Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২৬ বুধবার, সেপ্টেম্বার ২০১৮ | ১১ আশ্বিন ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

ছিনতাইকারীদের ধাওয়া দিয়ে নারী পথচারির সোনার ব্যাগ উদ্ধার করলেন বাইকচালক!

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ৩১ মার্চ ২০১৮, ১২:৩৮ PM আপডেট: ৩১ মার্চ ২০১৮, ১২:৪১ PM

bdmorning Image Preview


আরিফ চৌধুরী শুভ।।

বাইক চালকের দুরদর্শিতার কারণে ধরা পড়লো ছিন্তাইকারী চক্রের তিন সদস্য। ঘটনাটি শুক্রবার সকাল ৮:১০ মিনিটে বৌদ্ধ মন্দিরসংলগ্ন খিলগাঁও ফ্লাইওভার রোডে। রিক্সা করে যাওয়া এক মহিলাকে সিএনজিতে করে টার্গেট করে ছিনতাইকারী চক্রটি। ঐ সিএনজির নাম্বার ঢাকা মেট্রো-১৫৫২৮২। ছিনতাইয়ের শিকার পথচারি মহিলা আত্মীয়ের বিয়ের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে রিক্সা করে যাচ্ছিলেন। বৌদ্ধমন্দির সামনে যেতেই ছিনতাইকারীরা তার ব্যাগ টান দিলে মহিলাটি রাস্তায় পড়ে যান এবং চিৎকার করতে থাকেন ছিনতাই ছিনতাই বলে। তখন বাইক চালক ছিনতাইকারীদের ধাওয়া দিয়ে নাটকীয় ভাবে ধরে ফেলেন।

ঘটনার বিস্তারিত দিয়ে পরে ফেবুতে একটি পোস্ট করেন ঐ বাইক চালক। পোস্টটি তুলে ধলা হলো ...

বাইকে করে অফিস যাওয়ার উদ্দেশ্যে বাসাবো বৌদ্ধ মন্দির এর সামনের মোড় পার হয়ে মেইন রাস্তাই উঠলাম। হটাৎ আওয়াজ পাইলাম। বাইকের মিররে দেখলাম এক মহিলা রিকশা থেকে পড়ে গেছে। একটা সিএনজি আমাকে অনেক বাজে ভাবে অভারটেক করলো। মহিলা ছিনতাইকারি ছিনতাইকারি বলে চিৎকার করছে, আর বলছে আমার ব্যাগ আমার ব্যাগ। বুঝতে আর বাকি রইলো না।

আমি বাইক নিয়ে সিএনজিকে চেস করতে থাকি। সিএনজিকে খিলগাঁও ফ্লাইওভার এ উঠার মুখে অভারটেক করি এবং থামতে বলি। কিন্তু সে না থামায়ে চলন্ত অবস্থাতেই আমাকে ধাক্কা দেয় ৫০কিমি স্পিডে এবং ফ্লাইওভার এর রেলিং এর সাথে চেপে ধরে। আল্লাহর অসিম রহমতে আমি চাপ খেয়ে, দেয়ালে ঘসা খেয়ে, বাইক স্কিড করে কোনমতে বেঁচে যাই। আমি কিন্তু থেমে যাইনি।

তারপর আবার ধাওয়া করি ঐ সিএনজিকে। চলন্ত একটা প্রাইভেট কারকে বলি সামনের সিএনজিতে ছিনতাইকারী আছে। একটু হেল্প করেন। উনি আমার কথায় কান দিলেন না। দু:খ পেলাম। মিররে দেখলাম একজন পুলিশ বাইকে করে আসছেন। উনাকে বলার পর উনি আমার সাথে যোগ দিলেন ছিনতাইকারীদের পিছুপিছু।

সিএনজি ততক্ষনে ফ্লাইওভার থেকে বাম দিকে মানে রাজারবাগের দিকে ইউটার্ন নিলো। আমরাও টার্ন নিলাম। মনে হলো পুলিশ দেখে একটু ভয় পেয়ে  গেল তারা। বাঁচার জন্য সিএনজি একটু যেয়ে বাম পাসের ইউটার্ন এর নামার রাস্তাই উলটা দিকে ঢুকায়ে দিল। কিন্তু স্পিড কন্ট্রোল করতে না পারায় উল্টে যায় সিএনজিটি। রাস্তাই মানুষ খুব কম ছিল, তার উপরে ফ্লাইওভার। পুলিশকে ফোন করে ছিনতাইকারীদেরকে ধরিয়ে দেয়া হলো।

মহিলার ব্যাগ ফেরত পাইলেন। ব্যাগে অনেক সোনার গহনা ছিলো। সম্ভবত তিনি বিয়া বাড়িতে যাচ্ছিলেন তার হাজবেন্ড আর বাচ্চার সাথে নিয়ে। ভদ্র মহিলা একজন বাইকারের সাহায্য নিয়ে অলরেডি ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন। তাঁর জিনিসপত্র বুঝে পাইলেন।

ঐ সিএনজি থেকে আরো কিছু গহনা ও মোবাইল পাওয়া যায়। তার আগের খেপ থেকে পেয়েছে হয়তো। রাস্তায় চলার সময় সবাই ব্যাগ, মোবাইল, ল্যাপটপ সাবধানে রাখবেন। আর প্রশাসনকে আরো বেশি তৎপর হওয়ার জন্য বলছি।

Bootstrap Image Preview