Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৭ মঙ্গলবার, মে ২০২২ | ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ | ঢাকা, ২৫ °সে

লড়তে হবে জেলেনস্কির মত: বিএনপি প্রসঙ্গে সিইসি

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২২, ০৮:১০ PM
আপডেট: ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২২, ০৮:১০ PM

bdmorning Image Preview
ছবি সংগৃহীত


নির্বাচন বর্জন না করে মাঠে থাকতে ইউক্রেইনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির উদাহরণ টানলেন নতুন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল।

সিইসির দায়িত্ব নেওয়ার পর সোমবার প্রথম সংবাদ সম্মেলনে বিএনপিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের ভোট বর্জন নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নে ইউক্রেইনে রাশিয়ার আগ্রাসন আর যুদ্ধের চলমান ঘটনাপ্রবাহ টেনে আনেন তিনি।

হাবিবুল বলেন, “মাঠ ছেড়ে চলে গেলে হবে না। মাঠে থাকবেন। কষ্ট হবে। জেলেনস্কি (ইউক্রেইনের প্রেসিডেন্ট) হয়ত দৌড়ে পালিয়ে যেতে পারতেন।

“তিনি পালাননি। তিনি বলেছেন, রাশিয়ার সঙ্গে যুদ্ধ করব। তিনি রাশিয়ার সঙ্গে প্রতিরোধ যুদ্ধ করে যাচ্ছেন। নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে। যেখানেই প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয়, কিছুটা ধস্তাধস্তি হয়।”

নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে ২০১৪ সালে ৫ জানুয়ারি দশম সংসদ নির্বাচন বর্জন করে বিএনপিসহ অধিকাংশ রাজনৈতিক দল।

পরের নির্বাচনে বিএনপিসহ সেই দলগুলো এলেও ভোট ডাকাতির অভিযোগ এনে ফল প্রত্যাখ্যান করে। বিএনপি এখন বলছে, নির্দলীয় সরকারের অধীনে না হলে আগামীতে কোনো নির্বাচনে যাবে না তারা।

কাজী হাবিবুল আউয়াল নেতৃত্বাধীন এই ইসির পরিচালনায় আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন হবে। ফলে বিরোধী দলগুলোর আস্থা অর্জনই নতুন ইসির জন্য চ্যালেঞ্জ বলে বিশ্লেষকরা মনে করছেন।

ভোটে বিএনপির না আসার সম্ভাবনার বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নে সিইসি বলেন, “বিএনপি যদি এমন ঘোষণা দিয়েও থাকে, আমরা কি তাদের চা খাওয়ার আমন্ত্রণ জানাব না? কোনো কথাই শেষ কথাই নয়।”

বিএনপির নির্বাচনকালীন সরকারের দাবি নিয়ে এক সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “নির্বাচন সরকার করে না। নির্বচানের সময় একটা সরকার থাকে। কোনো না কোনো সরকার থাকবেই। ওয়ান-ইলেভেনের সময় ছিল, নির্দলীয় সরকার ছিল।

“এখন যে সাংবিধানিক ব্যবস্থা আছে, সেটা মেনেই আমরা চেষ্টা করব, ভোটাররা যাতে ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারে, সেটা বড় চ্যালেঞ্জ।”

রোববার শপথ নিয়ে সোমবার আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে এসে দায়িত্ব বুঝে নেন নতুন নির্বাচন কমিশনের সদস্যরা। এরপর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন তারা।

চার নির্বাচন কমিশনার মো. আলমগীর, আনিছুর রহমান, রাশেদা সুলতানা এমিলি, আহসান হাবীব খানও এ সময় সিইসির পাশে ছিলেন।

Bootstrap Image Preview