Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২৯ শনিবার, জানুয়ারী ২০২২ | ১৬ মাঘ ১৪২৮ | ঢাকা, ২৫ °সে

আইভীর বিপক্ষে অবস্থান নিলে শামীম ওসমানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮ জানুয়ারী ২০২২, ০৮:৩৬ PM
আপডেট: ০৮ জানুয়ারী ২০২২, ০৮:৩৬ PM

bdmorning Image Preview
ছবি সংগৃহীত


নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আব্দুর রহমান বলেছেন, কোনো ব্যক্তিই আমাদের বিশেষত এই রাজনীতির শৃঙ্খলার ঊর্ধ্বে নন এবং কোনো অবস্থায়ই অপরিহার্যও নন। নৌকার প্রার্থীর বিপক্ষে অবস্থান নিশ্চিত হওয়া গেলে তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে।  

শনিবার (৮ জানুয়ারি) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের নিচে সিনামন রেস্টুরেন্টে এক মতবিনিময় সভায় শামীম ওসমানের বিষয়ে দলের অবস্থান প্রসঙ্গে সাংবাদিকের প্রশ্নের উত্তরে তিনি একথা বলেন। মেয়রপ্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর পক্ষে এ সভার আয়োজন করা হয়।

আব্দুর রহমান বলেন, ‘যার কথা বলা হচ্ছে (শামীম ওসমান) তিনি একটা দলের আদর্শ-নীতি-শৃঙ্খলা-নেতৃত্বের প্রতি আনুগত্য প্রকাশ লালন করেই কিন্তু এতবড় নেতা হয়েছেন। উনি যদি আজ সেগুলো প্রতিপালন না করেন এবং তিনি যদি এই দলের প্রার্থীর বিরুদ্ধে অবস্থান নেন, আমাদের কাছে যেসব খবর আসছে, আমরা সেগুলোর তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করছি। তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করে যখন বিষয়টি নিশ্চিত হবে যে উনি আমাদের প্রার্থীর বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন তখন তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিকভাবে ব্যবস্থা গ্রহণ করা ছাড়া আমাদের কাছে বিকল্প কোনো কিছু থাকবে না। তার বিরুদ্ধে অবশ্যই সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘একইভাবে জাতীয় পার্টির চারজন চেয়ারম্যান নাকি তৈমূর আলম খন্দকারের (মেয়র প্রার্থী) পক্ষে অবস্থান নিয়েছেন এবং কাজ করছেন। আমরা কেন্দ্রীয়ভাবে তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করছি। জাতীয় পার্টি যদি জাতীয় রাজনীতির প্রেক্ষাপট বিবেচনা করে সিদ্ধান্ত না নেয় তাহলে তাদের বিষয়ে আমরা ভাববো। আমার কাছে মনে হয় তারা দ্রুত তাদের অবস্থান পরিষ্কার করবে।’

এদিকে শামীম ওসমানের দাবি, আইভী তাঁকে গডফাদার বলে দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনার প্রতি আঙুল তুলেছেন। মোবাইল ফোনে আলাপকালে তিনি বলেন, ‘দুই দিন আগে একটা ভিডিও দেখলাম, সেখানে উনি (আইভী) বলছেন, শামীম ওসমান আমাদের নেতা। উনি বড় ভাই, আওয়ামী লীগের সাংসদ। দুই দিনের মধ্যে গডফাদার হয়ে গেলাম?’ 

শামীম বলেন, ‘আমাকে মনোনয়ন দিয়েছে আমার দল। আমি যদি গডফাদার হই, তাহলে আমাকে মনোনয়ন দিয়েছেন কে? কাকে প্রশ্নবিদ্ধ করা হলো? যে বলেছে, তার (আইভী) কাছে জিজ্ঞেস করেন, আপনি দুই দিন আগে এটা বলেছেন, দুই দিন পরে এটা বললেন। কোনটা সঠিক।’ 

শামীম ওসমান বলেন, ‘দুই দিন আগে বললেন, নেতা, এমপি, বড়ভাই। সব বললেন। এখন আজকে বললেন গডফাদার। আমি আওয়ামী লীগ করি, সেও আওয়ামী লীগ করে। আমি এমপি হয়েছি আওয়ামী লীগের মনোনয়নে। এখন আমি যদি গডফাদার হই, তাহলে আঙুলটা কার দিকে তোলা হলো?’ 

তাঁর বিরুদ্ধে যা বলা হচ্ছে সেগুলো নিয়ে দুই দিনের মধ্যে সংবাদ সম্মেলন করে জবাব দেবেন বলে জানিয়ে শামীম ওসমান বলেন, ‘সেটা কালকেও হতে পারে, কিংবা পরশু হতে পারে। সেখানে আমি আমার কথা বলবো।’ 

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে নিজেকে খুব একটা প্রাসঙ্গিক বলে মনে করছেন না শামীম ওসমান। তিনি বলেন, ‘আমি কোনো সাবজেক্ট না। প্রথম দিক থেকেই চুপচাপ ছিলাম। এখনও আছি। তাহলে আমি নিউজ হবো কেন? যারা আমাকে নিউজ বানাতে চাচ্ছেন। আমিতো তাঁদের (কেন্দ্রীয় নেতা) বলেছি, কী কারণটা। এখন ওনারা যদি কেউ কেউ ফায়দা লুটার চেষ্টা করেন, তাহলে এখন আমার দায়িত্ব হচ্ছে জনগণকে জানানো। জনগণ যদি সেটা সঠিক মনে করে, তাহলে সঠিক। এটা সম্পূর্ণ আমার ব্যক্তিগত বিষয়, কোনো রাজনৈতিক নয়।’ 

আগামী ১৬ জানুয়ারি নাসিক নির্বাচনে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। ভোটের সময় ঘনিয়ে এলেও নিজের অবস্থান পরিষ্কার করেননি স্থানীয় সংসদ সদস্য শামীম ওসমান। 

সাবেক মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীর মনোনয়নের পর থেকে খুব বেশি গণমাধ্যমে কথাও বলেননি শামীম ওসমান। প্রকাশ্যে নৌকার পক্ষেও অবস্থান নেননি। গত ২০ ডিসেম্বর নির্বাচন উপলক্ষে ঢাকা বিভাগের সাংগঠনিক দায়িত্ব পাওয়া নেতাদের সঙ্গে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর নেতাদের বৈঠকেও উপস্থিত ছিলেন না শামীম ওসমান। 

সম্প্রতি শামীম ওসমান জেলা প্রশাসন আয়োজিত ধলেশ্বর নদে নৌকাবাইচ অনুষ্ঠানে যোগ দেন, নারায়ণগঞ্জ রাইফেলস ক্লাবে প্রায় দুই দফা নিজ উপজেলার চেয়ারম্যান, কাউন্সিলর প্রার্থীদের সাংগঠনিক বৈঠক করেন। তবে কোনো সভায় আইভী বা সিটি নির্বাচন বা আইভীর সমর্থনে মাঠে নামা নিয়ে কোনো মন্তব্য করেননি। 

তবে নির্বাচন পরিচালনার সঙ্গে সম্পৃক্ত আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা বলছেন, শামীম ওসমান সময়মতোই নৌকার জন্য মাঠে নামবেন।

Bootstrap Image Preview