Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৬ মঙ্গলবার, অক্টোবার ২০১৮ | ১ কার্তিক ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

নরসিংদীতে হত্যা মামলার বিচার নিয়ে শংকায় স্বজনরা

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৫ মে ২০১৮, ১০:৫৬ PM
আপডেট: ১৫ মে ২০১৮, ১০:৫৬ PM

bdmorning Image Preview


সাইফুল ইসলাম, নরসিংদী প্রতিনিধি: নরসিংদীর সদর উপজেলার শীলমান্দি ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসান সৈকতকে (৩৩) পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে তার সঙ্গীয় বন্ধুরা। আর এই হত্যা মামলায় বিচার নিয়ে শংকায় স্বজনরা। গত ২৬ শে মার্চ সৈকতের বন্ধু সানি (৩৮), সাহেদ (৩৫), ইমরান (৩৬), সুজন (৩০), আবদুল্লাহ আল বাকী (৩৪), বাপ্পী (৩২), সন্ত্রাসী রুবেল (৩০), ফারুক (৩১), সোবহান (৩২) এরা মিলে পরিকল্পিতভাবে নরসিংদী শহরের প্রাণকেন্দ্র পৌরসভার সামনে সিটি সেন্টার নামক একটি মাল্টিস্টোরিড বিল্ডিংয়ের ১৬ তলা ছাদে দড়ি দিয়ে উল্টো করে লটকিয়ে নির্যাতন করে সৈকতকে হত্যা করে। ঘটনাটি তদন্তপূর্বক নিশ্চিত করেন রুপম কুমার সাহা ও সৈকতের বোন সাহিদা। নিহতের বোন সাহিদা গনমাধ্যমকর্মীকে জানান, পুলিশের গাফিলতির কারণে মূলত আসামিরা পালিয়ে যাওয়ার সুযোগ পেয়েছে। অপরদিকে চাঞ্চল্যকর যুবলীগ নেতার খুনে তার পরিবারে নেমে আসে শোকের ছায়া এবং নরসিংদীর বিভিন্ন রাস্তা ঘাটে এ নিয়ে চলছে প্রতিনিয়ত মানববন্ধন। পুলিশের গাফিলতির কারণে আসামীরা বিভিন্ন জেলায় গা ঢাকা দিয়ে সম্পূর্ণ আইনের ধরা-ছোঁয়ার বাইরে চলে যাচ্ছে। এভাবেই নরসিংদী প্রতিনিয়ত খুন করে প্রকৃত আসামীরা পালিয়ে বেড়াচ্ছে এবং রাজনীতি পৃষ্ঠপোষকতার কারণে তদন্ত করতে অনেক বিলম্ব হচ্ছে। নরসিংদীতে গত কয়েক বছরে প্রায় ১০০ থেকে ১৫০ জন লোক চাঞ্চল্যকর ভাবে হত্যার শিকার হয়েছে। কোনোটি পেরিয়েছে একবছর, কোনোটি প্রায় তিন বছর। কিন্তু এখনো এসব হত্যার তদন্ত কাজ শেষ করতে পারেনি পুলিশ। কবে নাগাদ শেষ হবে তাও জানা নেই কারো। তদন্ত কাজের এ ধীরগতির কারণে ন্যায় বিচার পাওয়া নিয়ে শংকা প্রকাশ করেছেন নিহতের স্বজনরা। বর্তমানে চাঞ্চল্যকর সৈকত হত্যার দেড় মাস পেরিয়ে গেলেও তার পরিবার পাচ্ছে না খুনের রহস্য। দেড় মাস সন্তান হত্যার বিচার চেয়ে আহাজারি করছেন সৈকতের মা। বিচার তো দূরের কথা পুলিশের তদন্তে মূল ঘটনার সবকিছু বেরিয়ে আসলেও মাত্র একজনকে আটক করতে পেরেছে পুলিশ। নরসিংদীতে এখনো চাঞ্চল্যকর অনেক হত্যা মামলার আসামিকে গ্রেফতার করতে পারছে না পুলিশ। এভাবে চলতে থাকার ফলে খুনীরা দেশের বাইরেসহ বিভিন্ন জেলায় পালিয়ে যাচ্ছে। অপরদিকে নরসিংদী থেকে অন্যান্য জেলার যাতায়ত ব্যবস্থা সুবিধা থাকায় এ জেলা থেকে খুন করে সহজেই পালিয়ে যাচ্ছে খুনীরা। এদিকে জেলা মানবাধিকার কর্মী বলেন বিগত সময় ধরে নরসিংদী জেলায় প্রায়ই খুনের সংখ্যা বেড়ে যাচ্ছে। তিনি মনে করেন, রাজনৈতিক প্রতিহিংসামূলক কারণে প্রায়ই বাড়ছে এসব চাঞ্চল্যকর খুনের সংখ্যা। তাই এখনই রাজননৈতিক কর্তৃপক্ষের এসব বিষয়ে দৃষি দেওয়া উচিত। নিহতদের স্বজনদের সান্তনার জন্য হলেও চাঞ্চল্যকর এসব হত্যা মামলার তদন্ত কাজ দ্রুত শেষ করার তাগিদ বিশিষ্টজনদের।
Bootstrap Image Preview