Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২২ সোমবার, অক্টোবার ২০১৮ | ৭ কার্তিক ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

ক্ষেতের পাকা ধান কাটতে গরু নজরানা দিতে হচ্ছে রোহিঙ্গাদের

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৮ অক্টোবর ২০১৭, ১০:২৬ PM
আপডেট: ১৮ অক্টোবর ২০১৭, ১০:২৬ PM

bdmorning Image Preview


বিডিমর্নিং ডেস্ক-

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে মগেরা (বৌদ্ধ) এ্রখন রাতের আঁধারে বাড়িতে এসে হুমকি দেয়, ধরে নিয়ে গিয়ে মারধর করে আর বাড়ির মেয়েদের তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে। যাদের গরু আছে তাদেরকে প্রতিদিন একটা করে গরু দিতে হচ্ছে উপহার হিসেবে। আর যাদের গরু নেই তাদের ৩ লাখ করে টাকা জরিমানা দিতে হচ্ছে। কক্সবাজারের পালং খালির আঞ্জুমান অংশের সীমান্তে শূণ্য রেখা বরাবর থেকে এসব কথা বলছিলেন বাংলাদেশে প্রবেশের অপেক্ষায় থাকা রোহিঙ্গা নারী ফুলমিলা বেগ । 

ফুলমিলা বলেন, ‘মিয়ানমারের বৌদ্ধরা ও সেনারা ক্ষেতের ফসল কাটতে দেয় না। ফসল কাটতে গেলে মারধর করে। বলে এসব ফসল তোদের না। তোরা এখান থেকে চলে যা এখানে তোদের কিছু নেই। পাকা ধান, ক্ষেতেই নষ্ট হচ্ছে, এদিকে আমাদের খাবার জুটছে না। যে দুয়েক ঘর মুসলমান সেখানে টিকে রয়েছে তাদের দয়ায় এতোদিন বেঁচে ছিলাম।’

ফুলমিলার মতো হাজার হাজার মানুষ অপেক্ষা করছে পালং খালির আঞ্জুমান অংশের সীমান্তের শুণ্যরেখা বরাবর। তাদের সেখান থেকে সামনের দিকে এগুতে দিচ্ছে না বাংলাদেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনী। বলা হচ্ছে যাচাই বাছাই হবে, পরে সেনাবাহিনী থেকে নির্দেশনা আসলে প্রবেশের অনুমতি দেয়া হবে।

প্রায় ১৫ হাজারের বেশি রোহিঙ্গা সীমান্তে বাংলাদেশে প্রবেশের অপেক্ষায় রয়েছে।

এদিকে রোহিঙ্গা নারী হাসিনা বেগম বলেন, সেনাবাহিনী এবং বৌদ্ধরা তাদের কাজ করতে দিচ্ছে না। ২ মাস ধরে কোনো কাজ করতে না পারায় খাদ্য সংকটে রয়েছে রোহিঙ্গারা।

Bootstrap Image Preview