Bootstrap Image Preview
ঢাকা, ২৮ মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বার ২০২১ | ১৩ আশ্বিন ১৪২৮ | ঢাকা, ২৫ °সে

আফগানিস্তানে মেয়েদের লেখাপড়ার আলাদা ব্যবস্থা করবে তালেবান

বিডিমর্নিং ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৪৫ PM
আপডেট: ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৪৫ PM

bdmorning Image Preview


আফগানিস্তানের তালেবান সরকারের উচ্চশিক্ষা বিষয়ক মন্ত্রী আবদুল বাকি হাক্কানি ইঙ্গিত দিয়েছেন যে, মেয়েদের লেখাপড়া করতে দেওয়া হবে, কিন্তু একসঙ্গে পুরুষের পাশাপাশি নয়।

তিনি বলেন, আফগানিস্তানের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ছেলে ও মেয়ে শিক্ষার্থীদের আলাদাভাবে শিক্ষাদান এবং ইসলামসম্মত পোশাকের নিয়মকানুনও চালু করা হবে।

তিনি আরো বলেন, কী কী বিষয় পড়ানো হবে তা পুনর্বিবেচনা করা হবে।

আগের শিক্ষা ব্যবস্থার অবসান ঘটানোর কথা ঘোষণা করে হাক্কানি বলেন, সহশিক্ষা বন্ধ করায় তারা কোনও সমস্যা দেখেন না। তিনি বলেন, 'এখানকার মানুষ মুসলিম এবং তারা তা মেনে নেবে।'

হাক্কানি বলেন, যেখানে মহিলা শিক্ষক নেই সেখানে বিকল্প খোঁজা হবে। 'পুরুষ শিক্ষকরা একটি পর্দার পেছন থেকে শিক্ষাদান করতে পারেন, অথবা কোন প্রযুক্তি ব্যবহার করতে পারেন।'

তালেবান সরকারের এই মন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে যেসব বিষয় পড়ানো হয় - তা পুনর্বিবেচনা করে দেখা হবে এবং তালেবান একটি যৌক্তিক এবং ইসলামিক পাঠ্যসূচি চালু করতে চায় - যা ইসলামী, জাতীয় এবং ঐতিহাসিক মূল্যবোধের সাথে সঙ্গতিপূর্ণ হবে, পাশাপাশি তা যেন অন্য দেশের সাথে প্রতিযোগিতা করতে পারে।

প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্কুলগুলোতে ছেলে ও মেয়ে শিক্ষার্থীদের পৃথক করা হবে। আফগানিস্তানে অনেক জায়গাতেই এটা আগে থেকেই চালু আছে।

হাক্কানি জানান, নারীদের হিজাব পরতে হবে। তবে বাড়তি কোন মুখ ঢাকার কাপড় বাধ্যতামূলক করা হবে কিনা তা তিনি বলেননি।

এর আগে গতকাল রোববার কাবুলে শহিদ রব্বানি এডুকেশন ইউনিভার্সিটিতে তালেবান-সমর্থক নারীদের একটি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এতে কালো নিকাব পরা শত শত মহিলা তালেবানের পতাকা হাতে নতুন প্রশাসনের প্রশংসাসূচক বক্তৃতা শোনেন।

আফগানিস্তানে গত মাসে ক্ষমতায় ফিরে আসার পর তালেবান বলছিল, তারা নারীদের শিক্ষা বা চাকরিতে বাধা দেবে না। কিন্তু পরবর্তীতে তারা জনস্বাস্থ্য ছাড়া অন্য সব ক্ষেত্রে কর্মরত মহিলাদের নিরাপত্তা পরিস্থিতি উন্নত না হওয়া পর্যন্ত কাজে না আসার আদেশ জারি করে।

গত শনিবার কাবুলের প্রেসিডেন্ট প্রাসাদে তালেবান পতাকা ওড়ানোর পর শিক্ষা সংক্রান্ত নীতি ঘোষণা করা হলো। তালেবানের দখলের আগে আফগান বিশ্ববিদ্যালয়গুলো সহশিক্ষা চালু ছিল। নারী ও পুরুষ শিক্ষার্থীরা পাশাপাশি বসতেন এবং ছাত্রীদের কোন পোশাক সংক্রান্ত নিয়ম মেনে চলতে হতো না।

এর আগে ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত তালেবান যখন ক্ষমতায় ছিল তখন স্কুল ও বিশ্ববিদ্যালয়ে নারীদের নিষিদ্ধ করা হয়েছিল।

সূত্র: বিবিসি

Bootstrap Image Preview