Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২২ শনিবার, সেপ্টেম্বার ২০১৮ | ৭ আশ্বিন ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

নির্বাচনে সেনা মোতায়েনের সিদ্ধান্ত নিইনিঃ সিইসি

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৪ নভেম্বর ২০১৭, ১০:৩০ PM আপডেট: ১৪ নভেম্বর ২০১৭, ১০:৩০ PM

bdmorning Image Preview


বিডিমর্নিং ডেস্ক-

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা বলেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনাবাহিনী মোতায়েনের বিষয়ে নির্বাচন কমিশন (ইসি) কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি। তবে এ ব্যাপারে কথাবার্তা হচ্ছে।

সোমবার নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদারের সেনা মোতায়েনের বক্তব্য প্রসঙ্গে সিইসি নুরুল হুদা আজ মঙ্গলবার বার্তা সংস্থা বাসসকে এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, বক্তব্যটি তাঁর ব্যক্তিগত। এ ব্যাপারে কমিশন এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি। তবে সেনাবাহিনী নির্বাচনে থাকতে পারে কি না, এ ব্যাপারে কথাবার্তা হচ্ছে।

নির্বাচনে সেনাবাহিনীকে বিচারিক ক্ষমতা দিয়ে মোতায়েন বিষয়ে বিএনপির দাবি প্রসঙ্গে জানতে চাইলে ইসি সচিবালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, এর আগে দেশে যতগুলো সাধারণ নির্বাচন হয়েছে, প্রত্যেকটিতে স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে সেনা মোতায়েন করা হয়েছে। এ পর্যন্ত কোনো নির্বাচনেই বিচারিক ক্ষমতা দিয়ে সেনা মোতায়েন হয়নি।’

ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) আগামী নির্বাচনে ভোট গ্রহণ হবে কি না, এ বিষয়েও এখনো কমিশন কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি জানিয়ে তিনি বলেন, রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে পরীক্ষামূলকভাবে একটি ওয়ার্ডে ইভিএম ব্যবহার করা হবে। জাতীয় নির্বাচনে কী হবে, এটা পরে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

ইসি সচিব বলেন, ‘নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর পরিস্থিতি বিবেচনায় এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। নির্বাচনের এখনো এক বছর বাকি। কমিশন এ ব্যাপারে কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি।’

সেনাবাহিনীকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সংজ্ঞায় অন্তর্ভুক্ত করা প্রসঙ্গে হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, ‘সেনাবাহিনীকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সংজ্ঞায় অন্তর্ভুক্ত করতে হলে গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ (আরপিও), সংবিধান ও সিআরপিসি সংশোধন করতে হবে। সেনাবাহিনী হচ্ছে দেশরক্ষা বাহিনী, এরা আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নয়।’ তিনি বলেন, নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর পরিস্থিতি বিবেচনায় কমিশন সিদ্ধান্ত নেবে স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে সেনা মোতায়েন হবে, না অন্য কোনো পদ্ধতিতে হবে।

Bootstrap Image Preview