Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২৯ বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বার ২০২২ | ১৪ আশ্বিন ১৪২৯ | ঢাকা, ২৫ °সে

গুজবের সপ্তাহে হাওয়া শেয়ার বাজারের ১০ হাজার কোটি টাকা

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৩ অক্টোবর ২০২১, ০৯:৫০ AM
আপডেট: ২৩ অক্টোবর ২০২১, ০১:১০ PM

bdmorning Image Preview
ছবি সংগৃহীত


দীর্ঘদিন পর গুজবের সপ্তাহ পার করলো দেশের শেয়ার বাজার। পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থার চেয়ারম্যানের পদত্যাগের গুজবে গত সপ্তাহটি এই বাজারের জন্য মোটেও ভালো ছিল না। অবশ্য সপ্তাহের শেষ দিনে বাজার কিছুটা ঘুরে দাঁড়িয়েছে। বিশ্লেষণে দেখা যায়,  গেল সপ্তাহে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের বাজার মূলধন হারিয়েছে ১০ হাজার কোটি টাকার ওপরে। 

বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) লেনদেন শেষে প্রধান সূচক ডিএসইএক্স বেড়েছে ৫৫ পয়েন্ট। সূচকটি অবস্থান করছে ৭ হাজার ৭৬ পয়েন্টে। অপরদিকে, চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই বেড়েছে ১৭২ পয়েন্ট।

এর আগে গত মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) সূচকের বড় উত্থানকে মিলিয়ে দেয় ‘গুজব’। তাও লেনদেনের শেষ এক ঘণ্টায়। এ সময় বাজারে ব্যাপকভাবে গুজব ছড়িয়ে পড়ে, পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থার চেয়ারম্যান পদত্যাগ করেছেন। এ গুজবের সত্যতা নিশ্চিত না হয়েই একদল বিনিয়োগকারী শেয়ার বিক্রিতে হুমড়ি খেয়ে পড়েন। তাতে ওইদিন শেষে প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান সূচক ডিএসইএক্স হারায় ৭৭ পয়োন্ট বা ১ শতাংশ।

বাজার বিশ্লেষণ করে দেখা যায়,  গেল সপ্তাহে দেশের শেয়ারবাজার বড় ধরনের মন্দার মধ্যে দিয়ে পার করেছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের বাজার মূলধন হারিয়েছে ১০ হাজার কোটি টাকার ওপরে। শুধু তাই নয়, বড় অংকের মূলধন হারানোর পাশাপাশি কমেছে সবকটি মূল্যসূচক। সেই সঙ্গে কমেছে লেনদেনের গতিও। এর আগের সপ্তাহও মন্দার মধ্য দিয়ে পার করে দেশের শেয়ারবাজার। এতে ডিএসইর বাজার মূলধন কমে ২ হাজার কোটি টাকা। অর্থাৎ টানা দুই সপ্তাহে ১২ হাজার কোটি টাকার ওপরে মূলধন হারালো ডিএসই।

বাজারের তথ্য বলছে, গেল সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসের লেনদেন শেষে ডিএসইর বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ৫ লাখ ৬৯ হাজার ৮৫১ কোটি টাকা। যা এর আগের সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ছিল ৫ লাখ ৮০ হাজার ১১২ কোটি টাকা। অর্থাৎ গেল সপ্তাহে ডিএসইর বাজার মূলধন কমেছে ১০ হাজার ২৬১ কোটি টাকা।

বাজার মূলধন কমার পাশাপাশি গেল সপ্তাহে ডিএসইতে যে কয়টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে, কমেছে প্রায় তার চেয়ে ১১ গুণ। সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেওয়া ৩১টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে, কমেছে ৩৩৮টির। আর ৯টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

এদিকে গত সপ্তাহে ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স কমেছে ১৬৭ দশমিক শূন্য ৪ পয়েন্ট। আগের সপ্তাহে সূচকটি কমেছিল ৯৯ দশমিক ৭০ পয়েন্ট। অর্থাৎ টানা দুই সপ্তাহের পতনে ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক কমেছে ২৬৬ পয়েন্ট।

প্রধান মূল্য সূচকের পাশাপাশি গত সপ্তাহে কমেছে ইসলামী শরিয়াহ্ ভিত্তিতে পরিচালিত কোম্পানি নিয়ে গঠিত ডিএসই শরিয়াহ্ সূচকও। গত সপ্তাহজুড়ে সূচকটি কমেছে ৪৯ দশমিক ২৭ পয়েন্ট। আগের সপ্তাহে সূচকটি কমেছিল ২৮ দশমিক ৩৫ পয়েন্ট। এছাড়া বাছাই করা ভালো কোম্পানি নিয়ে গঠিত ডিএসই-৩০ সূচকও টানা পতনের মধ্যে রয়েছে। গত সপ্তাহজুড়ে এ সূচকটি কমেছে ১৯ দশমিক ৮০ পয়েন্ট বা দশমিক ৭৩ শতাংশ। আগের সপ্তাহে সূচকটি কমে ৪৮ দশমিক ২৫ পয়েন্ট বা ১ দশমিক ৭৪ শতাংশ।

বাজারের তথ্য বলছে, গত সপ্তাহের প্রতি কার্যদিবসে ডিএসইতে গড়ে লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ৫১০ কোটি ৭৫ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে প্রতিদিন গড়ে লেনদেন হয়েছিল ১ হাজার ৮১২ কোটি ৪২ লাখ টাকা। এই হিসেবে প্রতি কার্যদিবসে গড় লেনদেন কমেছে ৩০১ কোটি ৬৭ লাখ টাকা। আর গত সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ৬ হাজার ৪৩ কোটি ৩ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয় ৯ হাজার ৬২ কোটি ১১ লাখ টাকা। সে হিসাবে মোট লেনদেন বেড়েছে ৩ হাজার ১৯ কোটি ৮ লাখ টাকা বা ৩৩ দশমিক ৩২ শতাংশ। মোট লেনদেন বেশি হারে কমার কারণ গত সপ্তাহে ঈদে মিলাদুন্নবীর কারণে এক কার্যদিবস কম লেনদেন হয়েছে।

Bootstrap Image Preview