Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৮ শনিবার, মে ২০২৪ | ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ | ঢাকা, ২৫ °সে

জীবনভর প্রস্তুতি নিয়ে ৭৩ বছর বয়সে রাজা হলেন চালর্স

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১১:০৮ AM
আপডেট: ০৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১১:০৮ AM

bdmorning Image Preview


প্রিন্স চার্লস তার সারা জীবন মুকুটের জন্য প্রস্তুতি নিয়েছেন। অবশেষে ৭৩ বছর বয়সে তার সেই মুহূর্তটি আসলো। চার্লস ১৯৬৯ সালে বাকিংহাম প্যালেসে মাথায় যুবরাজের মুকুট পরেন। তার উপাধি ‘প্রিন্স অব ওয়েলস’ এখন যাবে তার বড়ে ছেলে প্রিন্স উলিয়ামের মাথায়। খবর বার্তা সংস্থা এপির।

চার্লস ব্রিটিশ সিংহাসনে অধিষ্ঠিত সবচেয়ে বয়স্ক ব্যক্তি। বৃহস্পতিবার তার মা রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথের মৃত্যুর পর তিনি রাজা তৃতীয় চার্লস হন। তবে তার রাজ্যাভিষেকের কোনো তারিখ এখনো নির্ধারণ করা হয়নি।

শিক্ষানবিশ শেষে শৈশব থেকেই চার্লস ব্রিটিশ রাজতন্ত্রের আধুনিকীকরণকে মূর্ত করে তোলেন। তিনিই প্রথম উত্তরাধিকারী যিনি বাড়িতে শিক্ষিত হননি। তিনিই রাজপরিবারের প্রথম যিনি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডিগ্রি অর্জন করেছিলেন।

ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের নিয়ম অনুযায়ী, রানির মৃত্যুর পর স্বয়ংক্রিয়ভাবে এবং কোনো ধরনের আনুষ্ঠানিকতা ছাড়াই রাজার পদবি পাবেন সাবেক প্রিন্স অব ওয়েলস চার্লস। তিনি ‘রাজা তৃতীয় চার্লস’ নামে পরিচিত হবেন। তবে, তিনি তার চারটি নামের যেকোনো একটি বেছে নিতে পারবেন। চার্লসের ক্ষেত্রে তার চার নাম (চার্লস, ফিলিপ আর্থার, জর্জ) এর যেকোনো একটি গ্রহণ করতে পারবেন।

নতুন রাজা চার্লসকে বেশকিছু আনুষ্ঠানিকতা পার করতে হবে। রানির মৃত্যুর ২৪ ঘণ্টার মধ্যে লন্ডনের সেইন্ট জেমস প্যালেসে অ্যাকসেশন কাউন্সিলের এক সভায় প্রিভি কাউন্সিল কর্তৃক আনুষ্ঠানিকভাবে রাজা হিসেবে ঘোষণা করা হবে চার্লসকে। ঐতিহ্যগত কারণে এ অনুষ্ঠানে রাজা সাধারণত সশরীরে উপস্থিত থাকেন না। তবে, এর ২৪ ঘণ্টা পরে অ্যাকসেশন কাউন্সিলের যে বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে তাতে উপস্থিত থাকবেন চার্লস। সেখানে তাকে আনুষ্ঠানিকভাবে রাজা হিসেবে ঘোষণা করা হবে। রাজা হিসেবে নিযুক্ত হওয়ার জন্য শপথ গ্রহণের মতো কোনো বাধ্যবাধকতা নেই আঠারো শতক থেকেই। তবে চার্চ অব স্কটল্যান্ডের সংরক্ষণ বিষয়ে তাকে একটি শপথ নিতে হতে পারে।

এরপর ট্রাম্পেট বাজিয়ে ও গণবিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে চার্লসকে নতুন রাজা হিসেবে ঘোষণা করা হবে। সেইন্ট জেমস প্যালেসের ফ্রেইরি কোর্টের ব্যালকনিতে দাঁড়িয়ে এ ঘোষণা দেবেন গার্টার কিং অব আর্মস পদে থাকা একজন কর্মকর্তা। ১৯৫২ সালের পর প্রথমবারের মতো উচ্চারিত হবে ‘গড সেভ দ্য কিং’। এরপর বাজানো হবে যুক্তরাজ্যের জাতীয় সঙ্গীত, এ সময়ও গাওয়া হবে ‘গড সেভ দ্য কিং’। নতুন রাজাকে গান স্যালুট দেয়া হবে ব্রিটিশ নৌবাহিনীর সকল জাহাজ, হাইড পার্ক ও টাওয়ার অব লন্ডন থেকে। এরপর এডিনবার্গ, বেলফাস্ট ও কার্ডিফ থেকে চার্লসকে রাজা হিসেবে ঘোষণা করা হবে। এরপর অনুষ্ঠিত হবে করোনেশন। ১৯৫৩ সালের জুন মাসে ২য় এলিজাবেথের পর রাজমুকুট পরতে যাচ্ছেন চার্লস।

Bootstrap Image Preview