Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ০১ বুধবার, ডিসেম্বার ২০২১ | ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ | ঢাকা, ২৫ °সে

বাংলাদেশ সকল ধর্মের, সকল বর্ণের: প্রধানমন্ত্রী

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ২১ অক্টোবর ২০২১, ০৩:৩২ PM
আপডেট: ২১ অক্টোবর ২০২১, ০৩:৩২ PM

bdmorning Image Preview
ছবি সংগৃহীত


শারদীয় দুর্গাপূজার সময় ঘটে যাওয়া সাম্প্রদায়িক সহিংসতাকে দুঃখজনক বলে উল্লেখ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বলেছেন, বাংলাদেশ একটি অসাম্প্রদায়িক দেশ। এখানে সব ধর্মের লোকদের সম্প্রীতি নিয়ে বাস করতে হবে।

কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের নবনির্মিত অফিস ভবনের উদ্বোধনী আয়োজনে বৃহস্পতিবার দুপুরে গণভবন প্রান্ত থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন সরকার প্রধান।

বাংলাদেশ অসাম্প্রদায়িক চেতনাতেই থাকবে জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমাদের বাংলাদেশে আমরা অসাম্প্রদায়িক সমাজে বসবাস করি। সেখানে সকল ধর্মের সঙ্গে আমাদের সম্প্রীতি থাকবে। সম্প্রীতি নিয়েই আমাদের চলতে হবে। যুগ যুগ ধরেই কিন্তু সকল ধর্মের মানুষ আমরা একসঙ্গে বসবাস করে আসছি।’

স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় কোনো ধর্মীয় পরিচয় দেখা হয়নি বলেও উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী। বলেন, ‘মহান মুক্তিযুদ্ধে যারা জীবন দিয়েছেন সেখানে কিন্তু কোনো ধর্ম দেখে না। যারা রক্ত দিয়েছেন তাদের সকলের রক্ত, যে যে ধর্মের হোক একাকার হয়ে মিশে গেছে। কাজেই এটা সবার মনে রাখতে হবে, বাংলাদেশ সকল ধর্মের, সকল বর্ণের, সব শ্রেণি পেশার মানুষের। সকলেই একটা মর্যাদা নিয়ে চলবে, সম্মান নিয়ে চলবে, সেটা আমাদের স্মরণ রাখতে হবে।’

কুমিল্লার ঘটনাটি উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘কুমিল্লায় যে ঘটনা ঘটে গেছে সেটা খুব দুঃখজনক। কারণ মানবধর্মকে সম্মান করা এটা ইসলামের শিক্ষা। নিজের ধর্ম পালনের অধিকার যেমন সবার আছে, অন্যের ধর্মকেও কেউ হেয় করতে পারে না। এটা ইসলাম শিক্ষা দেয় না। আর নিজের ধর্মকে সম্মান করার সঙ্গে সঙ্গে অন্যের ধর্মকেও সম্মান করতে হয়। আর অন্যের ধর্মকে যদি হেয় করা হয়, তাহলে নিজের ধর্মকে অসম্মান করা হয়।’

কুমিল্লার ঘটনায় অন্য ধর্মকে অসম্মান করতে গিয়ে পবিত্র কোরআন শরীফ অবমাননা করা হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী। বলেন, ‘আমাদের পবিত্র কোরআন শরীফকে অবমাননা করেছে অন্যের ধর্মকে অসম্মান করতে গিয়ে। এটাই হচ্ছে সব থেকে দুঃখজনক। আমি এটাই বলব, যার যার নিজের ধর্মের সম্মান নিজেকে রক্ষা করতে হবে।’

আইন নিজের হাতে তুলে না নিতেও সবাইকে সতর্ক করেছেন প্রধানমন্ত্রী। বলেন, ‘আরেকটি কথা, আইন কেউ হাত তুলে নেবে না। কেউ যদি অপরাধ করে সে যেই হোক অপরাধীদের বিচার হবে। আমাদের সরকার সেই বিচার করবে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের নবী করিম (সা.) বলেছেন, ধর্ম নিয়ে কেউ বাড়াবাড়ি করবে না। আমাদের সবারই সে কথাটা মেনে চলতে হবে। সে কথাটা স্মরণ করতে হবে। সেই কথাটা জানতে হবে। তাহলেই আমাদের ইসলামের প্রকৃত শিক্ষাটা পাব। প্রতিটি ধর্মই শান্তির বাণীর কথা বলে। সকলেই শান্তি চায়।’

বঙ্গবন্ধু কন্যা বলেন, ‘আমরা জানি যে, সবসময় এরকম একেকটা ঘটনা ঘটানোর চেষ্টা করা হয়। অথচ বাংলাদেশটা আজকে এগিয়ে যাচ্ছে। আমরা মুজিববর্ষ উদযাপন করছি, আমরা স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন করছি। এই স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে, মুজিববর্ষে আমরা উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা পেয়েছি। এই মর্যাদা রক্ষা করে আমাদের উন্নয়নের পথে এগিয়ে যেতে হবে।’

দেশের কোথাও যাতে সাম্প্রদায়িক সংঘাত না হয়, সেজন্য সারা দেশের আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের এলাকায় এলাকায় নজরদারি বাড়াতে নির্দেশ দিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি।

তিনি বলেন, ‘সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখতে হবে। প্রত্যেকটা এলাকায় এলাকায় আমাদের নেতা-কর্মীদেরকে নজরদারি বাড়াতে হবে এবং শান্তি সম্মেলন, শান্তি মিছিল, শান্তির সভা করতে হবে।’

সারা দেশে সম্প্রীতির ব্যবস্থা নিতেও দলীয় কর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান বঙ্গবন্ধু কন্যা। বলেন, ‘যাতে কোনো প্রকার সংঘাত দেখা না দেয়। কারণ এই মাটিতে প্রতিটা ধর্মের মানুষ, সে মুসলমান হোক, হিন্দু হোক, খ্রিস্টান হোক, বোদ্ধ হোক সকলেই যেন ভালোভাবে বাঁচতে পারে।

‘আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের মনে রাখতে হবে, আওয়ামী লীগের জন্ম হয়েছে মানুষের সেবা করতে।’

এসময় কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের নতুন কার্যালয় প্রসঙ্গে দলটির প্রধান বলেন, ‘যেহেতু এটা কুমিল্লা শহরে, এটাকে শুধু মহানগর অফিস বললে হবে না, এটা কুমিল্লা আওয়ামী লীগ অফিসই বলতে হবে।’

Bootstrap Image Preview