Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১১ মঙ্গলবার, ডিসেম্বার ২০১৮ | ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

চট্টগ্রামে প্রবাসী পরিবারের ৪ নারীকে ধর্ষণের পর মালামাল লুট

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৯ ডিসেম্বর ২০১৭, ০৬:২১ PM
আপডেট: ১৯ ডিসেম্বর ২০১৭, ০৭:০৯ PM

bdmorning Image Preview


বিডিমর্নিং ডেস্ক-

চট্টগ্রাম মহানগরের নিকটস্থ কর্ণফুলী উপজেলায় প্রবাসী পরিবারের তিন গৃহবধূ ও বেড়াতে আসা এক বোনকে ধর্ষণের পর মালামাল লুট করেছে দুর্বৃত্তরা।

গতকাল সোমবার এ ঘটনায় ৪ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

মামলার বিবরণে জানা যায়, কর্ণফুলী উপজেলার বড়উঠান ইউনিয়ন পরিষদ ভবনের দক্ষিণ পাশে শাহমীরপুর গ্রামে প্রবাসির নতুন বাড়িতে গত মঙ্গলবার রাতে বাঁশ বেয়ে উঠার পর জানালা ও সংযুক্ত গ্রিল কেটে ঘরে প্রবেশ করে চার দুর্বৃত্তরা। তারা প্রায় দুই ঘণ্টা অবস্থান করে বাড়িতে।

এ সময় দুর্বৃত্তরা ভুক্তভোগী নারীদের বৃদ্ধা শাশুড়ি ও ছোট বাচ্চাদের মাথায় ধারালো অস্ত্র ঠেকিয়ে জিম্মি করে তাদের আলাদা কক্ষে নিয়ে ধর্ষণ করা হয়। বাড়িতে বেড়াতে আসা প্রবাসীর এক বোনকেও ধর্ষণ করে দুর্বৃত্তরা। যাওয়ার সময় দুর্বৃত্তরা ১১ ভরি স্বর্ণালংকার, মূল্যবান সামগ্রী ও ৫টি মোবাইল ফোন নিয়ে গেছে। বাড়ির চারপাশ প্রাচীর দ্বারা সুরক্ষিত এবং অনেকটা নিরিবিলি।

কর্ণফুলী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. হাসান ইমাম জানান, গত রবিবার সন্ধ্যায় ভুক্তভোগী প্রবাসী পরিবারের পক্ষ থেকে ধর্ষণ ও মালামাল লুটের অভিযোগে ৩৯৪ ধারা ও নারী শিশু নির্যাতন আইনের ৯(ক) ধারায় দায়েরকৃত মামলায় অজ্ঞাতনামা চারজনকে আসামি করা হয়। ঘটনার ছয়দিন পর সোমবার সকালে চার ভিকটিমকে ফরেনসিক পরীক্ষার জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেলে পাঠানো হয়। পরীক্ষায় চারজনের মধ্যে তিনজন তিন দুর্বৃত্তের মাধ্যমে ধর্ষণের শিকার হয়েছেন মর্মে আলামত মিলেছে বলে জানিয়েছেন পরিদর্শক (তদন্ত) মো. হাসান ইমাম।

কর্ণফুলী উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বানাজা বেগম নিশি ও বড়উঠান ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান দিদারুল ইসলাম জানিয়েছেন, ঘটনার সাথে জড়িত যে হোক না কেন তাদের কোন অবস্থায় পশ্রয় দেয়া হবে না। এ ঘটনাটি পৈশাচিক ঘটনা ও ন্যাক্কারজনক। জনপ্রতিধি হয়ে নিজেদেরেই লজ্জাবোধ হচ্ছে। ঘটনায় জড়িত নরপশু সে কর্ণফুলী বাসিন্দা বলতে লজ্জা লাগছে।

Bootstrap Image Preview