Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২০ শনিবার, অক্টোবার ২০১৮ | ৫ কার্তিক ১৪২৫ | ঢাকা, ২৫ °সে

বাণিজ্য মেলায় পাকিস্তানি স্টলে পাওয়া যাচ্ছে বাংলাদেশি পণ্য

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৮ জানুয়ারী ২০১৮, ০৬:৫৫ PM
আপডেট: ১৮ জানুয়ারী ২০১৮, ০৭:০৯ PM

bdmorning Image Preview


রায়হান শোভন।।

আন্তর্জাতিক মেলা মানেই দেশি-বিদেশি নানা রকম পণ্যের সমাহার। আর তাই ক্রেতারাও অনেক আগ্রহ নিয়ে মেলায় আসে দেশি পণ্যের সঙ্গে বিদেশি পণ্য কিনতে। তবে মেলায় বিদেশি প্যাভিলিয়নের নামে ছোট ছোট স্টলে দেশি পণ্য বিক্রি হচ্ছে দেদারছে। এছাড়া নিম্ন মানের পণ্যের সমারহ রয়েছে প্রত্যেকটি স্টলজুড়ে। মেলায় আসা ক্রেতাদের অভিযোগ, বিদেশি পণ্য কিনতে এসে প্রতারিত হচ্ছেন তারা।

সরেজমিন মেলায় থাইল্যান্ড, ভারত, পাকিস্তান ও ইরানের প্যাভিলিয়ন ঘুরে দেখা গেছে- এসব প্যাভিলিয়নে প্রসাধন সামগ্রী, জুতা, ভ্যানিটি ব্যাগ, আচার, চকলেট, শাল, এনার্জি ড্রিংক, জুস, মশলা, চাদর, থ্রি-পিস, প্লাস্টিক ও সিরামিকস পণ্যসহ নিত্য ব্যবহার্য সামগ্রী বিক্রি হচ্ছে।

মেলায় আসা অনেক ক্রেতা-দর্শনার্থী এসব স্টল-প্যাভিলিয়নে প্রবেশ করে হতাশা প্রকাশ করছেন। আবার অনেকে পণ্য কিনে হচ্ছেন প্রতারিত। ইরান, পাকিস্তান ও ভারতের মতো বিদেশি প্যাভিলিয়নে বিক্রি হচ্ছে দেশি আর চীন থেকে আমদানি করা পণ্য।

প্যাভিলিয়নগুলোয় সরাসরি বিদেশ থেকে অংশ নেয়া ব্যবসায়ীদের তেমন দেখা মেলেনি। স্টল নিয়ে ব্যবসা করছেন বেশির ভাগ দেশিয় ব্যবসায়ীরা। এছাড়া এক দেশের স্টল-প্যাভিলিয়নে অন্য দেশের পণ্যও বিক্রি হতে দেখা গেছে। এদিকে মেলার মূল ফটক দিয়ে ভেতরে এসে একটু ডান দিকে ইরানি পণ্যের সমাহার প্যাভিলিয়ন। সেখানে কসমেটিক্সের স্টলে দেশি ব্যবসায়ী দেখা গেছে। কোনো ইরানি ব্যবসায়ী ছিলেন না। এছাড়া ইরানি বোরকা নামে স্টলেও দেশীয় ব্যবসায়ী। এমন করে সেখানে জুতার স্টল দিয়ে বসেছেন দেশিয় ব্যবসায়ীরা।

 

এছাড়া দেশি ব্যবসায়ীরা পাকিস্তানি শাল, চাদর ও থ্রি-পিস বিক্রি করছেন। মেলায় অংশ নেয়া দেশিয় সাধারণ স্টল মালিকদের অভিযোগ, বড় বড় মার্কেটের ব্যবসায়ীরা প্রতি বছরই বিদেশি প্যাভিলিয়নগুলো বরাদ্দ নেন। তারা প্যাভিলিয়নগুলোয় অধিক দামে চীন-ভারত থেকে আমদানি করা পণ্য বিক্রি করেন। অথচ একই পণ্য তাদের কম দামে বিক্রি করতে হচ্ছে। অনেক ক্রেতা না বুঝে প্রতারিত হচ্ছে।

ইরানী পণ্যের সমাহার প্যাভিলিয়নে দেশিয় কসমেটিক্স বিক্রেতা সায়েম হাওলাদার বিডিমর্নিংকে বলেন, আমরা বাংলাদেশি কিন্তু আমাদের পণ্য পুরোটা বিদেশ থেকে আমদানি করা। এখানে ভারতীয়, থাইল্যান্ড ও কোরিয়া থেকে এসব কসমেটিক্স এনে বিক্রি করছি। তিনি বলেন, বিদেশে আমাদের আত্মীয় আছে। তারাই মূলত এসব পণ্য পাঠিয়েছে। আর এজন্য আমাদের পণ্য বিদেশি হওয়ায় আমরা বিদেশি প্যাভিলিয়ন স্টলে বিক্রি করছি।

মেলার এ অগোছালো পরিবেশ দেখে বিব্রত বোধ করছেন বিদেশি ব্যবসায়ীরা। এবারের বাণিজ্য মেলায় পাকিস্তান থেকে অংশ নেয়া মো. আসিম আফরোজ বলেন, এটা বিদেশি প্যাভিলিয়ন। কিন্তু দেখা যাচ্ছে এখানে স্থানীয় ব্যবসায়ীরা স্টল দিয়েছেন। এজন্য বুঝাই যাচ্ছে না কোনটা বিদেশি প্যাভিলিয়ন আর কোনটা দেশি। তাই মেলাসংশ্লিষ্টদের এ বিষয়ে ভালোভাবে নজর দিতে হবে।

মিরপুর-১২ থেকে মেলায় আসা সুমন পাটুয়ারি বিডিমর্নিংকে বলেন, মেলায় বিদেশি স্টল থেকে কিছু পণ্য কিনব বলে এসেছি। কিন্তু এখানে এসে দেখি বেশির ভাগ বিদেশি স্টলেই দেশি পণ্য। আর পণ্যের মানও তেমন একটা ভালো না। তিনি বলেন, সব কিছুই এখানে স্থানীয়। ব্যাসায়ীরা একটি পণ্যের দাম প্রথমে সাড়ে ৪ থেকে ৬ হাজার টাকা চাচ্ছে।পরে আবার তারাই দামাদামি করে হাজার টাকায় দিয়ে দিচ্ছেন। বুঝাই যাচ্ছে তারা মেলায় আসা ক্রেতাদের সঙ্গে অভিনবভাবে প্রতারণা করছেন। তাই মেলাসংশ্লিষ্টদের কাছে দাবি, দেশি ও বিদেশি স্টলগুলো আলাদা করলে সব চেয়ে ভালো হবে। এতে করে ক্রেতারা আলাদা করে পণ্যগুলো বুঝতে পারবেন ও কিনতে পারেন।

Bootstrap Image Preview