর ও মাদক বিক্রি

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৩ জানুয়ারী ২০১৮, ১০:০৪ PM
আপডেট: ১৩ জানুয়ারী ২০১৮, ১০:০৬ PM

bdmorning Image Preview


বিডিমর্নিং ডেস্ক-

সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইলের তাজ জুট মিল এলাকায় অবৈধভাবে ১০ দিনব্যাপী মেলার আয়োজন করা হয়েছে। মেলায় রাতে জুয়ার আসর ও মাদক বিক্রির অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্থানীয় যুবলীগ নেতা নজরুল ইসলাম প্রশাসনের অনুমতি ছাড়াই মেলার আয়োজন করেছেন। নজরুল ইসলামও মেলার অনুমতি নেই বলে অকপটে স্বীকার করে জানান, এখানে ছোট ভাইয়েরা শিশু মেলার আয়োজন করেছে।

এ ব্যাপারে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুস সাত্তার জানান, মেলা বসানোর কোন অনুমতি নেই। খবর পেয়ে পুলিশ পাঠিয়ে মেলা বন্ধ করে দিয়েছে। আবারও বসলে মেলা ভেঙ্গে দেয়া হবে।

তবে এলাকাবাসী অভিযোগ করেন, পুলিশ মেলা বন্ধ করে দিলেও আজ শনিবারও বলপূর্বক এ মেলা চালিয়েছে আয়োজকরা। অবৈধ এ মেলার কারণে ব্যাহত হচ্ছে আগামী মাসের  (ফেব্রুয়ারি) ১ তারিখ থেকে অনুষ্ঠিত এসএসসি ও দাখিল পরীক্ষার্থীদের লেখা-পড়া। এতে করে চিন্তিত অভিভাকরা।

এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, বুধবার থেকে শীতকালীন আনন্দ মেলার নামে শিমরাইল তাজ জুট মিল এলাকায় ১০ দিনব্যাপী মেলার আয়োজন করা হয়েছে। মেলায় রাতে জুয়ার আসর ও মাদক বিক্রির অভিযোগ উঠেছে। মেলাকে কেন্দ্র করে ইতোমধ্যে এলাকায় মাদকসেবী ও মাদক বিক্রেতাসহ বহিরাগতদের আনাগোনা বেড়েছে। স্থানীয়রা মেলায় অনাকাঙ্খিত ঘটনার আশঙ্কা করছেন।

মেলাটি সিদ্ধিরগঞ্জ ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম ও তার সহযোগীরা শীতকালীন আনন্দ মেলা’র নামে অবৈধ মেলাটি আয়োজন করেন। মেলায় বিভিন্ন দোকানের শতাধিক স্টল বসানো হয়েছে এবং গেট সাঁটানো হয়েছে। রাতের বেলা আলোকসজ্জা করা হয়েছে। দোকানিরা মেলায় তাদের পণ্যের পসরা সাজিয়ে বসেছেন। মেলায় নাগরদোলা, নৌকাসহ বিভিন্ন রাইডস বসানো হয়েছে।

স্থানীয় বাসিন্দারা অভিযোগ করেন, মেলায় রাতে বসে জুয়া ও মাদকের আসর। মেলাকে কেন্দ্র করে মাদকসেবী ও মাদক বিক্রেতাদের আনাগোনা বেড়ে গেছে।

মেলা আয়োজনের বিষয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি নজরুল ইসলাম মুঠোফোনে জানান, বুধবার থেকে ১০ দিনব্যাপী এই মেলা বসানো হয়েছে। এলাকার ছোট ভাইয়েরা শিশু মেলার আয়োজন করেছে। আমি শুধু কোম্পানীর কাছ থেকে মেলার জায়গার অনুমতি নিয়ে দিয়েছে। তবে তিনি মেলার প্রশাসনিক কোন অনুমতি নেই বলে অকপটে স্বীকার করেন। অবশ্য এলাকাবাসী দাবি, দ্রুত এ অবৈধ মেলাটি বন্ধ করে দেয়া হোক। মেলাটি চালু থাকলে এলাকায় যুব সমাজ ও কোমলমতি শিশুরা ক্ষতির সম্মুখীন হতে পারে। নজরুল ইসলাম প্রভাবশালী হওয়ায় মেলা আয়োজনের কেউ বিরোধিতা করতে পারেনি।

Bootstrap Image Preview