Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২৭ সোমবার, জুন ২০২২ | ১৩ আষাঢ় ১৪২৯ | ঢাকা, ২৫ °সে

শীর্ষ ১০ দূষিত শরের ৬টিই দক্ষিন এশিয়ায়

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৭ নভেম্বর ২০১৯, ১২:৫৪ PM
আপডেট: ১৭ নভেম্বর ২০১৯, ১২:৫৪ PM

bdmorning Image Preview


ভারতের রাজধানী দিল্লির বায়ু শুক্রবারও ‘বিপজ্জনক’ পর্যায়ে পৌঁছেছে। এর মাধ্যমে আবারও শহরটির বিশ্বের শীর্ষ দূষিত শহরের তালিকায় উঠে আসে। 

তবে, টানা পাঁচ দিন বায়ুর মান খারাপ থাকার পর রোববার সকাল থেকে দিল্লি আকাশ অনেকটা পরিষ্কার দেখা যাচ্ছে। তবে বায়ুর অবস্থা ‘বিপজ্জনক’ মাত্রা থেকে ‘খুবই খারাপ’ মাত্রায় বায়ু দূষণ চলছে বলে জানিয়েছে ভারতের সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডে।

আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ সংস্থা স্কাইমেট জানিয়েছে, শুক্রবার সকালে সার্বিক বায়ু মান সূচক (এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স -একিউআই) ৫০০ অতিক্রম করে। আরেক সংস্থা সিস্টেম অব এয়ার কোয়োলিটি অ্যান্ড ওয়েদার ফোরকাস্টিং অ্যান্ড রিসার্চ (সাফার) এদিন বিকেলে দিল্লির একিউআই রেকর্ড করে ৫৫২।

এর আগে ৫ নভেম্বর দিল্লির বায়ুর মান সব রেকর্ডকে পেছনে ফেলে। বায়ুর মান পরিমাপ শুরু হওয়ার পর থেকে ওই দিনই সবচেয়ে বিপজ্জনক বায়ু ছিলো দিল্লিতে।

শুক্রবার (১৬ নভেম্বর) গড়ে একিউআই ৫২৭ নিয়ে দিল্লি হয় সর্বোচ্চ দূষিত শহরের মধ্যে প্রথম। ভারতের প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তানের লাহোর একিউআই ২৩৪ নিয়ে হয় দ্বিতীয়। চতুর্থ স্থানে পাকিস্তানের আরেক শহর করাচি, যার একিউআই ছিল ১৮০। পঞ্চম ও নবমস্থানে যথাক্রমে ভারতের কলকাতা ও মুম্বাই। এ দুই শহরের একিউআই ছিলো ১৬১ ও ১৫৩। নেপালেও দূষিত শহরের তালিকায় ভারত ও পাকিস্তানের সঙ্গে রয়েছে। দেশটির রাজধানী কাঠমান্ডু দশম অবস্থানে। কাঠমান্ডুর একিউআই ছিল ১৫২।

সর্বোচ্চ ১০টি শহরের ৬টিই দক্ষিণ এশিয়ার। বাকি চারটি শহরও এশিয়ার। মধ্য এশিয়ার দেশ উজবেকিস্তানের রাজধানী তাসখন্দ তৃতীয়। চীনের চেঙদু (একিউআই ১৫৮) ও গুয়াংজু (একিউআই ১৫৭) যথাক্রমে ষষ্ঠ ও অষ্টম। ভিয়েতনামের রাজধানী হ্যানয় একিউআই ১৫৮ নিয়ে সপ্তম স্থানে।

বিভিন্ন দেশ বায়ু দূষণ পরিমাপ করার জন্য একিউআই ব্যবহার করে। ভারত সরকার স্বচ্ছ ভারত কর্মসূচির অংশ হিসেবে ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৪ দিল্লিতে ন্যাশনাল এয়ার কোয়ালিটি ইন্ডেক্স ব্যবহার শুরু করে। ভারতে একিউআই ৫ শ্রেণীতে বিন্যস্ত: ভালো (০-৫০), সন্তোষজনক (৫১-১০০), মাঝারিভাবে দূষিত (১০১-২০০), খারাপ (২০১-৩০০), খুবই খারাপ (৩০১-৪০০) ও বিপজ্জনক(৪০১-৫০০)।

প্রথম পর্যায়ের (ভালো) বায়ু দূষণ তেমন ক্ষতিকারক না হলেও শেষ পর্যায়ের (বিপজ্জনক মাত্রা) বায়ুদূষণে সুস্থ ও স্বাভাবিক ব্যক্তিও শ্বাস-প্রশ্বাস কষ্টে ভুগতে পারে, হতে পারে ফুসফুস ও হৃদযন্ত্র জনিত সমস্যা। হালকা শারীরিক পরিশ্রমেও আসতে পারে ক্লান্তি।

Bootstrap Image Preview