Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৭ মঙ্গলবার, মে ২০২২ | ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ | ঢাকা, ২৫ °সে

সাড়ে ৭ লাখ টাকাসহ লাগেজ ফিরিয়ে দিয়ে রাকিবের মুখে হাসি ফোঁটালেন এপিবিএন সদস্যরা

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৮ জানুয়ারী ২০২২, ১০:৪৫ PM
আপডেট: ২৮ জানুয়ারী ২০২২, ১০:৪৫ PM

bdmorning Image Preview
ছবি সংগৃহীত


হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বৃহস্পতিবার লাগেজ হারিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন সৌদি প্রবাসী রাকিব। এপিবিএনের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জিয়াউল হক বলেন, ‘রাকিবের লাগেজটি চুরি হয়নি। ভুলে একজন তার লাগেজ রেখে রাকিবেরটা নিয়ে যান।’

শুক্রবার সন্ধ্যায় রাকিবের কাছে লাগেজ হস্তান্তরের বিষয়টি নিশ্চিত করেন এপিবিএনের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জিয়াউল হক।

রাজধানীর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের লাগেজ বেল্ট থেকে রাকিব নামে এক সৌদি প্রবাসীর লাগেজ হারানোর ঘটনা ঘটে। অনেক খোঁজাখুঁজি করে লাগেজ না পেয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন রাকিব। এই লাগেজে ছিল সাড়ে ৭ লাখ টাকার চেক।

লাগেজ হারিয়ে রাকিবের কান্নার ভিডিও বৃহস্পতিবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। অনেকে প্রবাসী বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগ করেন।

সাড়ে ৭ লাখ টাকার চেকসহ লাগেজটি শুক্রবার উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে এয়ারপোর্ট আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন)। পুলিশ জানায়, চেকসহ লাগেজটি চুরি নয়, আরেক যাত্রীর লাগেজের সঙ্গে বদল হয়েছিল। রাকিবের বাড়ি নড়াইলের কালিয়া থানায়। তিনি চার বছর পর দেশে ফিরেছেন।

সৌদি প্রবাসী রাকিব বৃহস্পতিবার বেলা ৩টায় শাহজালাল বিমানবন্দরে পৌঁছান। পরে লাগেজ বেল্টে তার লাগেজটি আর খুঁজে পাননি তিনি।

লাগেজ হারিয়ে বিমানবন্দরে রাকিব জানান, ১২ থেকে ১৩ বছর ধরে তিনি সৌদি আরবে ছিলেন। ভিসা না থাকায় তাকে দেশে পাঠিয়ে দিয়েছে সে দেশের সরকার। সাড়ে ৭ লাখ টাকার ওয়ার্ল্ড ব্যাংকের চেক ছিল লাগেজে। তার পুরো সম্বল ওই লাগেজে। টাকা ছাড়াও লাগেজে জামাকাপড় ছিল। পরে বিমানবন্দরে দায়িত্বরত এপিবিএন অফিসে যোগাযোগ করেন রাকিব। তার লাগেজটি খুঁজে বের করে এপিবিএন সদস্যরা।

‘রাকিবের অভিযোগ পেয়ে ইমিগ্রেশন পুলিশের সহযোগিতায় প্রথমে সিসিটিভি ফুটেজ দেখা হয়। পরে ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছ থেকে তথ্য নিয়ে ওই ব্যক্তিকে (রাকিবের লাগেজ যিনি নিয়ে যান) ফোন করে বিষয়টি জানানো হয়। ওই ব্যক্তি আজ বেলা আড়াইটার দিকে তার জামাতাকে দিয়ে লাগেজটি বিমানবন্দরে পৌঁছে দেন। আমরা পরে রাকিবের কাছে তার লাগেজটি হস্তান্তর করি।’

Bootstrap Image Preview