Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৬ বুধবার, অক্টোবার ২০১৯ | ১ কার্তিক ১৪২৬ | ঢাকা, ২৫ °সে

আবরারকে একাই ‘দেড়শ’ আঘাত করে ঘাতক অনিক

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০ অক্টোবর ২০১৯, ০৯:৩৬ PM আপডেট: ১০ অক্টোবর ২০১৯, ০৯:৩৬ PM

bdmorning Image Preview
সংগৃহীত ছবি


বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডে কার কী ভূমিকা ছিল, তা বেরিয়ে আসছে। এ মামলায় গ্রেফতার ১৩ জনকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। 

এখন পর্যন্ত পাঁচজনের নাম পাওয়া গেছে, যারা সরাসরি আবরারের ওপর নির্যাতনে জড়িত ছিল। তবে সরাসরি নির্যাতন ছাড়াও তাকে ধরে আনা, মোবাইল ও ল্যাপটপ পরীক্ষা আর পরে তার নিস্তেজ দেহ নিয়ে দৌড়াদৌড়িতে আরও ২০-২৫ জন সংশ্নিষ্ট ছিল।

নির্যাতনকারীদের মধ্যে বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক মো. অনিক সরকার একাই অন্তত দেড়শ’ বার আবরারকে আঘাত করেন। অনিক মারধরের সময় নিজের ভূমিকার বিষয়েও জিজ্ঞাসাবাদে তথ্য দিয়েছেন।

সূত্রে জানা যায়, রিমাণ্ডের জিজ্ঞাসাবাদে অনিক বলেছেন, আবরার একেক সময়ে একেক তথ্য দিচ্ছিলেন। এজন্য তার মাথা গরম হয়ে যায়। ক্ষিপ্ত হয়ে তিনি তাকে বারবার মারছিলেন।

আবরার হত্যা মামলায় গ্রেফতারকৃতরা রিমাণ্ডে এ ঘটনায় তাদের প্রত্যেকের ভূমিকার কথা তুলে ধরেছেন। তারা বলেছেন, আবরারকে মারার সময় নানা রকম পরামর্শ দেন বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রাসেল।

কয়েকজন ‘অনুতপ্ত’ হয়ে গোয়েন্দাদের এও বলেন, ‘ক্রসফায়ার নইলে ফাঁসি দিয়ে দেন। ওই হত্যার দায় নিয়ে বাঁচতে চাই না।’ একাধিক দায়িত্বশীল সূত্রে গতকাল এসব তথ্য পাওয়া গেছে। এদিকে, আবরার হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলা ও সুরতহাল প্রতিবেদনের তথ্যে গরমিল পাওয়া গেছে।

Bootstrap Image Preview