Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ৩১ মঙ্গলবার, জানুয়ারী ২০২৩ | ১৮ মাঘ ১৪২৯ | ঢাকা, ২৫ °সে

১৩ বছরের সংসার ভেঙে ‘ফটোশুট’, নেটদুনিয়া ভাইরাল নারী

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ০১ এপ্রিল ২০১৯, ০৫:০৮ PM
আপডেট: ০১ এপ্রিল ২০১৯, ০৫:০৮ PM

bdmorning Image Preview
সংগৃহীত ছবি


চলতি মাসের শুরুর দিকে দীর্ঘ ১৩ বছরের সংসার জীবনের ইতি টানেন তিনি। বিচ্ছেদের পর জীবনে এই নতুন পথচলাকে উপভোগ করতে এবার বোল্ড ফটোশুট করে দেখালেন ম্যারি লুলিস (৪৭) নামে এক নারী।

২০০৬ সালে কুইন্টন ইটনকে বিয়ে করেন ম্যারি। কিন্তু বিয়ের পর মাদকাসক্ত ও বাজে লোকের সঙ্গদোষের কারণে বদলে যান তার স্বামী। পরে কয়েক বছর আলাদা থাকার পর অবশেষে গত মার্চে কুইন্টনকে আনুষ্ঠানিকভাবে তালাক দেন ম্যারি। এরপরই ফটোশুট করেন এই নারী। ছবিগুলো টুইট করার পর পরই তা মুহূর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়ে যায়।

এখন পর্যন্ত তার ছবিতে ৫৯ হাজারের বেশি লাইক পড়েছে। রিটুইট করা হয়েছে ১০ হাজার বার।

ডেইলি মেইলকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ম্যারি বলেন, ‘আমি দেখাতে চেয়েছিলাম হ্যাঁ, আবারও সুখী হওয়া যায়।’

বিচ্ছেদের বিষয়টি উপভোগযোগ্য উল্লেখ করে ফটোশুট প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এটি কোনো বাগদান, বিয়ে অথবা নতুন বাচ্চার ফটোশুট নয়। আমার সম্প্রতি বিবাহ বিচ্ছেদের শুট হচ্ছে। সাহসী নারীরা এগিয়ে যেতে পারে এবং সুখী হতে পারে।’

ফটোশুটের একটি ছবিতে দেখা যায়, নিজের বিয়ের জ্বলন্ত ছবির পাশেই বসে আছেন ম্যারি। অপর ছবিতে একটি মদের গ্লাস হাতে উৎফুল্ল মেজাজে দাঁড়িয়ে পোজ দেন তিনি। গ্লাসের গায়ে লিখা ছিলো, ‘অবশেষে বিচ্ছেদ,  বিদায় ছেলে।’

আরও একটি ছবিতে হাতে একজোড়া জুতা নিয়ে একটি ছবি তুলেছেন এই নারী। সেখানে একটি জুতার তলদেশে ‘শুরু-২০০৬’ ওপরটিতে ‘শেষ-২০১৯’ লিখা রয়েছে।

একটি ছবিতে নিজের জুতার সরু হিল দিয়ে তার বিয়ের ছবির ফ্রেমের কাঁচকে ভাঙছেন ম্যারি।

এমনকি নিজের তালাকনামা নিয়েও পোজ দিয়েছেন তিনি। এ সময় অপর হাতে একটি সাইনবোর্ডও নেন তিনি; সেখানে লিখা ‘আমি তোমার জন্য সেরাটাই চাইবো কিন্তু তুমি আগেই তা পেয়ে গেছ।’

ম্যারি আরও বলেন, ‘আমি এই অধ্যায়টি সমাপ্ত করতে চেয়েছিলাম এবং অবশেষে এটি অফিসিয়ালি উদযাপন করতে পারলাম।’

ম্যারি তার ভাইয়ের স্ত্রী নাতাশা লুলিসের সাহায্যে এই ফটোশুট করেছেন বলে জানান।

নিজের ছবি ভাইরাল হওয়া প্রসঙ্গে ম্যারি বলেন, ‘আমরা কখনও ভাবিনি ছবিগুলো এমনভাবে ভাইরাল হবে। আমি মনে করি সবাই খুব অবাক হয়েছে এবং ভাবছে একজন নারী সাধারণদের মধ্য থেকে বেরিয়ে এসে এক আলোড়ন করে দেখিয়েছে।’

নিজের স্বামীর প্রসঙ্গে ম্যারি বলেন, সে মাদকের মধ্যে ডুবে যাচ্ছিলো এবং বাজে লোকদের সঙ্গে মেলামেশা করছিলো। মাদক একজন মানুষকে বদলে দেয়, বিষয়টি খুবই কষ্টকর। যখন সে প্রথমে খুব ভালো মানুষ ছিল।’

তিনি আরও জানান, তার স্বামী কয়েকবার জেলে গেছেন এবং কয়েকবছর ধরেই আলাদা আছেন।

সর্বশেষ ম্যারি বলেন, সবকিছুর শেষে, আমি আগের থেকে আরও সাহসী ও আমার জীবন নিয়ে সুখী আছি। আমি একজন ভালো সঙ্গী, পরিবার ও বন্ধু পেয়েছি।’

Bootstrap Image Preview