Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২১ শুক্রবার, সেপ্টেম্বার ২০১৮ | ৬ আশ্বিন ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

নির্বাচনে সেনাবাহিনী মোতায়েন হবেঃ নির্বাচন কমিশনার

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৪ নভেম্বর ২০১৭, ০৭:৩২ PM আপডেট: ১৪ নভেম্বর ২০১৭, ০৭:৩২ PM

bdmorning Image Preview


বিডিমর্নিং ডেস্ক-

একাদশ সংসদ নির্বাচনে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহার করার চিন্তা নেই বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার। তিনি বলেন, নির্বাচনে সেনাবাহিনী মোতায়েন হবে।

গতকাল সোমবার নির্বাচন কমিশনে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা জানান মাহবুব তালুকদার।

মাহবুব বলেন, সেনা মোতায়েন হবে। কিন্তু কীভাবে হবে, নির্বাচন প্রক্রিয়াতে সেনাবাহিনী কীভাবে যুক্ত হবে, তা এখনো বলার সময় হয়নি।

তিনি বলেন, এ ব্যাপারে কমিশনের একটা সিদ্ধান্ত হতে হবে। আমি কখনই বলব না, যে সেনা মোতায়েন হবে না।

তিনি আরও বলেন, এই বার (একাদশ সংসদে) ইভিএম ব্যবহার সম্ভব হবে কিনা আমার ডাউট আছে। ইভিএম ব্যবহারের জন্য যে সময়ের ব্যাপার, যে অগ্রগতির ব্যাপার, সেই অগ্রগতি, সেই সময় আমাদের নেই। এই নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার করতে হবে এমন কোনো চিন্তা আমাদের মধ্যে নেই।

তিনি বলেন, আমরা ইভিএমের লোকজনদের ডেকে ছিলাম। তারা কিছু যন্ত্রপাতি দেখিয়েছেন। আগের ইভিএম সব বাতিল হয়ে গেছে। ইতিমধ্যে অকার্যকর বলেও ঘোষণা করেছে কমিশন। দুই-একটা যেগুলো ভালো আছে, ওগুলো দিয়ে রংপুর বা দুই-এক জায়গায় দেখার চেষ্টা করছি, ইভিএম কার্যকর করা সম্ভব কিনা।

তিনি বলেন, ইভিএম এমন একটা অনিবার্য বিষয়, আমাদেরকে ভবিষ্যতে ব্যবহার করতে হবে। এটা আমার বিশ্বাস। আমরা হয়তো পারব না। আমরা পারব কী করে! ইভিএমের যে দশা দেখছি তাতে আমরা সন্তুষ্ট নই।

রংপুর সিটি নির্বাচনের বিষয়ে তিনি বলেন, প্রার্থীর উচ্চমাত্রায় আচরণবিধি লঙ্ঘন দেখতে পেলে প্রার্থিতা বাতিল করে দেব আমরা। আমরা রংপুরের বিষয়ে কঠোর ব্যবস্থা নেব। আমরা প্রত্যেকেই রংপুরে যাব। শুধু এখানে নয় অন্যান্য সিটি নির্বাচনকেও আমরা অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে দেখছি।

আগামি জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার বলেন, আমাদের একটা স্বচ্ছ নির্বাচন করতে হবে। সেই স্বচ্ছ নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ যন্ত্র দিয়ে হবে না। আমরা যখন নিঃসন্দেহ হব যে ওই যন্ত্র মানুষের ভাষায় কথা বলছে না, তার নিজের ভাষায় কথা বলছে আর তথ্য-উপাত্ত মেনে আমাদের ফিডব্যাক দিচ্ছে তখন আমরা ওর বিষয়ে আস্থাশীল হব। সে যদি এখন মানুষের ভাষায় কথা বলে তাকে ব্যবহার করে আমরা নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে পারি না।

Bootstrap Image Preview