Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ০৫ রবিবার, এপ্রিল ২০২০ | ২১ চৈত্র ১৪২৬ | ঢাকা, ২৫ °সে

১২ বছরের ফুটবল

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ১১:২১ AM আপডেট: ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ১১:২১ AM

bdmorning Image Preview


বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) আসন্ন নির্বাচনে নিজের প্রার্থী হওয়ার ইঙ্গিত দিয়ে বাংলাদেশ জেলা ও বিভাগীয় ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব তরফদার মো. রুহুল আমিন বলেছেন, ‘বর্তমান কমিটি ১২ বছর ফুটবলকে রোল করেছে, কিন্তু বাংলাদেশ ফুটবলের কোনোই উন্নতি হয়নি। বরং গত ১২ বছরে ফুটবলের ভীষণ রকমের ক্ষতি হয়ে গেছে।’

গতকাল শনিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে চট্টগ্রাম নগরের পাঁচতারকা হোটেল রেডিশন ব্লু’তে বাংলাদেশ জেলা ও বিভাগীয় ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের কার্যনির্বাহী কমিটির সভা শেষে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

তরফদার রুহুল আমিন বলেন, ‘আপনারা জানেন সামনে আমাদের ফুটবল ফেডারেশনের নির্বাচন। মিটিংয়ে নির্বাচনমুখী আলোচনা হয়েছে। নির্বাচনকে আমরা কীভাবে সাফল্যের দিকে নিয়ে যেতে পারি এটা নিয়ে ব্যাপক আলোচনা হয়েছে। বাংলাদেশ জেলা ও বিভাগীয় ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন থেকে আমাকে নমিনেশন দেয়া হয়েছে। ফেডারেশনের পরবর্তী নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন করার জন্য এবং আমাকে বাংলাদেশ ফুটবল ক্লাবস অ্যাসোসিয়েশন থেকেও নমিনেশন দেয়া হয়েছে, এপ্রিলে যে নির্বাচন হবে সে নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন করার জন্য।’

তিনি বলেন, ‘আজকের মিটিংয়ে যারা এসেছেন, তারা বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এসেছেন। কার্যনির্বাহী কমিটির প্রায় ৪০ জন সদস্য এখানে যোগ দিয়েছেন বিভিন্ন জেলা ও বিভিন্ন বিভাগ থেকে। সবার একটাই মত বর্তমান কমিটি ১২ বছর ফুটবলকে রোল করেছে, কিন্তু বাংলাদেশ ফুটবলের কোনোই উন্নতি হয়নি। বরং গত ১২ বছরে ফুটবলের ভীষণ রকমের ক্ষতি হয়ে গেছে।’

‘২১১টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের অবস্থান হচ্ছে ১৮৭তম। যেখানে বাংলাদেশের অর্থনীতি এগিয়ে যাচ্ছে, বাংলাদেশ এগিয় যাচ্ছে, বাংলাদেশের প্রতিটা সেক্টর আগিয়ে যাচ্ছে, একমাত্র ফুটবল পিছিয়ে পড়ে গেছে। এটা দিনে দিনে পেছনের দিকেই যাচ্ছে।’ যোগ করেন তরফদার রুহুল আমিন।

সম্প্রতি শেষ হওয়া বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের নানা অসঙ্গতির কথা তুলে ধরে রুহুল আমিন বলেন, ‘আপনারা জানেন যে সম্প্রতি এসএ গেমসে বাংলাদেশ নেপালের কাছে হেরে গেছে, জাতীয় দল ভুটানের কাছে হেরে গেছে। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে যে টুর্নামেন্ট হলো সেখানে মিস ম্যানেজমেন্ট হয়েছে, সে টুর্নামেন্ট তারা ঠিকমতো আয়োজন তারা করতে পারেনি এবং যে সমস্ত দল সিলেকশন করেছে, সেখানে যে দলগুলো নিয়ে এসেছে সেখানে কয়েকটি টিম বাংলাদেশের থেকে অনেক নিচে। কয়েকটি টিম বাংলাদেশের থেকে উপরে কিন্তু তাদের জাতীয় দল আসেনি। এই না আসার কারণে বঙ্গবন্ধুর নামে যে টুর্নামেন্ট সেটা ওই পরিসরে অনুষ্ঠিত হয়নি। দায়সারাভাবে এই টুর্নামেন্টটা করেছে।’

সভায় আলোচনার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমাদের যারা জেলা-বিভাগীয় ফুটবল স্টেশনের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য আছেন তাদের প্রায় ৪০ সদস্য আজকের মিটিংয়ে যোগ দিয়েছেন। সবার মুখে একই কথা- এই কমিটি দিয়ে বাংলাদেশের ফুটবলের আর উন্নতি করা সম্ভব নয়। এখান থেকে পরিত্রাণ পেতে গেলে একটি শক্তিশালী নতুন কমিটি নিয়ে আমাদের আগাতে হবে এবং সামনে ফুটবল ফেডারেশনের নতুন কমিটির হাতে ফুটবলের দায়িত্ব ছেড়ে দিতে হবে।’

নির্বাচন ও ফুটবল নিয়ে নিজের পরিকল্পনার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা এখন একটি শক্তিশালী কমিটি করার জন্য কাজ করে যাচ্ছি। যাতে করে আমরা ফুটবল ফেডারেশনের যে নির্বাচনটা হবে সে নির্বাচনে আমি সভাপতি হিসেবে এবং বাদবাকি চারজন সহ-সভাপতি, সিনিয়র সহ-সভাপতি এবং যারা এক্সিকিউটিভ কমিটির সদস্য হবেন, তারা কারা হবেন; সে বিষয়ে ব্যাপক আলোচনা হচ্ছে। এখনও চূড়ান্ত কোনো কিছু হয়নি। তবে আমরা একটি শক্তিশালী কমিটি তৈরি করব, যে প্যানেলটা তৈরি হবে সেটি ২০২০ এর ফুটবল ফেডারেশনের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে। আমাদের বিশ্বাস আমাদের কমিটি যদি দায়িত্ব পায়, তাহলে আগামী চার বছরে আমরা বাংলাদেশের ফুটবলের ফেডারেশন তৈরি করে দিতে পারব।’

Bootstrap Image Preview