Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ০৯ বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারি ২০২৩ | ২৭ মাঘ ১৪২৯ | ঢাকা, ২৫ °সে

কমেছে ডিমের দাম, স্থিতিশীল মাংসের বাজার

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২ অক্টোবর ২০১৮, ১২:২০ PM
আপডেট: ১২ অক্টোবর ২০১৮, ১২:৩০ PM

bdmorning Image Preview


সড়ক পরিবহন আইন সংশোধনসহ সাত দফা দাবিতে পণ্য পরিবহন ধর্মঘটের ফলে হঠাৎ করেই বেড়ে গিয়েছিল ডিমের দাম। ধর্মঘট প্রত্যাহারের পর ফের কমতে শুরু করেছে দাম।

আজ রাজধানীর কারওয়ানবাজার, হাতিরপুল বাজার ও মিরপুর-৬ নং বাজার ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

ধর্মঘটের সময় হঠাৎ করেই বেড়ে গিয়েছিল দাম। ধর্মঘটের আগে পাইকারি বাজারে প্রতি ডজন ডিম বিক্রি হয়েছে ৯০ টাকায়। আর খুচরা বাজারে প্রতি ডজন ডিম বিক্রি হয়েছে ১০০ টাকায়। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ায় বাজারে ডিমের সরবরাহ বাড়ায় ফের কমতে শুরু করেছে ডিমের দাম। পাইকারি বাজারে আজ প্রতি ডজন ডিম বিক্রি হয়েছে ৯০-৯৫ টাকায়। আর খুচরা বাজারে বিক্রি হয়েছে ১০০-১০৫ টাকায়।

ডিমের দাম কমার বিষয়ে কারওয়ানবাজারের ব্যবসায়ী রশীদ বিডিমর্নিংকে বলেন, ধর্মঘটের সময় বাজারে ডিমের ঘাটতি ছিল। তাই আমাদের বেশি দামে কিনতে হয়েছিল। কিন্ত এখন বাজারে পর্যাপ্ত ডিমের সরবরাহ আছে। তাই দাম কমেছে। তবে অনেক খুচরা ব্যবসায়ী এখনো প্রতি ডজন ডিম বিক্রি করছেন ১২০ টাকায়। কারণ হিসেবে তারা বলছেন, যারা ধর্মঘটের সময় ডিম কিনেছে তাদের বেশি দামে কিনতে হয়েছে। তাই তাদের বিক্রিও করতে হচ্ছে বেশি দামে।

এদিকে টানা তিনদিন পণ্য পরিবহণ ধর্মঘট থাকলেও এর প্রভাব পরেনি সবজির বাজারের উপর। ধর্মঘট চলাকালীন সময়েও স্থিতিশীল ছিল সবজির বাজার। আজও সবজির বাজারের স্থিতিশীল অবস্থা বিরাজমান রয়েছে।

বাজারে প্রতিকেজি আলু ২৫ টাকা, প্রতিকেজি পটল ৪০ টাকা, প্রতি কেজি পেপে ২০ টাকা, প্রতি কেজি ওস্তা ৬০ টাকা, প্রতি কেজি বেগুন ৮০ টাকা, প্রতিকেজি কাকরোল ৫০ টাকা, প্রতি কেজি ধুন্দল ৫০ টাকা, ঝিঙা ৬০ টাকা, লতি ৫০ টাকা, ঢেঁড়স ৫০ টাকা, প্রতি পিস জালি কদু ৩০ টাকা, প্রতি চিলতে কুমড়া ৩০টাকা, প্রতি পিস লাউ ৪০ টাকা,কচুরমুখী ৫০ টাকা,কহি ৫০ টাকা।

গত সপ্তাহের মত স্থিতিশীল আছে ব্রয়লার মুরগির দাম। বাজারে প্রতি কেজি ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১২৫-১৩০ টাকায়। তবে কিছুটা কমেছে কর্ক মুরগির দাম।

অন্যদিকে প্রতি কেজি কর্ক মুরগি বিক্রি হচ্ছে ২০০ টাকায়। যা গত সপ্তাহে বিক্রি হয়ছিল ২১০ টাকায়। এ বিষয়ে মিরপুর-৬ নং বাজারের পোল্ট্রি ব্যবসায়ী কামাল বিডিমর্নিংকে বলেন, গত সপ্তাহে কর্কের সরবরাহ কম ছিল। তাই বেশি দামে বিক্রি করতে হয়েছে।

তিনি বলেন, এ সপ্তাহে বাজারে সরবরাহ বাড়ায় কমেছে কর্ক মুরগির দাম। এদিকে পেঁয়াজ-কাঁচা মরিচও বিক্রি হচ্ছে গত সপ্তাহের দামেই। বাজারে মানভেদে প্রতি কেজি কাঁচা মরিচ বিক্রি হচ্ছে ৫০-৮০ টাকায়। আর প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৪৫-৫০টাকায়। আমদানি করা পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২৬-৩০ টাকায়।

Bootstrap Image Preview