Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৬ মঙ্গলবার, অক্টোবার ২০১৮ | ১ কার্তিক ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

৬৮ কেজি গাঁজা-ফেনসিডিলসহ আটক মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের পরিদশর্ক

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৫ নভেম্বর ২০১৭, ১০:১৬ PM
আপডেট: ২৫ নভেম্বর ২০১৭, ১০:১৬ PM

bdmorning Image Preview


রাজীবুল হাসান,ভৈরব প্রতিনিধি :

বিপুল পরিমাণ মাদকসহ ভৈরব মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের পরিদর্শক কামনা শীর্ষ সরকারকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। শনিবার রাত সাড়ে ৭ টায় তার মাদক নিয়ন্ত্রক কার্যালয় থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে । এসময় তার অফিস থেকে ৬৮ কেজি গাঁজা ও ২৪ বোতল ভারতীয় ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়।

এসব মাদক অবৈধ মজুত ছিল তার অফিসে এবং মজুতকৃত মাদকের কোন জব্দ তালিকা ছিলনা। তাকে গ্রেফতারের নেপথ্যে ছিল তার উর্ধতন অফিসার কিশোরগঞ্জ জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অফিসের সহকারী পরিচালক মোঃ আনোয়ার হোসেন। এই ঘটনায় মাদক আইনে আজ শনিবার রাতেই সহকারী পরিচালক বাদী হয়ে পরিদর্শক কামনাশীষ সরকারকে আসামী করে ভৈরব থানায় একটি মামলা দায়ের করে।

ঘটনার বিবরনে জানা গেছে, পরিদর্শক কামনাশীষের বিরুদ্ধে বহুদিন যাবত অভিযোগ ছিল সে ভৈরবে মাদক ব্যবসায়ীদের সাথে আতাঁত করে গোপনে তাদেরকে ব্যবসার সুযোগ দিয়ে অবৈধ ও অনৈতিক কাজ করছে। এরই প্রেক্ষিতে কিশোরগন্জের সহকারী পরিচালক আনোয়ার হোসেন শনিবার অফিসের কর্মচারী সূত্রে খবর পায় তার অফিসে বিপুল পরিমান অবৈধ ও সিজারলিস্টবিহীন মাদক গোপনে বিক্রি করা হবে আজ। এই খবর পেয়ে সহকারী পরিচালক শনিবার বিকেলে তার ভৈরবস্হ অফিসে ছুটে আসেন। এসময় তিনি অফিসে প্রবেশ করে সিজারলিস্ট খাতা তলব করেন। কিন্ত পরিদর্শক কামনাশীষ সরকার খাতা না দেখিয়ে সহকারী পরিচালকের সাথে তর্কে লিপ্ত হয়।

পরে অফিস কর্মচারীদের সহায়তায় অফিসের স্টোর রুম থেকে উল্লেখিত মাদক উদ্ধার করা হয়। ঘটনার সময় পরিদর্শকের সাথে সহকারী পরিচালকের হাতাহাতিও হয়েছে বলে অফিস কর্মচারীরা জানায়। এক পর্যায়ে সহকারী পরিচালক ভৈরব থানায় খবর দিয়ে অফিসে পুলিশ এনে তাকে গ্রেফতার করে। পরে রাত সাড়ে ৭ টায় পুলিশ তাকে হ্যান্ডকাপ পরিয়ে থানায় নিয়ে যায়।

সহকারী পরিচালক মোঃ আনোয়ার হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান আটককৃত মাদকের কোন সিজারলিস্ট পাওয়া যায়নি অফিসে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আজ শনিবার তার অফিসে এসে হাতেনাতে তাকে মাদকসহ আটক করি।পরে তাকে পুলিশে সোপর্দ করে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছি বলে তিনি জানান।

ভৈরব থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মোখলছুর রহমান জানান, ঘটনার ব্যাপারে আমি কিছুই জানিনা তবে সহকারী পরিচালক পুলিশের সহায়তা চাইলে আমি পুলিশ দিয়ে সহযোগীতা করেছি।

Bootstrap Image Preview