Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২১ বুধবার, ফেব্রুয়ারি ২০২৪ | ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ | ঢাকা, ২৫ °সে

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে যে তিন দাবি জানালেন হেফাজত নেতারা

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ২০ এপ্রিল ২০২১, ০৩:৫৪ PM
আপডেট: ২০ এপ্রিল ২০২১, ০৩:৫৪ PM

bdmorning Image Preview
ছবিঃ সংগৃহীত


স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে তিনটি দাবি জানিয়েছেন কওমি মাদরাসাভিত্তিক সংগঠন হেফাজতে ইসলামের নেতারা। ওই সাক্ষাতে অংশ নেয়া একজন হেফাজত নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে একথা জানান।

জানা গেছে, বৈঠকে হেফাজত নেতারা ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ছাড়া তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) হারুন-অর-রশিদসহ পুলিশের তিনজন সদস্য উপস্থিত ছিলেন। অপরদিকে সংগঠনটির মহাসচিব নূরুল ইসলাম জেহাদীর নেতৃত্বে হেফাজতের শীর্ষ নেতাদের মধ্যে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন দলটির নায়েবে আমির মাওলানা আতাউল্লাহ হাফেজী, মামুনুল হকের ভাই মাওলানা মাহফুজুল হক, অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান (দেওনার পীর), মাওলানা হাবীবুল্লাহ সিরাজী প্রমুখ।

রাতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের আগে দিনের বেলায় সংগঠনটির নেতারা পুলিশের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও একটি গোয়েন্দা সংস্থার প্রধানের সঙ্গেও বৈঠক করেছেন বলে জানা গেছে। যদিও কোন পক্ষই বৈঠকের বিষয়ে আনুষ্ঠানিক কোন মন্তব্য না করলেও নূরুল ইসলাম জেহাদী সোমবার বিবিসি বাংলাকে বলেন যে, তারা গ্রেপ্তারকৃতদের জন্য আইনি লড়াই চালাবেন এবং একইসঙ্গে তারা আলোচনার মাধ্যমে সমাধানের চেষ্টা করছেন।

এদিকে সোমবারই এক ভিডিও বার্তায় হেফাজতে ইসলামের আমির জুনায়েদ বাবুনগরী দাবি করেছেন, হেফাজত দেশের বড় একটি অরাজনৈতিক দল। কাউকে ক্ষমতায় বসানো বা ক্ষমতা থেকে নামানো হেফাজতের উদ্দেশ্য নয়। কোন পার্টি বা দলের এজেন্ডা বাস্তবায়ন হেফাজত ইসলামের উদ্দেশ্য নয়।

তিনি আরও বলেন, ‘মিথ্যা মামলা দিয়ে নেতাকর্মীদের হয়রানি করা হচ্ছে। হেফাজতের যেসব নির্দোষ নেতাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে তাদের অবিলম্বে মুক্তি দিন। ২০২১ সালে এসে ২০১৩ সালের মামলায় গ্রেপ্তার করা হচ্ছে। এতদিন কোথায় ছিলেন আপনারা? এসব মামলায় যাদের গ্রেপ্তার করা হচ্ছে সবই মিথ্যা মামলা।’

নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি আরও বলেন, ‘আপনারা কোনও সংঘাতে যাবেন না। কোনও জ্বালাও-পোড়াও করবেন না। হেফাজত ইসলাম ভাঙচুর আর জ্বালাও পোড়াওয়ে বিশ্বাস করে না। কিছু কিছু বক্তা তাদের বক্তব্যে বললেও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আসার বিষয়ে হেফাজতের কোন কর্মসূচি ছিলো না।’

বৈঠকের পর প্রতিনিধি দলটির একাধিক সদস্য নিশ্চিত করেছেন যে তাদের আলোচনায় মূলত তিনটি বিষয়টি এসেছে, ঢালাওভাবে গ্রেপ্তার বন্ধ, সাম্প্রতিক সময়ে সংঘটিত ঘটনাগুলোর তদন্ত এবং কওমি মাদরাসা খুলে দেয়া ও গ্রেপ্তার হওয়া নেতাকর্মীদের মুক্তি। সূত্র: বিবিসি

Bootstrap Image Preview