Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২২ শুক্রবার, অক্টোবার ২০২১ | ৭ কার্তিক ১৪২৮ | ঢাকা, ২৫ °সে

পাচারকারীদের সঙ্গে নিয়ে বিমানবন্দর থেকে হাবিবাকে তুলে নিল পুলিশ! (ভিডিও)

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ০১ অক্টোবর ২০২১, ১০:০৯ AM
আপডেট: ০১ অক্টোবর ২০২১, ১০:০৯ AM

bdmorning Image Preview
ছবি সংগৃহীত


সৌদি আরবে পাচারের শিকার বাংলাদেশি হাবিবা দেশে ফিরলেও বিমানবন্দর থেকে তাকে পাচারের দায়ে অভিযুক্ত এজেন্সি ও মামলার আসামিদের লোকজন সঙ্গে নিয়ে ভুক্তভোগী নারীকে থানায় নিয়ে গেছে পল্টন থানা পুলিশ। এমনকি বিমানবন্দরে হাবিবার পরিবার কিংবা সংবাদমাধ্যমকর্মী কারও সঙ্গে কথা বলতে দেওয়া হয়নি ভুক্তভোগী হাবিবাকে।

এ ঘটনায় হতবাক হাবিবার স্বজনরা। তাদের আশঙ্কা থানা হেফাজতে নিয়ে হাবিবার কাছ থেকে জোরপূর্বক স্বীকারোক্তি আদায় করবে পুলিশ। হাবিবার নিরাপত্তা নিয়েও শঙ্কিত তারা।

৪ মাস অমানুষিক নির্যাতনের শিকার হয়ে বৃহস্পতিবার (৩০ সেপ্টেম্বর) সকাল ৯টা ৫ মিনিটে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পা রাখেন মধ্যপ্রাচ্যে পাচারের শিকার বাংলাদেশি হাবীবা আক্তার। এদিন প্রিয়জনকে ফিরে পাবার অপেক্ষায় ছিল হাবিবার পরিবার। কিন্তু ঘটল উল্টো ঘটনা।

চাকরি দেওয়ার কথা বলে সৌদি আরবে যারা হাবিবাকে বিক্রি করে দিয়েছিল, সেই এজেন্সি ইফতি ইন্টারন্যাশনালের মালিক রুবেল ও পাচারের ৩ সহযোগীর লোকজন সঙ্গে নিয়ে পল্টন থানা পুলিশ বিমান বন্দর থেকেই হাবিবাকে তুলে নিয়ে যায়।

পুলিশ হাবিবাকে তার পরিবার ও ঘটনাস্থলে উপস্থিত সংবাদমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে কোনো কথা বলতে দেয়নি। পরিবারের আশঙ্কা থানায় নিয়ে আসামিদের বিরুদ্ধে মামলা তুলে নিতে হাবিবাকে নির্যাতন করা হতে পারে।

মানবপাচারের মামলায় অভিযুক্ত ও গ্রেপ্তার আসামিদের লোকজন সঙ্গে নিয়ে ভুক্তভোগীকে তুলে নেওয়ার ঘটনাকে নজিরবিহীন বলেছেন অভিবাসনকর্মীরা।

ব্র্যাকের ইনফরমেশন সার্ভিস সেন্টারের ম্যানেজার আল আমিন নয়ন বলেন, যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ তাদের সঙ্গে করেই পল্টন পুলিশ কীভাবে নিয়ে যায়, এটা হচ্ছে সব থেকে বড় বিষয়। ভাবার বিষয় হচ্ছে তাকে দিয়ে পুলিশ কী ধরনের স্টেটমেন্ট নেবে।

গৃহকর্মীর কাজ দেওয়ার কথা বলে গত ৭ জুন ইফতি ইন্ট্যারন্যাশনাল নামে রাজধানীর একটি এজেন্সি হাবিবাকে মধ্যপ্রাচ্যের দেশটিতে পাঠায়। তবে ৭ দিন পরেই পরিবারের কাছে পাঠানো ভিডিওতে হাবিবা জানান, তাকে আসলে বিক্রি করে দেওয়া হয়েছে। যেখানে তার ওপর চলছে পৈশাচিক নির্যাতন।

হাবিবার পরিবার তাকে দেশে পাঠানোর কথা বললে এজেন্সি থেকে বলা হয়, ৪ লাখ টাকা দিলেই সৌদি আরব ছাড়তে পারবে হাবিবা। আর আইনের আশ্রয় নিলে গুম করে দেওয়া হবে হাবিবাকে। এ ঘটনায় মঙ্গলবার প্রতিবেদন প্রচার করে সময় সংবাদ।

এরপর র‌্যাব হাবিবার স্বামীর অভিযোগ আমলে নিয়ে ৪ জনকে গ্রেপ্তার করে। পল্টন থানায় দায়ের হয় মানবপাচার মামলা।

Bootstrap Image Preview