Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২৩ বুধবার, অক্টোবার ২০১৯ | ৮ কার্তিক ১৪২৬ | ঢাকা, ২৫ °সে

উদ্বোধনী ম্যাচে মুখোমুখি বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৪:১৬ AM আপডেট: ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৪:১৮ AM

bdmorning Image Preview


সংযুক্ত আরব আমিরাতে আজ শুরু হচ্ছে এশিয়া কাপ ক্রিকেটের ১৪তম আসর। বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ভারতের সাথে রয়েছে গত আসরের ফাইনালিষ্ট বাংলাদেশ, পাকিস্তান, শ্রীলংকা, আফগানিস্তান ও দশ বছর পর তৃতীয়বারের মত এশিয়া কাপে খেলার সুযোগ পাওয়া হংকং। টুর্নামেন্টের প্রথমদিনই মাঠে নামছে বাংলাদেশ ও শ্রীলংকা। খেলাটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৫টায়।

এশিয়ার কাপে এখন পর্যন্ত ১২বার অংশ নিয়ে সর্বোচ্চ ছয়বার এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট পড়েছেন ভারত।গেল আসরটি ছিলো টি-২০ ফরম্যাটে। এশিয়ার কাপের ইতিহাসেই সেবারই প্রথম টি-২০ ফরম্যাটে খেলা অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশের মাটিতে স্বাগতিকদের হারিয়ে শিরোপা জয় করে ভারত। তাই চ্যাম্পিয়নের তকমা গায়ে মেখে ১৪তম আসরে খেলতে নামবে টিম ইন্ডিয়া।

এশিয়ার কাপে অন্যতম শক্তিশালী দলে পরিণত হয়েছে বাংলাদেশ। গেল তিন আসরের পারফরমেন্সে এশিয়া কাপের অন্যতম দাবীদার হয়ে উঠেছে মাশরাফি-সাকিব-তামিমরা। ২০১২ সালে দেশের মাটিতে অনুষ্ঠিত আসরের ফাইনাল খেলে বাংলাদেশ। সেবার শিরোপা জয়ের দোড় গোড়ায় পৌঁছে এশিয়া শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট পড়তে ব্যর্থ হয় টাইগাররা। ফাইনালে পাকিস্তানের কাছে মাত্র ২ রানে ম্যাচ হারে বাংলাদেশ।

এশিয়া কাপের পরের আসরটিও হয় বাংলাদেশে। সে আসরে ফাইনালে উঠতে পারেনি টাইগাররা। তবে ২০১৬ সালের আসরে আবারো বিশ্বকে চমকে দিয়ে ফাইনালে উঠে বাংলাদেশের।

দু’বার ফাইনালে উঠে শিরোপা জিততে না পারার স্মৃতি ভুলে নতুনভাবে নিজেদের প্রমানের পক্ষে বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। তাই এশিয়ার কাপের উদ্ধেধনী ম্যাচে শ্রীলংকার বিপক্ষে ম্যাচকে অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ ভাবছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। 

শিরোপা জেতার মিশনেই নামবে মাশরাফির দল। গতকাল দুবাইয়ে ট্রফি উন্মোচনের অনুষ্ঠান শেষে ছয় দলের অধিনায়ক সংবাদ সম্মেলন করেছেন। বাংলাদেশের দলপতি  বলেছেন, ‘শুরুটা ভালো করতে চাই। আমরা কিভাবে শুরু করছে সেটার ওপর নির্ভর করছে এশিয়া কাপে আমাদের যাত্রা। শ্রীলঙ্কাকে হারাতে হলে আমাদের সেরা ক্রিকেট খেলতে হবে। আমরা যদি শুরুটা ভালো করি তাহলে আমাদের অনেক দূর যাওয়া সম্ভব।’

এশিয়া কাপে ৪২ ম্যাচে অংশ নিয়ে মাত্র ৭ জয় ও ৩৫ হারের স্বাদ নিয়েছে বাংলাদেশ। তবে এগুলো এখন শুধুমাত্র রেকর্ড বইয়েই লিপিবদ্ধ। অতীতের চেয়ে এখন ঢেরগুন পরিপক্ব দল বাংলাদেশ।

এশিয়া কাপে সবচেয়ে বেশি ম্যাচে জয়ের স্বাদ নিয়েছে শ্রীলংকা। ৫২ ম্যাচে অংশ নিয়ে ৩৫টি জয় ও ১৭টি হার লংকানদের। শিরোপা জয়ের ক্ষেত্রে দ্বিতীয়স্থানে রয়েছে শ্রীলংকা। ভারতের পর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পাঁচবার শিরোপা জিতেছে লংকানরা। ২০১৪ সালে সর্বশেষ এশিয়া কাপের শিরোপা জয় করে শ্রীলংকা।

ওয়ানডেতে মুখোমুখি লড়াইয়ে এখনো পর্যন্ত মোট ৪৪ বার মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কা। যার মধ্যে ৩৬ ম্যাচে শ্রীলঙ্কা ও ৬ ম্যাচে জয়ের দেখা পেয়েছে টাইগাররা।তবে পারিসংখ্যানের চেয়ে সাম্প্রতি পারফরম্যান্সের েদিকে থেকে বাংলাদেশ এখন ঢের এগিয়ে।

এশিয়া কাপ দিয়ে আবারো সাফল্যের মুখ দেখতে চান দলের অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ। তিনি বলেন, ‘এশিয়া কাপে ভালো করাই আমাদের মূল লক্ষ্য। আমাদের চাপ কম রয়েছে। তাই নির্বিঘ্নে নিজেদের সেরাটা দেয়ার সুযোগ রয়েছে খেলোয়াড়দের। আশা করবো, দলের খেলোয়াড়রা নিজেদের সেরাটা উজার করে দিবে এবং দলকে সাফল্যের স্বাদ দিতে সক্ষম হবে।’

দশ বছর পর এশিয়া কাপে খেলার সুযোগকে স্মরনীয় করে রাখতে চান হংকং-এর অধিনায়ক অংশুমান রাথ, ‘দীর্ঘদিন পর এশিয়া কাপে খেলবে হংকং। আমাদের লক্ষ্য এবারের আসরকে স্মরনীয় করে রাখা। মাঠের পারফরমেন্সে সেরাটা দিতে পারলে ভালো কিছু করতে পারবে দল।’

Bootstrap Image Preview