Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২৯ বুধবার, জুন ২০২২ | ১৫ আষাঢ় ১৪২৯ | ঢাকা, ২৫ °সে

প্রস্তুত পারমাণবিক অস্ত্র বাহিনী, ৩৬ দেশের জন্য রাশিয়ার আকাশসীমা বন্ধ

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২২, ১০:১০ PM
আপডেট: ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২২, ১০:১০ PM

bdmorning Image Preview
ছবি সংগৃহীত


রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন রোববার যে নির্দেশ দিয়েছেন, সেই অনুযায়ী দেশটির পারমাণবিক অস্ত্রের দায়িত্বে থাকা স্থল, নৌ ও বিমান বাহিনীর দল প্রস্তুত হচ্ছে বলে জানিয়েছেন রুশ প্ররিতক্ষামন্ত্রী ও সামরিক বাহিনীর প্রধান জেনারেল সের্গেই শোইগু। সোমবার এক বিবৃতিতে সাংবাদিকদের এই তথ্য জানিয়েছে রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘রুশ ফেডারেশনের সুপ্রিম কমান্ডার ভ্লাদিমির পুতিনের নির্দেশ অনুযায়ী রাশিয়ার স্থল, নৌ ও বিমান বাহিনীর যেসব সদস্য পারমাণবিক অস্ত্রের দায়িত্বে আছেন, তাদেরকে ইতোমধ্যে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।’

এর মাঝে যুক্তরাজ্য, জার্মানি, স্পেন, কানাডাসহ ৩৬টি দেশের সঙ্গে আকাশসীমা বন্ধ করার ঘোষণা দিয়েছে রাশিয়া। সংবাদ সংস্থা আরটির প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, সোমবার রাশিয়া এ ঘোষণা দিয়েছে। সম্প্রতি রাশিয়ার সঙ্গে আকাশসীমা বন্ধ করার ঘোষণা করেছিল ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। তারই পাল্টা জবাবে পুতিন প্রশাসন এই পদক্ষেপ নিয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

রাশিয়ার জন্য আকাশসীমা বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়ে সম্প্রতি কড়া বার্তা দিয়েছিলেন ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ভন ডের লিয়ন। সে সময় তিনি বলেছিলেন,‘রাশিয়ার মালিকানাধীন, রাশিয়ায় নথিভুক্ত রয়েছে অথবা রাশিয়ার কোনো সংস্থা দ্বারা পরিচালিত যেকোনো বিমানের জন্য ইউরোপীয় ইউনিয়নের আকাশসীমা বন্ধ করা হচ্ছে।’

‘ইতোমধ্যে উত্তর মহাসাগর ও প্রশান্ত মহাসাগরের রুশ নৌবহর ও বিমানবাহিনীর দূরপাল্লার বিভাগ বরাবর রুশ প্রেসিডেন্টের নির্দেশ পৌঁছে দেওয়া হয়েছে এবং বলা হয়েছে, পরমাণু অস্ত্র পরিচালনা ইউনিটের সদস্যদের যেন চলমান অভিযানের সাধারণ দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। এছাড়া যে কোনো সময় (অস্ত্র ক্ষেপণের) নির্দেশ পালনের জন্য প্রযোজনীয় প্রস্তুতির কাজও সম্পন্ন করতে বলা হয়েছে সংশ্লিষ্ট সদস্যদের।’

রোববার সের্গেই শোইগু এবং রাশিয়ার প্রতিরক্ষা বাহিনীর চিফ অব জেনারেল স্টাফ ভ্যালেরি গেরাসিমভকে দেশের সেনা বাহিনীর পারমাণবিক অস্ত্রের দায়িত্বে থাকা দলকে উচ্চ সতর্ক অবস্থায় রাখার নির্দেশ দেন পুতিন।

টেলিভিশনে সম্প্রচারিত এক ভাষণে এ সম্পর্কে পুতিন বলেন, ইউক্রেনে রুশ আগ্রাসন ঘিরে পশ্চিমা সামরিক জোট ন্যাটোর ‘আক্রমণাত্মক বিবৃতি’ এবং মস্কোর বিরুদ্ধে বিভিন্ন দেশের একের পর এক নিষেধাজ্ঞা জারির কারণে এই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এদিকে, পুতিনের ভাষণ টেলিভিশনে সম্প্রচারের ঘণ্টা খানেকের মধ্যেই যুক্তরাজ্যের সংবাদমাধ্যম স্কাই নিউজ নেটওয়ার্ককে একটি সাক্ষাৎকার দেন দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী লিজ ট্রাস। সেখানে রাশিয়ার প্রেসিডেন্টকে সতর্কবার্তা দিয়ে তিনি বলেন, ‘রাশিয়াকে অবশ্যই যত দ্রুত সম্ভব ইউক্রেনে আগ্রাসন বন্ধ করতে হবে। যদি রাশিয়া তা না করে, তাহলে শেষ পর্যন্ত এই যুদ্ধ ন্যাটোর সঙ্গে রুশদের সংঘাতে মোড় নেবে।’

Bootstrap Image Preview