Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২০ বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বার ২০১৮ | ৫ আশ্বিন ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

পুলিশের চাঁদাবাজি থামান: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে ব্যবসায়ী নেতারা

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৫ এপ্রিল ২০১৮, ০৭:৩০ PM আপডেট: ১৫ এপ্রিল ২০১৮, ০৭:৩০ PM

bdmorning Image Preview


আন্তর্জাতিক ডেস্ক-

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালের কাছে আকুতি জানিয়েছেন ব্যবসায়ী নেতারা বলেন, পুলিশকে থামান। পণ্য পরিবহনের সময় পুলিশ বেপরোয়া চাঁদাবাজি করে এবং এ জন্য পণ্যের দাম বেড়ে যাচ্ছে।

পুলিশের চাঁদাবাজির বিষয়টি স্বীকার করেছ মন্ত্রী বলেন, ব্যবসায়ীরা পণ্য পরিবহনে অবৈধ সুবিধা নেয়ার কারণেই পুলিশ এই সুযোগ পায়।

আসন্ন রমজানকে সামনে রেখে রবিবার দুপুরে রাজধানীর ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ (ডিসিসিআই) মিলনায়তনে এই মতবিনিময় করেন ব্যবসায়ী নেতারা। এ সময় পণ্যমূল্য নিয়ন্ত্রণের বিষয়টি নিয়ে নানা কথা হয়।

সভায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পণ্যমূল্য নিয়ে যেন কোনো কারসাজি না হয়, সে জন্য ব্যবসায়ীদেরকে অনুরোধ করেন। জবাবে ব্যবসায়ী নেতারা বলেন, পণ্য পরিবহণের ক্ষেত্রে পুলিশ চাঁদাবাজি করে। আর এই টাকাটা পণ্য বিক্রি থেকেই তুলে নিতে হয়। ফলে চাপটা পড়ে ভোক্তাদের ওপর।

সভায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাধ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক জিয়া রহমান। তিনি বলেন, ‘রমজানে রাজনৈতিক-অর্থনীতির আরেকটি কালো আলোচনার দিক হলো চাঁদাবাজ সন্ত্রাসী এবং স্মাগলিং। রমজান, ঈদকে পুঁজি করে বিভিন্ন স্তরের চাঁদাবাজ–সন্ত্রাসীরা চাঁদাবাজির পরিমাণ বাড়িয়ে দেয়। পাশাপাশি পণ্য পরিবহন খরচও বেড়ে যায়।’

‘চাঁদাবাজ সন্ত্রাসী এবং স্মাগলারদের এলাকাভিক্তিক নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। প্রত্যেক এলাকার চাঁদাবাজির দায়ভার সেই এলাকার স্থানীয় রাজনৈতিক এবং মালিক–শ্রমিক নেতাদেরই নিতে হবে। কারণ এক এলাকার নেতা-কর্মীরা নিশ্চয় আরেক এলাকায় গিয়ে চাঁদাবাজি করে না।’

ব্যবসায়ী নেতা আলাউদ্দিন মালিক বলেন, ‘ঢাকা চকবাজার এলাকায় পুলিশ চাঁদাবাজি করে। তারা মাল বহনকারী ভ্যান ও গাড়ি থেকে চাঁদা নেয়।

Bootstrap Image Preview