Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৭ বুধবার, অক্টোবার ২০১৮ | ১ কার্তিক ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

সাভারের স্কুলছাত্রী শিলা আত্মহত্যা, গ্রেফতার ১

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৩ জানুয়ারী ২০১৮, ১০:৩৭ AM
আপডেট: ১৩ জানুয়ারী ২০১৮, ১০:৩৭ AM

bdmorning Image Preview


বিডিমর্নিং ডেস্ক-

সাভারের আশুলিয়ায় স্কুলছাত্রী শিলা আত্মহত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় তিন মাস পর প্রধান আসামি জাফর সাদিককে গ্রেফতার করেছে ঢাকা জেলা উত্তর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

শুক্রবার দিবাগত রাতে পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ থানাধীন দেওলী গ্রামের তার এক আত্মীয়ের বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত জাফর সাদিক আশুলিয়ার শিমুলিয়া এলাকার আব্দুস সাত্তার আলীর ছেলে।

শিলা আত্মহত্যার আগে লিখে যাওয়া চিরকুটে উল্লেখ করে, 'যা করিনি তার জন্য কেন দোষী হতে হবে, তার থেকে মরে যাওয়া ভাল। আমার জন্য আমার মা-বাবার সম্মানহানি হোক সেটা আমি চাই না। আমার মৃত্যুর জন্য জাফর-খোকন দায়ী। ইতি হতভাগী শিলা।'

এ বিষয়ে ঢাকা জেলা উত্তর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ.এফ.এম সায়েদ বলেন, গত ১০ অক্টোবর বৃহস্পতিবার দুপুরে নিজ ঘরে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে শিলা। এ ঘটনায় আশুলিয়া থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়। তবে মৃত্যুর আগে একটি চিরকুট লিখে জানিয়ে যায়, এ আত্মহত্যার জন্যর দায়ী কারা।

শিলা আশুলিয়ার শিমুলিয়া ইউনিয়নের পশ্চিম কলেশ্বরী এলাকার আওলাদ হোসেনের মেয়ে। আত্মহত্যার ঘটনার দুই মাস পর গত ৫ ডিসেম্বর মামলার দায়িত্ব আসে ডিবিতে। পরে আধুনিক তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে পটুয়াখালীতে তার অবস্থান নিশ্চিত করা হয় এবং সেখানে অভিযান চালালে শুক্রবার রাতে জাফর সাদিককে গ্রেফতার করা হয় এবং পরে শনিবার সকালে  সাভার ডিবি কার্যালয়ে আনা হয়। অপর আসামি খোকনকে গ্রেফতার করতে বিভিন্ন স্থানে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। খুব শিগগির তাকেও গ্রেফতার করা হবে। এ বিষয়ে পরবর্তীতে প্রেস ব্রিফিং এর মাধ্যমে গণমাধ্যমকে জানানো হবে বলেও জানান তিনি। নিহত শিলার বাবা আওলাদ হোসেন বলেন, স্কুলে আসা যাওয়ার পথে আমার মেয়েকে বখাটেরা ইভটিজিং করতো। এই অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। তিনি বলেন, শিমুলিয়া এসপি হাই স্কুলে প্রধান শিক্ষক স্যারকে বলা হয়েছিল, কিন্তু কাজ  হয়নি।

নিহত শিলার মা শাহনাজ বেগম বলেন, 'আমার মেয়ের স্বপ্ন ছিল সে একজন পুলিশ অফিসার হবে। কিন্তু ভাগ্যের কি নির্মম পরিহাস সে তা হতে পারলো না। বখাটেদের কারণে সে নিজেকে শেষ করে দিল। মেয়ে চলে গেছে কিন্তু দোষীদের কোনো কিছু হচ্ছে না। বখাটেরা আমার কোল খালি করছে, আর কত মায়ের কোল খালি হলে এরা থামবে? তবে আমার দাবি, তাদের যেন দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করা হয়। যাতে আর কোন বখাটে এরকম কারও জীবন নষ্ট করতে না পারে।''

Bootstrap Image Preview