Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৫ সোমবার, অক্টোবার ২০১৮ | ৩০ আশ্বিন ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

কন্ট্রোলরুম না পাইলট, কার ভুলে বিমান বিধ্বস্ত?

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২ মার্চ ২০১৮, ১০:২৮ PM
আপডেট: ১২ মার্চ ২০১৮, ১০:২৮ PM

bdmorning Image Preview


বিডিমর্নিং ডেস্ক-

নেপালের ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে (টিআইএ) বিধ্বস্ত ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের ‘S2-AGU’ নামের বিমানটি কন্ট্রোলরুমের ভুলে বিধ্বস্ত হয়েছে বলে দাবি করেছে এয়ারলাইন্সটি।

সোমবার সন্ধ্যায় রাজধানীর বারিধারায় ইউএস-বাংলার অফিসে এক সংবাদ সম্মেলনে এমনটাই দাবি করেন প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা(সিইও) ইমরান আসিফ।

অপরদিকে টিআইএ দাবি করছে পাইলটের ভুলে বিমানটি বিধ্বস্ত হয়েছে।

টিআইএ’র জেনারেল ম্যানেজার রাজকুমার ছেট্রির বরাত দিয়ে নেপালের গণমাধ্যম কাঠমান্ডুপোস্টে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিমানটি বিধ্বস্ত হয়েছে ভুল পথে অবতরণের জন্য।

ছেট্রি বলেন, যখন কন্ট্রোলরুম থেকে পাইলটের কাছে অবতরণের ক্ষেত্রে কোনো সমস্যা আছে কিনা জানতে চাওয়া হয়, তখন তিনি বলেন যে সবকিছু ঠিক আছে। কিন্তু উত্তর দিকের পরিবর্তে উত্তর-পূর্ব দিক দিয়ে অবতরণের চেষ্টা করা হয়।

তিনি বলেন, কন্ট্রোলরুমের পক্ষ থেকে পাইলটের কাছে আবারও জানতে চাওয়া হয় যে সবকিছু ঠিক থাকলে বিমানটিকে অবতরণ করাচ্ছেন না কেন? উত্তরে তিনি বলেন যে সবকিছু ঠিক আছে এবং তিনি অবতরণের প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

কিন্তু অবতরণের জন্য কন্ট্রোলরুমের নির্দেশিত পথে ছিল না বিমানটি। যখন এই ব্যাপারে জানতে চাওয়া হয়, তখন কোনো উত্তর পাওয়া যায়নি। পরে বিমানবন্দরের পাশের একটি ফুটবল মাঠে বিমানটি বিধ্বস্ত হয় বলে জানান টিআইএ’র জেনারেল ম্যানেজার।

এ ব্যাপারে সিইও ইমরান আসিফ বলেন, গত তিন বছরে ইউএস-বাংলা ৩৬ হাজার ফ্লাইট পরিচালনা করেছে কোনো ত্রুটি ছাড়া। এই ফ্লাইটেও কোনো ত্রুটি ছিল না।

নেপালের বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের মহাপরিচালক সঞ্জিব গৌতম জানিয়েছেন, ভুল দিক দিয়ে বিমানবন্দরে নামার চেষ্টা করছিল বিমান ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের বিমান ‘S2-AGU’।

তিনি জানান, ধারণা করা হচ্ছে যান্ত্রিক ত্রুটির কারণেই দুর্ঘটনাটি ঘটেছে।

সঞ্জিব গৌতম কাঠমান্ডু পোস্টকে জানান, বিমানটি যখন রানওয়েতে নামার চেষ্টা করছিল তখন তা নিয়ন্ত্রণের বাইরে ছিল। সঞ্জিব গৌতম বলেন, ‘রানওয়ের দক্ষিণ দিক বিমানটিকে অবতরণের অনুমতি দেওয়া হয়। কিন্তু বিমানটি নামছিল রানওয়ের উত্তর দিক থেকে।’ তিনি আরো বলেন, ‘এই অস্বাভাবিক অবরতরণের কারণ কী তা আমরা এখনো জানি না।’

প্রসঙ্গত, সোমবার নেপালের ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের সময় স্থানীয় সময় দুপুর ২টা ২০ মিনিটে ইউএস-বাংলার একটি বিমান বিধ্বস্ত হয়। বিমানের ৫০ আরোহীর প্রাণহানির খবর নিশ্চিত করেছে নেপালের সেনাসূত্র। ৯ জন নিখোঁজ থাকার কথা জানিয়েছে তারা।

নেপাল টাইমস-এর খবরে বলা হয়েছে, ৭৮ জনকে ধারণে সক্ষম ওই বিমানে চার ক্রু ও ৬৭ যাত্রী মিলে ৭১ জন আরোহী ছিল। বিমানের ৩২ আরোহী বাংলাদেশি এবং ৩৩ জন নেপালি।

ত্রিভুবন বিমানবন্দরের মুখপাত্র প্রেম নাথ ঠাকুরের বরাত দিয়ে কাঠমান্ডু পোস্ট জানিয়েছে, বিমানবন্দরের রানওয়েতে অবতরণের সময় বিমানটির এক পাশে কাত হয়ে আগুন ধরে যায়। এতে পাশের একটি ফুটবল মাঠে গিয়ে বিধ্বস্ত হয় বিমানটি। ত্রিভুবন বিমানবন্দর এবং নেপালের সেনাবাহিনীর উদ্ধারকারী দলের সদস্যরা উদ্ধার অভিযানে অংশ নিয়েছেন।

Bootstrap Image Preview