Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২২ সোমবার, অক্টোবার ২০১৮ | ৭ কার্তিক ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

পর্ণো ভিডিও দেখতে মাসে ৩ কোটি টাকা খরচ করে বাংলাদেশি কিশোররা

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৩ এপ্রিল ২০১৮, ০৯:০৮ PM
আপডেট: ২৩ এপ্রিল ২০১৮, ০৯:০৮ PM

bdmorning Image Preview


ইসতিয়াক ইসতি।।

প্রতিদিন বিশ্বজুড়ে নতুন করে ইন্টারনেট ব্যবহারকারী হিসেবে আত্মপ্রকাশ গঠছে এক লক্ষ ৭৫ হাজার শিশু। এর অর্থ দাঁড়াচ্ছে প্রতি ৩০ সেকেন্ডে ১৮ বছরের নিচে একজন শিশু প্রথমবারের মতো ইন্টারনেট জগতে প্রবেশ করছে।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে জাতিসংঘের শিশু বিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফের প্রকাশিত একটি জরিপ থেকে এমন তথ্যই জানা গেছে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, ইন্টানেট ব্যবহারকারী কিশোর-কিশোরীদের বড় অংশই প্রতিনিয়তই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের মাধ্যমে নানা ভীত অপরাধ ও অসামাজিক কার্যক্রমের সাথে যুক্ত হয়ে পড়ছে। বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে দিনে দিনে বিষয়টি আরও ভয়ংকর রুপ ধারণ করছে। আর এখনি যদি ইন্টানেট ব্যবহারের ক্ষেত্রে এখনি যদি সঠিক পদক্ষেপ গ্রহণ করা না যায় তাহলে বড় বিপর্যয়ের সম্মুখীন হতে হবে জাতিকে।

তারা আরও বলছেন, যে শিক্ষা ও জ্ঞানের বৃদ্ধির যে লক্ষে দেশের মানুষের যে ইন্টারনেট সেবা পৌঁছিয়ে দেওয়া হচ্ছে তা ব্যবহার করেই বিপদে যাচ্ছে তরুণ সমাজ।

একটি বেসরকারি জরিপ বলছে, দেশের ৫টি মোবাইল ফোন অপারেটর সিস্টেমের মাধ্যমে প্রতিমাসে ৩ কোটি টাকার পর্ণ ভিডিও ডাউনলোড করা হচ্ছে। আর এই ডাউনলোড করা মোবাইলগুলো ব্যবহারকারীর সবাই ১৮ বছরের নিচের।

গবেষণা প্রতিষ্ঠান লির্নে এশিয়ার ২০১৭ সালের প্রকাশিত এক গবেষণাতে উঠে এসেছে যে, বাংলাদেশের নতুন প্রজন্ম গড়ে ৭৭ শতাংশ হারে খেলাধুলা মাঠ হারাচ্ছে। যে মাঠগুলো খেলার জন্য পাওয়া যাচ্ছে তাও পর্যাপ্ত নয় শিশু কিশোরদের জন্য। ফলে খেলার মাঠের অভাবে শিশু কিশোররা ঝুঁকে পড়ছে সোশ্যাল মিডিয়ার দিকে। আর নির্দিষ্ট খেলার স্থান না পাওয়ার কারণ হিসাবে তারা জরিপে তুলে ধরে ৫টি কারণ।

১. রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীদের প্রভাবে ৮০ শতাংশ সরকারী খাস জমি বেদখলে চলে যাওয়া

২. প্রতিবছর নির্মাণ কাজের কারণে দখল হচ্ছে তিন হাজার হেক্টর জমি

৩. প্রতি বছরে প্রায় ২৫ লাখ মানুষ বৃদ্ধি পাচ্ছে

৪. নদীগর্ভে বিলীন হচ্ছে এক হাজার হেক্টর জমি

৫. বিগত ৩৭ বছরে শুধু ঘরবাড়ি নির্মাণ দখল হয়েছে প্রায় ৬৫ হাজার একর জমি

দেশের প্রযুক্তি শিল্পের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো স্বল্প মূল্যের সিম ও ইন্টারনেট বিক্রির ফলে তরুণ সমাজ প্রতিনিয়ত আসক্ত হয়ে পড়ছে ইন্টারনেট ব্যবহারে।

২০১৭ সালে স্কুল পড়ুয়া তিন হাজার ১৮ বছর বয়সের নিচে তরুণদের নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের করা এক জরিপে উঠে এসেছে যে, ৩ হাজার তরুণদের মধ্যে ব্যক্তিগত মোবাইল আছে ১ হাজার ৮৬০ জনের। ৪টির বেশি সিম ব্যবহার করচ্ছে ২৭০ জন। তিন সিম ব্যবহার করছে ১হাজার ২০০ শত ৯০জন। ২টি সিম ব্যবহার করছে  ১হাজার ৪শত ৪৪ জন। ৬ ঘন্টার বেশি ইন্টারনেট ব্যবহার করে ৫৫০ জন। ৪ ঘন্টার বেশি ইন্টারনেট ব্যবহার করে ৬০০ জন। ২ ঘন্টার বেশি ইন্টারনেট ব্যবহার করে ৮৫০ জন। ইন্টারনেট ব্যবহার করে প্রেমে জড়িয়ে পড়েছে ১৫০০ জন। আর বিকৃত আলাপে করে ৮৪০জন।

দেশের ১৮ বছরের নিচে তরুণ সমাজের ইন্টারনেট জগতে প্রবেশ করার বিষয়ে বিটিআরসি সিস্টেম অ্যান্ড সার্ভিসেস বিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. এমদাদ উল বারী সাথে কথা বললে তিনি বিডিমর্নিং-কে বলেন, এই অনিয়মগুলোর কথা চিন্তা করেই বর্তমান সরকার সিম রেজিস্ট্রেশনের নিয়ম চালু করেছে। ফলে ১৮ বছরে নিচে কেউ কিন্তু এখন আর সিম ক্রয় করতে পারে না। যার যারা ব্যবহার করছে তারা অন্যদের নামে ব্যবহার করচ্ছে। আর লোকবল কম হওয়াতে এই বিষয়ে আমরা এখনি কোনো কার্যক্রম হাতে নিতে পারছি না।

Bootstrap Image Preview