Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২৭ সোমবার, জুন ২০২২ | ১৩ আষাঢ় ১৪২৯ | ঢাকা, ২৫ °সে

যে কারণে অফিসে পাজামা পরে আসলেন বিশ্বের শীর্ষ ধনী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০১:২১ PM
আপডেট: ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০১:২১ PM

bdmorning Image Preview


বিশ্বের সবচেয়ে ধনী মানুষটি যদি পাজামা পরে অফিসে আসে ব্যাপারটা কেমন বিশ্বাসযোগ্য হয়? আসলেই তা ঘটেছে। সর্ববৃহৎ অনলাইন স্টোর আমাজনের সিইও জেফ বেজোস গত বুধবার কম্পানির বোর্ড মিটিংয়ে নীল রংয়ের পায়জামা পরে উপস্থিত হয়েছিলেন। তবে এর পেছনে বিশেষ উদ্দেশ্য রয়েছে তার। শিশুদের ক্যান্সার বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধিতেই তিনি এ কাজ করেছিলেন। তাছাড়া চলতি মাস শিশু ক্যান্সার সচেতন মাস হিসেবে পালন করা হয়।

ইন্সটাগ্রামের এক পোস্টে তিনি বলেন, আমাজন ইতিমধ্যে আমেরিকান চাইল্ডহুড ক্যান্সার অর্গানাইজেশনের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে। আমেরিকায় ৪-১৪ বছর বয়সী শিশুদের প্রাণঘাতী রোগের দ্বিতীয়তে রয়েছে ক্যান্সার। 

ইন্সটাগ্রামের একটি ছবিতে তার পোশাক দেখা যায়। তিনি একটি পাজামা সেট পরে এসেছেন। এগুলো সাধারণত আয়েশ করতে বাড়িতে পরা হয়। ঘরে পরার স্লিপারও পরেন তিনি। তার টেবিলে বাকিরা এক্সিকিউটিভ পোশাক পরে উপস্থিত ছিলেন। 

নিজের পোস্টে বেজোস আরও বলেন, বিশ্বজুড়ে সবারই শিশু ক্যান্সার বিষয়ে সচেতন করতে পাজামা পরে সমর্থন জানানো উচিত। আমাজনের পণ্য সরবরাহের গো গোল্ডেন বাক্সগুলো বিশেষভাবে ডিজাইন করা। এগুলোতে জুড়ে দেয়া হয়েছে স্বর্ণালী ফিতে। এই ফিতে শিশুদের ক্যান্সারের আন্তর্জাতিক চিহ্ন।

আমেরিকান চাইল্ডহুড ক্যান্সার অর্গানাইজেশন জানায়, অনলাইনে 'পিজামিন' ইভেন্টটি চালু হয়েছে সেই শিশুদের জন্যে যারা দীর্ঘদিন ধরে পাজামা পরেই সময় কাটাচ্ছে। পাজামা পরার অর্থ হলো তারা বাড়িতে বা হাসপাতালে ক্যান্সারের চিকিৎসা নিচ্ছে। শিশু ক্যান্সার নিয়ে কাজ করে এমন দুটো সংগঠনকে অনুদানও দিয়েছে আমাজন। 

অনলাইনে দেয়ামাত্র ভাইরাল হয়েছে। সবাই তাকে সাধুবাদ জানিয়েছেন। অনেকে ওই সভার অন্যান্যদেরও একই পোশাক পরা উচিত ছিল বলে মন্তব্য করেন।

Bootstrap Image Preview