Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ০৫ বুধবার, অক্টোবার ২০২২ | ২০ আশ্বিন ১৪২৯ | ঢাকা, ২৫ °সে

দামি প্রাইভেটকার দেখলেই ঘুরতে নিয়ে যাওয়া দম্পতির খোঁজ পেল পুলিশ

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ২১ অক্টোবর ২০১৮, ০৫:২১ PM
আপডেট: ২১ অক্টোবর ২০১৮, ০৫:২১ PM

bdmorning Image Preview


রাজশাহী থেকে চুরি হওয়া একটি ট্রাক খুঁজতে গিয়ে একে একে উদ্ধার করা হয়েছে ১৪ ট্রাক।উদ্ধার হয় একটি প্রাইভেটকারও। এরপর গ্রেফতারকৃতদের সূত্র ধরে প্রাইভেটকার চক্রের সন্ধানে নামে রাজশাহী পুলিশ। এরই মধ্যে সংঘবদ্ধ প্রাইভেটকার চক্রের পাঁচ সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

আজ রবিবার ভোরে টাঙ্গাইলের এলেঙ্গা থেকে তাদের গ্রেফতার করে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। এ সময় তাদের কাছ থেকে একটি চোরাই প্রাইভেটকার উদ্ধার করা হয়।

গ্রেফতাররা হলেন- ভোলার দৌলতখান উপজেলার দক্ষিণ কলাকোপা এলাকার বশির উদ্দিনের ছেলে মো. মামুন (২৩), চাঁদপুরের মতলব উপজেলার নওজান এলাকার মৃত আলমাস মিয়ার ছেলে টিটু মিয়া (২৮), টিটু মিয়ার স্ত্রী শারমিন খাতুন রানি (১৯), পিরোজপুরের কাউখালী উপজেলার মেঘপাল এলাকার মৃত আবুল কাশেম আকন্দের ছেলে শহিদুল ইসলাম (৩০) এবং বগুড়ার ধুনট উপজেলার শেহুলিয়াবাড়ি এলাকার রবিউল ইসলামের ছেলে আশরাফুল ইসলাম (২৩)। এরা সাভারের বিভিন্ন এলাকায় ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন।

জানা যায় গত পাঁচ মাস ধরে এই গাড়ি চোর চক্রের পেছনে লেগে আছে রাজশাহী জেলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখা (ডিবি)। সর্বশেষ টাঙ্গাইলের কালিহাতি উপজেলার এলেঙ্গা ফিলিং স্টেশনের সামনে থেকে একটি প্রাইভেটকার উদ্ধার করা হয়েছে শনিবার। গ্রেফতার করা হয় চারজনকে। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত মোট ১৪ ট্রাক ও দুটি প্রাইভেটকার উদ্ধার করা হলো। আর মোট গ্রেফতার হয়েছে ১১ জন।

রবিবার দুপুরে জেলা পুলিশ সদর দফতরে এক সংবাদ সম্মেলন পুলিশ সুপার মো. শহিদুল্লাহ বলেন, গত ৬ জুন রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলা থেকে একটি ট্রাক চুরি হয়। এ ঘটনায় মামলা হলে তদন্তের দায়িত্ব পায় ডিবি পুলিশ। তদন্ত করতে গিয়ে একের পর এক এসব গাড়ি উদ্ধার হয়েছে। চোর চক্রের সদস্যরা গ্রেপ্তার হয়েছেন।

এসপি মো. শহীদুল্লাহ জানান, উদ্ধার হওয়া ট্রাকগুলোর প্রায় সবই অশোক লেল্যান্ড কোম্পানির। এই কোম্পানির ট্রাকের চেসিস নম্বর প্লেট পরিবর্তন করা সহজ হওয়ায় তারা এগুলোকেই টার্গেট করে।

কোম্পানিটি জানিয়েছে, বাংলাদেশে তাদের ৫২৯টি ট্রাক চুরি হয়েছে। তবে সিন্ডিকেটের মূলহোতা মনিরকে জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশ প্রায় ৮০টি ট্রাক চুরির তথ্য পেয়েছে। এগুলোরও বেশিরভাগ অশোক লেল্যান্ডের। এসব ট্রাক উদ্ধারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে পুলিশ।

এসপি বলেন, এটিই দেশের সবচেয়ে বড় গাড়ি চোর চক্র। এদের সঙ্গে বিআরটিএ’র অসাধু কিছু কর্মকর্তাও জড়িত আছেন। তাদের ব্যাপারে অনুসন্ধান চলছে। উপযুক্ত প্রমাণ পাওয়া মাত্র তাদেরও গ্রেপ্তার করা হবে।

Bootstrap Image Preview