Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ১৭ মঙ্গলবার, মে ২০২২ | ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ | ঢাকা, ২৫ °সে

মানুষের রক্তে আছে ০.২ মিলিগ্রাম স্বর্ণ !

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১২:০৭ PM
আপডেট: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১২:০৭ PM

bdmorning Image Preview


পদার্থের মধ্যে সোনার অভাব নেই পৃথিবীতে। আর মানুষের গোটা শরীরেই রক্তে মিশে রয়েছে সোনা। এর রং হলুদ। যে প্রোট-ইন্দো-ইউরোপিয়ান ‘ঘেল’ শব্দ থেকে এর নামকরণ, তারও অর্থ হলুদ। স্বর্ণের লাতিন নাম ‘অরাম’-এরও অর্থ ‘ভোরের আলো’।

সম্প্রতি প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়, আমাদের শরীরে যে ০.২ মিলিগ্রামের মতো স্বর্ণ থাকে তার বেশির ভাগই রয়েছে রক্তে। কিছু গাছপালা ও মাটি থেকে সোনা শুষে নিতে পারে।

একটি খাঁটি স্বর্ণমুদ্রার ওজনকে ২৪টি ক্যারব বীজের মোট ওজনের সমতুল্য মনে করা হয়। তাই একটি খাঁটি সোনার মুদ্রার ওজন হয় ২৪ ক্যারট।

জানা যায়, সবচেয়ে বেশি সোনা রয়েছে সমুদ্রগর্ভে। চকোলেটের মাধ্যমে স্বর্ণ আমাদের শরীরে ঢোকে। রিউম্যাটয়েড আর্থারাইটিসের চিকিৎসায় স্বর্ণের ব্যবহার হয় ওষুধে। স্বর্ণ ব্যবহার করেন দাঁতের ডাক্তাররাও। স্বর্ণ কতটা নিখাদ তার পরিমাপ করা হয় ক্যারটে- যা গ্রিক শব্দ ‘কেরাশিয়ান’ বা ক্যারব গাছ থেকে এসেছে।

১৫০০ খ্রিস্টাব্দ থেকে গত ৫০০ বছরে এখনও পর্যন্ত খনি থেকে তোলা হয়েছে ১ লাখ টন সোনা- যার ৪০ শতাংশই উত্তোলন করা হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকার উইটওয়াটারস্র্যান্ড থেকে। খনি থেকে সোনা তোলার কাজে বিশ্বে জড়িত রয়েছেন ৫ লাখ শ্রমিক। কিন্তু বছরে আড়াই হাজার টনের বেশি সোনা তোলা হয় না। সহজে উত্তোলন করার মতো সোনার মজুদ যতটা, তাতে আর বড়জোর ২০ বছর তা তোলা যাবে।

Bootstrap Image Preview