Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২৭ সোমবার, জুন ২০২২ | ১৩ আষাঢ় ১৪২৯ | ঢাকা, ২৫ °সে

গ্রেফতারের ৩ ঘণ্টা পর আসামি কুদ্দুসের মৃত্যু

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ২১ এপ্রিল ২০২২, ০৪:৪৩ PM
আপডেট: ২১ এপ্রিল ২০২২, ০৪:৪৩ PM

bdmorning Image Preview
ছবি সংগৃহীত


লক্ষ্মীপুরে ফার্মেসি ব্যবসায়ী আবদুল কুদ্দুস (৪৫) পুলিশের হাতে গ্রেফতার হওয়ার প্রায় ৩ ঘণ্টা পর মারা গেছেন।  বুধবার (২০ এপ্রিল) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে তাকে একটি মামলায় গ্রেফতার করে সদর থানা পুলিশ। রাত ১০টা ৪০ মিনিটে জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।  এর আগে, থানা হাজতে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়লে রাত ১০টা ১০ মিনিটে তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসেন তার স্বজন ও পুলিশ।  

স্ট্রোক করে তিনি মারা গেছেন বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক।   আবদুল কুদ্দুস সদর উপজেলার বাঙ্গাখাঁ ইউনিয়নের রাধাপুর গ্রামের মৃত আবদুল্লাহ চৌধুরীর ছেলে। তিনি লক্ষ্মীপুর পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের লক্ষ্মীপুর-রামগঞ্জ সড়কের পাশে হাসিম মঞ্জিলে সপরিবারে বসবাস করতেন। সেখানেই তার একটি ওষুধের ফার্মেসি ছিল। এছাড়া একটি ওষুধ কোম্পানিতেও চাকরি করতেন তিনি।  

স্থানীয়রা জানান, আবদুল কুদ্দুস ইফতারের পর মাগরিবের নামাজ শেষে ফার্মেসি খুলে বসেন। কিছুক্ষণ পর পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে সদর থানায় নিয়ে যায়।  পুলিশ ও পরিবার সূত্র জানায়, ঢাকার ওয়ারী থানায় আবদুল কুদ্দুসের বিরুদ্ধে একটি চেক মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হয়। ওই মামলায় সদর থানা পুলিশ তাকে ফার্মেসি দোকান থেকে গ্রেফতার করে। খবর পেয়ে তার স্ত্রী নিগার সুলতানা স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর মো. আল-আমিনকে নিয়ে থানায় যান। সেখানে আবদুল কুদ্দুস অসুস্থ হয়ে পড়লে তার স্ত্রী ও কাউন্সিলরসহ পুলিশ তাকে সদর হাসপাতালে নিয়ে আসে।  

সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার (আরএমও) ডা. মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, আবদুল কুদ্দুস স্ট্রোক করেছেন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।লক্ষ্মীপুর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর, সার্কেল) মিমতানুর রহমান বলেন, একটি চেক মামলায় কুদ্দুসকে গ্রেফতার করা হয়। থানায় নেওয়ার পর তিনি অসুস্থবোধ করলে তার স্ত্রী এবং স্থানীয় কাউন্সিলরের উপস্থিতিতে পুলিশ তাকে রাত ১০টা ১০ মিনিটে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রাত ১০টা ৪০ মিনিটের দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে।  

 

Bootstrap Image Preview