Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৬ মঙ্গলবার, জুলাই ২০২৪ | ১ শ্রাবণ ১৪৩১ | ঢাকা, ২৫ °সে

শুরু হয়েছে ফোক ফেস্ট-২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ০৯:৪৫ PM
আপডেট: ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ০৯:৪৫ PM

bdmorning Image Preview
সংগৃহীত ছবি


তিনদিনব্যাপী ফোক ফেস্ট উৎসবের উদ্বোধন হয়েছে আজ। উৎসবটি চলবে ১৫ থেকে ১৭ নভেম্বর। প্রতিদিন সন্ধ্যা থেকে শুরু হয়ে চলবে মধ্যরাত পর্যন্ত। সান ফাউন্ডেশন আয়োজিত এই উৎসবে এবার অংশগ্রহণ করছে সাতটি দেশের মোট ১৭৪ জন শিল্পী।

আজ বৃহস্পতিবার (১৫ নভেম্বর) সন্ধ্যা ৬ টায় বাংলাদেশ আর্মি স্টেডিয়ামে শুরু হয় ফোক ফেস্টের প্রথম দিনের আয়জন।

যারা যারা মঞ্চে উঠছেন আজঃ

ভাবনা নৃত্যদল (বাংলাদেশ)

আসরের প্রথম দিনের উদ্বোধনী আয়োজন শুরু হয় বাংলাদেশের সুপরিচিত ভাবনা নৃত্যদলের ড্যান্স পারফর্মেন্স দিয়ে। সামিনা হোসেন প্রেমা ও তার নৃত্যদল পরিবেশন করে মনোমুগ্ধকর লোকনৃত্য। যদিও তারা ক্ল্যাসিক্যাল, শাস্ত্রীয় ও লোকনৃত্য পরিবেশন করে থাকে। এই নৃত্যদল দেশ-বিদেশের বিভিন্ন উৎসবে নৃত্য পরিবেশন করে থাকে।

 দিকান্দা (পোল্যান্ড)

 ইউরোপীয় বলকান ও জিপসি প্রভাবিত পোল্যান্ডের ব্যান্ড দল ‘দিকান্দা’। এ পর্যন্ত এই লোকজ ব্যান্ডটির সাতটি অ্যালবাম বের হয়েছে। জার্মানি, অস্ট্রিয়া, সুইজারল্যান্ড, রাশিয়া, ভারত ও আমেরিকায় নানা উৎসবে ব্যান্ডটি অংশগ্রহণ করেছে।

 ওয়াদালি ব্রাদার্স (ভারত)

ভারতের সুপরিচিত সুফি ঘরানার ‘ওয়াদালি ব্রাদার্স’ মূলত গঠিত দুই ভাই পদ্মশ্রী ওস্তাদ পূরণচন্দ্র ও পেয়ারেলাল ওয়াদালিকে নিয়ে। এই ব্রাদার্স গুরুবাণী, কাফি, গজল, ভজনসহ গেয়ে থাকেন সুফি গান। তবে দুঃখের বিষয় যে, ছোট ভাই পেয়ারেলাল ওয়াদালি চলতি বছরের মার্চ মাসে মারা যান। তবুও দলটি ওয়াদালি ব্রাদার্স নামেই পরিচিত। ছোট ভাইয়ের জায়গায় এবারের আসরে গান পরিবেশন করবেন পূরণ ওয়াদালির ছেলে লখিন্দর ওয়াদালি।

বাউল আবদুল হাই দেওয়ান (বাংলাদেশ)

বাউল আবদুল হাই দেওয়ানের পরিচিতি মূলত আড়বাঁশি বাজানোর মাধ্যমে। কৃষক পরিবারে জন্ম নেওয়া এই শিল্পী ‘মাতাল বাউল’ রাজ্জাক দেওয়ানের শিষ্য। এই গুরুই তাকে ‘হাফ মাতাল’ উপাধি দেন। চতুর্থবারের এই লোক উৎসবে তিনি শেকড় সন্ধানী কিছু বাউল গান পরিবেশন করবেন।

সাত্যকি ব্যানার্জি (ভারত)

ভারতীয় শিল্পী সাত্যকি ব্যানার্জি। গুরু পণ্ডিত তেজেন্দ্র নারায়ণ মজুমদার। উচ্চাঙ্গসংগীত ও লোকসংগীত দুই ক্ষেত্রেই তার সমান দক্ষতা। তিনি এর আগেও এদেশে এসেছেন। এবারেও তার গানে মুগ্ধ হবে বাঙালি।

এবারও দর্শকরা বিনামূল্যে শুধু অনলাইন রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানটি সরাসরি উপভোগ করতে পারছেন। রেজিস্ট্রেশন শুরু হয় ৬ নভেম্বর থেকে। অনুষ্ঠানটির টেলিভিশন সম্প্রচারের দায়িত্বে রয়েছে মাছরাঙা টেলিভিশন। এ ছাড়াও গ্রামীণফোনের অনলাইন ভিডিও স্ট্রিমিং সার্ভিস-বায়োস্কোপ লাইভে থাকছে অনুষ্ঠানটি লাইভ দেখার সুযোগ।

আর্থিক সহযোগিতায় থাকছে মেরিল, ঢাকা ব্যাংক, বিকাশ, বেঙ্গল ডিজিটাল, রেডিও দিনরাত, মিডিয়াকম, স্কয়ার হাসপাতাল, ফোর পয়েন্ট বাই সেরাটন, রাঁধুনি এবং আরও অনেকে।

Bootstrap Image Preview